kalerkantho


শিক্ষার্থীদের আন্দোলন

গ্রেপ্তার চার ছাত্রের জামিন নামঞ্জুর

আদালত প্রতিবেদক   

১৩ আগস্ট, ২০১৮ ০০:৩৬



গ্রেপ্তার চার ছাত্রের জামিন নামঞ্জুর

ফাইল ছবি

নিরাপদ সড়কের দবিতে শিক্ষার্থীদের আন্দোলন চলাকালে পুলিশের ওপর হামলা ও ভাঙচুরের ঘটনায় গ্রেপ্তার হওয়া বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ের ২২ ছাত্রের মধ্যে পৃথক দুই থানার মামলায় চারজনের জামিন আবেদন নামঞ্জুর করেছেন আদালত। 

গতকাল রবিবার ঢাকার মহানগর হাকিম প্রনব কুমার হুই ওই চার ছাত্রের পক্ষে করা জামিন আবেদন শুনানি শেষে না মঞ্জুর করেন।

এরা হলেন- বাড্ডা থানার মামলায় গ্রেপ্তার তরিকুল ইসলাম ও রেদোয়ান আহমেদ। ভাটারা থানার মামলায় গ্রেপ্তার মাসহাদ মুর্তজা আহাদ ও আজিজুল করিম অন্তর। জামিন আবেদন শুনানির সময় তাদের আদালতে আনা হয়নি। 

তাদের পক্ষে করা আবেদন শুনানি করেন আইনজীবী কবির হোসেন ও রোকেয়া করিম। অপরদিকে জামিনের বিরোধিতা করে প্রসিকিউশন পুলিশের কর্মকর্তা উপ-পরিদর্শক আবু হানিফ। 

গত ৭ আগস্ট আদালতে হাজির করার পর পুলিশের করা আবেদনের প্রেক্ষিতে গ্রেপ্তার ২২ ছাত্রের প্রত্যেককে দুইদিন করে রিমান্ড মঞ্জুর করা হয়। গত ৯ আগস্ট রিমান্ড শেষে তাদের কারাগারে পাঠানো হয়।

ওই ছাত্ররা রাজধানীর ইস্ট ওয়েস্ট, নর্থ সাউথ, সাউথইস্ট ও ব্র্যাক বিশ্ববিদ্যালয়ে অধ্যয়নরত। গ্রেপ্তার ২২ জনের মধ্যে বাড্ডা থানার মামলায় ১৪ জনকে ও ভাটারা থানার মামলায় গ্রেপ্তার ৮ জন ছাত্র রয়েছে। 

বাড্ডা থানার মামলায় গ্রেপ্তার হয়ে কারাগারে থাকা অন্যরা হলেন, রিসালাতুল ফেরদৌস, রাশেদুল ইসলাম, বায়েজিদ আহমেদ, মুশফিকুর রহমান, ইফতেখার আহম্মেদ, রেজা রিফাত আখলাক, এএইচএম খালিদ রেজা, নূর মোহাম্মাদ, সীমান্ত সরকার, ইকতিদার হোসেন, জাহিদুল হক ও মোহাম্মদ হাসান। 

এ ছাড়া ভাটারা থানার মামলায় কারাগারে থাকা অন্যরা হলেন, ফয়েজ আহম্মেদ আদনান, সাবের আহম্মেদ, মেহেদী হাসান, শিহাব শাহরিয়ার, সাখাওয়াত হোসেন ও আমিনুল এহসান।

বাড্ডা থানার মামলায় বলা হয়, গত ৬ আগস্ট দুপুর সাড়ে ১২টার দিকে ইস্ট ওয়েস্ট বিশ্ববিদ্যালয় এবং অন্যান্য বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্রছাত্রীরা আফতাব নগর মেইন গেটের রাস্তায় যান চলাচলে বাধা দেয়। লাঠিসোঁটা, ইটপাটকেল দিয়ে রাস্তায় গাড়ি ভাঙচুর করে। এ সময় পুলিশ বাধা দিলে তারা পুলিশের ওপর আক্রমণ করে।

অন্যদিকে ভাটারা থানার মামলার বলা হয়, আসামিরা বসুন্ধরা আবাসিক এলাকার অ্যাপোলো হাসপাতাল ও নর্থ সাউথ বিশ্ববিদ্যালয় এলাকায় লোহার রড, লোহার পাইপ ও ইট দিয়ে পুলিশের ওপর হামলা করে। আসামিরা বেলা ১১টা থেকে সন্ধ্যা সাড়ে ৬টা পর্যন্ত ঘটনাস্থলের আশপাশের দোকানপাট, ব্যবসা প্রতিষ্ঠান, বাসার দরজা, জানালা ভাঙচুর করে। 



মন্তব্য