kalerkantho


মুসা বিন শমসেরের মামলার প্রতিবেদন দাখিল ১১ সেপ্টেম্বর

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

১১ সেপ্টেম্বর, ২০১৭ ১৩:৫২



মুসা বিন শমসেরের মামলার প্রতিবেদন দাখিল ১১ সেপ্টেম্বর

মুদ্রা পাচারের অভিযোগে মুসা বিন শমসেরের বিরুদ্ধে শুল্ক গোয়েন্দা ও তদন্ত অধিদপ্তরের দায়ের করা মামলায় তদন্ত প্রতিবেদন দাখিল পিছিয়েছে। গুলশান থানার এই মামলায় সোমবার নির্ধারিত দিনে তদন্ত কর্মকর্তা প্রতিবেদন জমা দেওয়ায় ঢাকা মহানগর হাকিম নূর নাহার ইয়াসমীন আগামী ১৮ অক্টোবর নতুন দিন রাখেন।

পুলিশের প্রসিকিউশন বিভাগের সহকারী কমিশনার মিরাশ উদ্দিন জানান, ঢাকা মহানগর হাকিম নুর নবী গত ১ অগাস্ট এই মামলার এজাহার গ্রহণ করে ১১ সেপ্টেম্বর প্রতিবেদন দাখিলের দিন ঠিক করেন।

শুল্ক ফাঁকি দিয়ে একটি গাড়ি ব্যবহারের ঘটনায় জিজ্ঞাসাবাদের দুই মাস পর সোমবার সকালে মুসা বিন শমসেরের বিরুদ্ধে রাজধানীর গুলশান থানায় মুদ্রা পাচার প্রতিরোধ আইনে ওই মামলা দায়ের করেন শুল্ক গোয়েন্দা বিভাগের সহকারী রাজস্ব কর্মকর্তা (এআরও) মো. জাকির হোসেন। শুল্ক গোয়েন্দা বিভাগই এ মামলার তদন্ত করবে বলে সোমবার জানিয়েছিলেন এ বিভাগের মহাপরিচালক মঈনুল খান। কারনেট ডি প্যাসেজ সুবিধায় জনৈক ফারুক উজ-জামান চৌধুরীর নামে নিবন্ধিত ওই রেঞ্জ রোভার গাড়ি গত ২১ মার্চ মুসার ছেলের শ্বশুর বাড়ি থেকে উদ্ধার করেন শুল্ক গোয়েন্দারা। তারপর মুসাকে কাকরাইলে শুল্ক গোয়েন্দা ও তদন্ত অধিদপ্তরের কার্যালয়ে তলব করে জিজ্ঞাসাবাদ করা হয়।

ভোলা বিআরটিএর কয়েকজন কর্মকর্তার যোগসাজসে ভুয়া কাগজ দিয়ে ওই গাড়ি রেজিস্ট্রেশন এবং বেনামে অবৈধ আর্থিক লেনদেনের মাধ্যমে মানি লন্ডারিংয়ের অভিযোগের প্রাথমিক সত্যতা পাওয়ার কথা ওই সময়ই জানিয়েছিল শুল্ক গোয়েন্দা অধিদপ্তর। ওই তদন্ত ও জিজ্ঞাসাবাদের ভিত্তিতে মুসার বিরুদ্ধে মামলা করতে দুর্নীতি দমন কমিশনকে সুপারিশও করে শুল্ক গোয়েন্দা ও তদন্ত অধিদপ্তর। পাশাপাশি ফাঁকি দেওয়া অর্থ পাচারের অভিযোগে মামলার অনুমতি চাওয়া হয় রাজস্ব বিভাগের কাছে। সেই অনুমতি পাওয়ার পর সোমবার মুদ্রা পাচারের মামলাটি হয়।

 


মন্তব্য