kalerkantho


মনু হত্যা মামলায় পাঁচজনের মৃত্যুদণ্ড বহাল

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

১৫ ফেব্রুয়ারি, ২০১৮ ১৮:০৯



মনু হত্যা মামলায় পাঁচজনের মৃত্যুদণ্ড বহাল

মিরপুরের ১২ নম্বর ওয়ার্ড স্বেচ্ছাসেবক লীগের সহ-সভাপতি মনির উদ্দিন মনু ওরফে মনু হাজী হত্যা মামলায় শীর্ষ সন্ত্রাসী শাহাদাতসহ পাঁচজনের মৃত্যুদণ্ড বহাল রেখেছেন হাইকোর্ট। শাহাদাত ছাড়া মৃত্যুদণ্ডপ্রাপ্ত অন্যরা হলেন- মো. মিন্টু, মাসুদুর রহমান ওরফে তোতা ওরফে তোতলা মাসুদ, মাহমুদুর রহমান ওরফে সোহেল, লিটন হোসেন ওরফে লোটাস ওরফে নুরুজ্জামান, মো. নোমান ইবনে বাসার ওরফে বাবু ওরফে টিভিএস বাবু, মো. হাসান সারোয়ার ওরফে মো. জিকু। এছাড়া এ মামলার আসামি জাহানারাকে যাবজ্জীবন কারাদণ্ড দিয়েছে আদালত। একইসঙ্গে তাকে অতিরিক্ত ২০ হাজার টাকা অর্থদণ্ড ও অনাদায়ে আরও এক বছরের সশ্রম কারাদণ্ড দেওয়া হয়। আজ বৃহস্পতিবার হাইকোর্টের বিচারপতি ভবানী প্রসাদ সিংহ ও বিচারপতি মোস্তফা জামান ইসলামের সমন্বয়ে গঠিত বেঞ্চ এ রায় ঘোষণা করেন।

এর আগে ২০১৫ সালের ৩০ মার্চ মনু হত্যা মামলায় শীর্ষ সন্ত্রাসী শাহাদাতসহ সাতজনকে মৃত্যুদণ্ড দেন আদালত। একইসঙ্গে এক নারী আসামির যাবজ্জীবন কারাদণ্ড দেওয়া হয়।

আদালত সূত্রে জানা যায়,  এ মামলায় সোহেল, জিকু, লিটন ও টিভিএস বাবু কারাগারে আছেন। বাকিরা পলাতক।

আরো পড়ুন-প্রশ্নফাঁস তদন্তে দুটি কমিটি গঠন করেছে হাইকোর্ট

আদালতে এদিন রাষ্ট্রপক্ষে ছিলেন ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল বশির আহমেদ ও সহকারি অ্যাটর্নি জেনারেল নির্মল কুমার দাস। অন্যদিকে আসামিদের পক্ষে ছিলেন অ্যাডভোকেট শ. ম রেজাউল করিম ও অ্যাডভোকেট সরোয়ার হোসেন।

ঘটনার বিবরণে জানা যায়, ২০০৬ সালের ১৫ আগস্ট বঙ্গবন্ধুর মৃত্যুবার্ষিকী উপলক্ষে মিরপুরের ৪৯/৩ শাহ আলীবাগের বাসার সামনে মিলাদ মাহফিলের তবারক বিতরণ শেষে বসে থাকা অবস্থায় মনির উদ্দিন মনুকে অস্ত্রধারী আসামিরা পরপর আট রাউন্ড গুলি করে। এতে ঘটনাস্থলেই তার মৃত্যু হয়। ওই দিনই নিহতের ভাই মো. আকবর আলী রাজধানীর মিরপুর থানায় এ মামলাটি করেন।

মামলায় উল্লেখ করা হয়, শাহাদাত ও মিন্টু তার ছোট ভাই ব্যবসায়ী মনুর কাছে এক কোটি টাকা চাঁদা দাবি করে। তা না পেয়ে এ হত্যাকাণ্ড ঘটিয়েছে।



মন্তব্য