kalerkantho


শিমুল বিশ্বাস ও রাজীবসহ ৩৯ জনের রিমান্ড

আদালত প্রতিবেদক    

৯ ফেব্রুয়ারি, ২০১৮ ২২:০৫



শিমুল বিশ্বাস ও রাজীবসহ ৩৯ জনের রিমান্ড

দুর্নীতি মামলায় সাজাপ্রাপ্ত বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়াকে কারাগারে পাঠানোর ঘটনাকে কেন্দ্র করে সহিংসতায় রাজধানীর পৃথক দুই থানায় সদ্য দায়ের হওয়া মামলায় বিএনপি চেয়ারপারসনের বিশেষ সহকারী শামসুর রহমান ওরফে শিমুল বিশ্বাস ও কেন্দ্রীয় ছাত্রদল সভাপতি রাজীব আহসানসহ ৩৯ জনকে বিভিন্ন মেয়াদে রিমান্ড মঞ্জুর করা হয়েছে।

এ ছাড়া আট নারী কর্মীকে পাঠানো হয়েছে কারাগারে।

শাহাবাগ থানার বিশেষ ক্ষমতা আইনের মামলায় শিমুল বিশ্বাসসহ ২৫ জন এবং অন্যদিকে রাজধানীর পল্টন থানায় দায়ের হওয়া বিস্ফোরক দ্রব্য আইনের একটি মামলায় গ্রেপ্তার ছাত্রদল সভাপতি রাজীব আহসানসহ ১৪ জনকে রিমান্ড দেওয়া হয়েছে।

আজ শুক্রবার পৃথক দুই মহানগর হাকিমের এজলাসে শুনানি হয়। হাকিম সত্যব্রত শিকদার শাহাবাগ থানার মামলায় শিমুল বিশ্বাসসহ ২৫ জনের রিমান্ড মঞ্জুর করেন। এর মধ্যে শিমুল বিশ্বাসকে পাঁচ দিন ও অন্যদের দুই দিন করে রিমান্ডে নিয়ে জিজ্ঞাসাবাদের অনুমতি দেন। একই মামলায় গ্রেপ্তার বিএনপির আট নারী কর্মীকে কারাগারে পাঠিয়ে দেন বিচারক।

আরেক হাকিম মাজহারুল ইসলাম পল্টন থানার মামলায় ছাত্রদল সভাপতি রাজীবের পাঁচ দিন ও অপর ১৩ জনের একদিন রিমান্ড মঞ্জুর করেন। এর আগে আসামিদের মামলায় গ্রেপ্তার দেখিয়ে আদালতে হাজির করা হয়। পৃথক মামলায় তদন্ত কর্মকর্তারা আসামিদের রিমান্ডে নিয়ে জিজ্ঞসাবাদের জন্য অনুমতি চেয়ে আদালতে আবেদন দাখিল করেন। 

শাহবাগ থানার বিশেষ ক্ষমতা আইনের মামলায় তদন্ত কর্মকর্তা এসআই মাহবুব আলম শিমুল বিশ্বাসকে ১০ দিন ও আট নারীসহ অপর ৩২ আসামিকে সাত দিন করে রিমান্ড চান। বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া আদালতে হাজিরা দিতে যাওয়ার সময় পুলিশের সঙ্গে সংঘর্ষের ঘটনায় চানখারপুল এলাকা থেকে তাদেরকে  আটক করা হয়েছে বলে রিমান্ড আবেদনে উল্লেখ করা হয়েছে।

এ ছাড়া পল্টন থানার বিস্ফোরক দ্রব্য আইনের মামলার তদন্ত কর্মকর্তা এসআই আবদুল হান্নান ছাত্রদল সভাপতি রাজীবসহ গ্রেপ্তার ১৪ জনের ১০ দিন করে রিমান্ড চান। বৃহস্পতিবার বিকেলে নয়াপল্টনে বিএনপির কেন্দ্রীয় কার্যালয়ের পশ্চিম পাশে বিক্ষোভ মিছিল থেকে তাদেরকে  আটক করা হয়েছে বলে বলা হয়।

প্রসঙ্গত, আদালতে শুনানিতে পুলিশের সংশ্লিষ্ট থানার প্রসিকিউশন কর্মকর্তারা রিমান্ড মঞ্জুরের পক্ষে শুনানি করেন। আসামিদের পক্ষে বিএনপির কেন্দ্রীয় আইনবিষয়ক সম্পাদক অ্যাডভোকেট সানাউল্লাহ মিয়া, খোরশেদ মিয়া আলম, ইকবাল হোসেন, নুরুজ্জামান তপন ও জিয়াউদ্দিন জিয়া প্রমুখ রিমান্ড বাতিল করে জামিন চান। 


মন্তব্য