kalerkantho


খালেদার জামিন: আপিল বিভাগের আদেশ আসেনি

আদালত প্রতিবেদক   

১৬ মে, ২০১৮ ২৩:৫৩



খালেদার জামিন: আপিল বিভাগের আদেশ আসেনি

জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট দুর্নীতির মামলায় আপিল বিভাগ বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার জামিন দিলেও নিম্ন আদালতে ওই আদেশের অনুলিপি আদালতের নিয়ম মাফিক জুডিশিয়াল মুনিখানায় এসে পৌঁছায়নি। ফলে জামিননামা দাখিল না করতে পারায় পিছিয়ে গেল খালেদার কারামুক্তি।

আজ বুধবার সকাল ৯টা ৫ মিনিটে প্রধান বিচারপতি সৈয়দ মাহমুদ হোসেনের নেতৃত্বাধীন চার সদস্যের পূর্ণাঙ্গ আপিল বেঞ্চ হাইকোর্টে খালেদাকে দেওয়া জামিন বহাল রাখেন। একই সঙ্গে আগামী ৩১ জুলাইয়ের মধ্যে আপিল নিষ্পত্তির নির্দেশ দেন।

কিন্তু বিকেল পর্যন্ত ওই আদেশের অনুলিপি ঢাকার সিএমএম আদালতের জুডিশিয়াল মুন্সিখানায় না পৌঁছানোয় খালেদার পক্ষে জামিননামা দাখিলের অনুমতি চেয়ে করা আবেদন সংশ্লিষ্ট শাখায় জমা পড়ে রইলো।

এ প্রসঙ্গে মুন্সিখানার কর্মকর্তা ওমর ফারুক চৌধুরী বলেন, আপিল বিভাগের আদেশের অনুলিপি অফিসিয়ালি না পাওয়া পর্যন্ত খালেদা জিয়ার পক্ষে জামিননামা দাখিলের অনুমতি চেয়ে করা আবেদন আদালতে উপস্থাপন করা সম্ভব হয়নি। আপিল বিভাগের আদেশ সেরেস্তায় পৌঁছানোর পর তৎক্ষণাৎ আদালতে উপস্থাপন করা হবে।

এর আগে এ মামলায় হাইকোর্ট গত ১২ মার্চ আপিলের শর্তে খালেদার চার মাসের জামিন মঞ্জুর করেন। ওই আদেশ পরেরদিন সন্ধ্যায় জেপি শাখায় পোঁছায়। তবে জামিন স্থগিত চেয়ে হাইকোর্টের আদেশের বিরুদ্ধে দুদক ও রাষ্ট্রপক্ষ পৃথক আবেদন করলে খালেদার পক্ষে সে সময় জামিননামা দাখিল করা যায়নি। 

গত ১৪ মার্চ চেম্বার বিচারপতির আদালতে হাইকোর্টের দেওয়া ওই জামিন আদেশ স্থগিত চেয়ে আবেদন করে দুদক। এর প্রেক্ষিতে হাইকোর্টেের দেওয়া জামিন আদেশ স্থগিত করে দুদক ও রাষ্ট্রপক্ষকে নিয়মিত বেঞ্চে লিভ টু আপিল (আপিলের অনুমতি চেয়ে আবেদন) করতে বলা হয়।

একইদিন একই আদালতে ওই স্থগিতাদেশ প্রত্যাহার চেয়ে খালেদার পক্ষে আবেদন করা হয়। এ আবেদনটিও আপিল বিভাগের নিয়মিত বেঞ্চে পাঠানো হয়। গত ১৯ মার্চ খালেদার জামিন সংক্রান্ত বিষয়ে পূর্ণাঙ্গ বেঞ্চে শুনানির জন্য দিন ধার্য করে আপিল বিভাগ।

গত ৮ ও ৯ মে দুদকের আইনজীবী খুরশীদ আলম খান, অ্যাটর্নি জেনারেল মাহবুবে আলম ও খালেদা জিয়ার আইনজীবীরা আপিল বিভাগে যুক্তিতর্ক তুলে ধরেন। মঙ্গলবার দিন ধার্য করলেও পরেরদিন আদেশ দেন।



মন্তব্য