kalerkantho


কোটা ও নিরাপদ সড়ক আন্দোলনে বিতর্কিত আইনের ব্যবহার করছে সরকার

ঈদের আগেই আটক শিক্ষার্থীদের মুক্তি দাবি আইনজীবী সমিতির

নিজস্ব প্রতিবেদক    

২০ আগস্ট, ২০১৮ ০১:৩৩



ঈদের আগেই আটক শিক্ষার্থীদের মুক্তি দাবি আইনজীবী সমিতির

কোটা সংস্কার ও নিরাপদ সড়ক চাই আন্দোলনে জড়িত থাকার অভিযোগে যেসব শিক্ষার্থীকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে তাদের পবিত্র ঈদুল আজহার আগেই মুক্তির দাবি জানিয়েছে সুপ্রিম কোর্ট আইনজীবী সমিতি। সমিতির পক্ষ থেকে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলন থেকে এ দাবি জানিয়ে বলা হয়, আন্দোলনকারী শিক্ষার্থীদের বিরুদ্ধে সরকার বিতর্কিত তথ্য-প্রযুক্তি আইন ব্যবহার করছে। 

সুপ্রিম কোর্ট আইনজীবী সমিতি ভবনে গতকাল রবিবার আয়োজিত এ সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্য পাঠ করেন সমিতির সভাপতি অ্যাডভোকেট জয়নুল আবেদীন। এ সময় উপস্থিত ছিলেন সমিতির সম্পাদক ব্যারিষ্টার মাহবুব উদ্দিন খোকন, কোষাধ্যক্ষ নাসরিন আক্তার, সিনিয়র সহসম্পাদক কাজী জয়নাল আবেদীন প্রমুখ।

জয়নুল আবেদীন বলেন, সরকারি চাকরিতে কোটা সংস্কার এবং নিরাপদ সড়কের দাবিতে শিক্ষার্থীদের আন্দোলন যৌক্তিক ছিল বলে আমরা মনে করি। সরকারও এর যৌক্তিকতা স্বীকার করেছে। যে সমস্ত ছাত্রছাত্রীরা এ আন্দোলনে অংশগ্রহণ করেছিল তারা কোনো রাজনৈতিক দলের সদস্য ছিল না। তবু জামায়াত-বিএনপিকে জড়িয়ে এই আন্দোলনকে ভিন্ন খাতে প্রবাহিত করতে সরকার নানা কৌশল অবলম্বন করেছে। নামে-বেনামে অনেক মামলা করেছে সরকার। কোটা সংস্কার ও নিরাপদ সড়কের দাবিতে আন্দোলনকারী শিক্ষার্থীদের বিরুদ্ধে তথ্য প্রযুক্তি আইনের ৫৭ ধারায় মামলা দেওয়া হয়েছে। আন্দোলনকারীদের গণগ্রেপ্তারের মূল লক্ষ্যে পরিণত করেছে। কেন হাজার হাজার অজ্ঞাতনামা আসামি করে মামলা করেছে, তা বোধগম্য নয়।

জয়নুল আবেদীন বলেন, আমরা দেখেছি হেলমেটধারী সন্ত্রাসীরা ছাত্রছাত্রী ও সাংবাদিকদের ওপর হামলা চালিয়েছে। সাধারণ ছাত্র-ছাত্রীদের গ্রেপ্তার করা হলেও আন্দোলনকারীদের ওপর সহিংসতা চালানোর দায়ে কারো বিরুদ্ধে এখন পর্যন্ত কোনো ব্যবস্থা নেওয়া হয়নি। বরং অনলাইন জগতে কড়া নজরদারি চালাচ্ছে। সহিংসতায় ছাত্রলীগের ভূমিকা এবং হেলমেটধারীদের বিষয়ে ঘটনার তদন্ত করে প্রয়োজনীয় আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণের দাবি জানাচ্ছি।



মন্তব্য