kalerkantho


নিজাম হাজারীর সংসদ সদস্য পদে থাকা নিয়ে রিট

শুনানি গ্রহণে আবারও বিব্রত হাইকোর্ট

নিজস্ব প্রতিবেদক   

২৯ নভেম্বর, ২০১৭ ০২:২৬



শুনানি গ্রহণে আবারও বিব্রত হাইকোর্ট

ফেনী-২ আসন থেকে নির্বাচিত সরকারদলীয় নিজাম হাজারীর সংসদ সদস্য পদে থাকার বৈধতা চ্যালেঞ্জ করে রিট আবেদনের ওপর শুনানি গ্রহণে আবারও বিব্রত হয়েছেন হাইকোর্টের একক বেঞ্চের বিচারপতি শেখ হাসান আরিফ। সোমবার বিব্রত হওয়ার পর মামলার নথি ভারপ্রাপ্ত প্রধান বিচারপতির দপ্তরে পাঠানো হয়।

নিয়ম অনুযায়ী কোনো মামলায় আদালত বিব্রত হলে মামলাটি নিষ্পত্তির জন্য প্রধান বিচারপতির দপ্তরে পাঠানো হয়। এরপর প্রধান বিচারপতি অন্য কোনো বেঞ্চ গঠন করে থাকেন।

এর আগে গত ১২ নভেম্বর বিচারপতি মো. মজিবুর রহমান মিয়ার একক হাইকোর্ট বেঞ্চ শুনানীর সময় বিব্রত হন। এরও আগে বেশ কয়েকটি কোর্ট বিব্রত হয়েছেন। এ ছাড়া একবার হাইকোর্টের একটি বেঞ্চের প্রতি অনাস্থা জানিয়েছিলেন রিট আবেদনকারী ফেনীর যুবলীগ নেতা শাখাওয়াত হোসেন ভুঁইয়া। তিনি দাবি করেন, এ পর্যন্ত আটবার বিব্রত হয়েছেন আদালত।

নিজাম হাজারীর কারাভোগ নিয়ে একটি জাতীয় দৈনিকে ২০১৪ সালে 'সাজা কম খেটেই বেরিয়ে যান সাংসদ' শিরোনামে একটি প্রতিবেদন প্রকাশিত হয়। এ প্রতিবেদন যুক্ত করে রিট আবেদন দাখিল করা হয়। অস্ত্র মামলায় সাজা কম খাটার অভিযোগ এনে নিজাম হাজারীর সংসদ সদস্য পদে থাকার বৈধতা চ্যালেঞ্জ করে রিট আবেদন করেন স্থানীয় যুবলীগ নেতা শাখাওয়াত হোসেন ভূঁইয়া।

এ রিট আবেদনে ২০১৪ সালের ৮ জুন হাইকোর্ট এক আদেশে ফেনী-২ আসন কেন শূন্য ঘোষণা করা হবে না, তা জানতে চেয়ে রুল জারি করেন।

এ রুলের ওপর শুনানি শেষে বিচারপতি মো. এমদাদুল হক ও বিচারপতি এফ আর এম নাজমুল আহসানের হাইকোর্ট বেঞ্চ গত বছর ৬ ডিসেম্বর দ্বিধাবিভক্ত রায় দেন। রায়ে বেঞ্চের জ্যেষ্ঠ বিচারপতি নিজাম হাজারীর সংসদ সদস্য পদে থাকা অবৈধ ঘোষণা করেন। আর কনিষ্ঠ বিচারপতি সংসদ সদস্য পদে থাকা বৈধ ঘোষণা করেন। দ্বিধাবিভক্ত রায় দেওয়ায় বিষয়টি নিষ্পত্তির জন্য হাইকোর্টের একক বেঞ্চ গঠন করছেন প্রধান বিচারপতি।


মন্তব্য