kalerkantho


গায়ক আসিফ আকবর কারাগারে

আদালত প্রতিবেদক    

৬ জুন, ২০১৮ ১৪:৫৮



গায়ক আসিফ আকবর কারাগারে

তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি (আইসিটি) আইনের মামলায় গ্রেপ্তার জনপ্রিয় সংগীতশিল্পী আসিফ আকবরকে কারাগারে পাঠিয়েছেন আদলত। ঢাকার আদালতে রিমান্ড চেয়ে হাজির করার পর তাকে কারাগারে পাঠানো হয়।

রাজধানীর তেজগাঁও থানায় গীতিকার, সুরকার ও গায়ক শফিক তুহিনের দায়ের করা মামলায় গতকাল মঙ্গলবার রাত দেড়টার দিকে পুলিশের অপরাধ তদন্ত বিভাগের (সিআইডি) একটি দল মগবাজারে অবস্থিত অফিস থেকে আসিফকে গ্রেপ্তার করে। আজ বুধবার বেলা সাড়ে ১১টার দিকে তাকে আদালতে হাজির করেন মামলার তদন্ত কর্মকর্তা সিআইডির উপ-পরিদর্শক (এসআই) প্রলয় রায়।

ঘটনার বৃত্তান্ত জানতে আসিফকে পাঁচ দিন হেফাজতে (রিমান্ডে) নিয়ে জিজ্ঞাসাবাদ করার অনুমতি চেয়ে  আবেদন দাখিল করেন প্রলয় রায়।

প্রতিবেদনে বলা হয়, ঘটনার মূল রহস্য উদ্ঘাটন ও মূল হোতাকে খুঁজে বের করতে এবং এ কাজে ব্যবহার করা ইলেকট্রনিক্স ডিভাইসের পরিচিতি সম্পর্কে জানা একান্ত প্রয়োজন। সুষ্ঠু তদন্তের স্বার্থে তাকে হেফাজতে নেওয়ার অনুমতি দেওয়া হোক।

বেলা ২টার দিকে ঢাকার প্রথম অতিরিক্ত মুখ্য মহানগর হাকিম কেশব রায় চৌধুরীর এজলাসে শুনানি শেষে রিমান্ড ও জামিন আবেদন নাকচ করে তাকে কারাগারে পাঠানোর আদেশ দেওয়া হয়। বিচারকের ওই আদেশের আগে আদালতে শুনানিতে তার আইনজীবী ওমর ফারক ও জাকির হোসেন আসিফের রিমান্ড বাতিল করে জামিন চান। 

প্রসঙ্গত, সোমবার সন্ধ্যায় শফিক তুহিন বাদী হয়ে আইসিটি আইনে আসিফের বিরুদ্ধে মামলাটি দায়ের করেন। এফআইআর কলামে আসিফ ছাড়া অজ্ঞাতনামা ৪-৫ জনকে আসামি করা হয়েছে। 

যে অভিযোগে গ্রেপ্তার
এজাহারে শফিক তুহিনের অভিযোগ, গত ১ জুন রাতে চ্যানেল টোয়েন্টিফোরের এক প্রতিবেদনের মাধ্যমে তিনি জানতে পারেন যে আসিফ আকবর অনুমতি ছাড়াই তাঁর সংগীতকর্মসহ অন্যান্য গীতিকার, সুরকার ও শিল্পীদের ৬১৭টি গান সবার অজান্তে বিক্রি করেছেন। 

অভিযোগে আরো জানানো হয়েছে, এভাবে আসিফ অন্যের সুর, গীত ও সঙ্গীতকর্মের অবৈধ বাণিজ্যিক ব্যবহার দ্বারা অসাধুভাবে ও প্রতারণার মাধ্যমে বিপুল অর্থ উপার্জন করেছেন।

শফিক তুহিন গত ২ জুন রাত ২টা ২২ মিনিটে নিজ অ্যাকাউন্টে ফেসবুক পোস্ট দেন। এতে অনুমোদন ছাড়া গান বিক্রির অভিযোগ তোলা হয় আসিফের বিরুদ্ধে। পরে ওই পোস্টের নিচে মন্তব্যের ঘরে আসিফ তার নিজের একটি অ্যাকাউন্ট থেকে অশালীন মন্তব্য করেন এবং হুমকি দেন বলে জানা গেছে। 

মামলার এজাহারে শফিক তুহিন আরো উল্লেখ করেন, পরদিন রাতে আসিফ আকবর তাঁর প্রায় ৩২ লাখ লাইক সমৃদ্ধ ফেসবুক পেজে লাইভে এসে শফিক তুহিনের বিরুদ্ধে অবমাননাকর, অশালীন ও মিথ্যা বক্তব্য দেন এবং নিজের ভক্তদের তার বিরুদ্ধে উসকে দেন। এর সূত্রে আসিফের ভক্তরা শফিক তুহিনকে সামাজিক মাধ্যমে হত্যার হুমকি দেয় বলে জানান তুহিন।

 



মন্তব্য