kalerkantho


সাবেক ও বর্তমান মন্ত্রীর স্ত্রীসহ তিনজনকে আত্মসমর্পণের নির্দেশ

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

১৪ মার্চ, ২০১৭ ১৩:১১



সাবেক ও বর্তমান মন্ত্রীর স্ত্রীসহ তিনজনকে আত্মসমর্পণের নির্দেশ

সম্পদের তথ্য গোপন করার অভিযোগে দায়ের করা মামলায় সাবেক ও বর্তমান মন্ত্রীর স্ত্রীসহ তিনজনকে নিম্ন আদালতে আত্মসমর্পণ করার নির্দেশ দিয়েছেন সুপ্রিম কোর্টের আপিল বিভাগ। এরা হলেন সাবেক পররাষ্ট্রমন্ত্রী এম মোরশেদ খানের স্ত্রী নাসরিন খান, তার পুত্র ফয়সাল মোরশেদ খানের বধূ শ্যামা সেহজিন খান, বর্তমান পরিবেশ ও বনমন্ত্রী আনোয়ার হোসেন মঞ্জুর স্ত্রী তাসমিমা হোসেন।

সম্পদের তথ্য গোপন করার অভিযোগে দুর্নীতি দমন কমিশনের (দুদক) করা মামলার আবেদনের শুনানি শেষে মঙ্গলবার প্রধান বিচারপতি সুরেন্দ্র কুমার সিনহার নেতৃত্বে চার সদস্যের আপিল বিভাগের বেঞ্চ এই আদেশ দেন। বেঞ্চের অপর সদস্যরা হলেন বিচারপতি সৈয়দ মাহমুদ হোসেন, বিচারপতি হাসান ফয়েজ সিদ্দিকী ও বিচারপতি মির্জা হোসেইন হায়দার। আদালতের শুনানিতে আজ দুদকের পক্ষে ছিলেন অ্যাডভোকেট খুরশীদ আলম খান। আসামিদের পক্ষে ছিলেন আইনজীবী এহসানুল করিম ও আমিনুল হক হেলাল।

তাদেরকে নিম্ন আদালতে আত্মসমর্পণ করার নির্দেশ দিয়েছেন আদালত। একই সঙ্গে তাদের তিনজনের পক্ষে করা খালাসের আবেদন বিবেচনা করার জন্য বলেছেন আপিল বিভাগ। একই সাথে বর্তমান আওয়ামী লীগ নেতা ও সংসদ সদস্য কামাল আহমেদ মজুমদারের স্ত্রী শাহিদা কামাল, বিএনপি নেতা রুহুল কুদ্দুস দুলুর স্ত্রী সাবিনা ইয়াসমিন, নাসির উদ্দিন আহম্মেদ পিন্টুর স্ত্রী নাসিমা আকতার কল্পনা, এম এ কাইয়ুমের স্ত্রী শামীম আরা বেগম ও যমুনা গ্রুপের চেয়ারম্যান নুরুল ইসলাম বাবুলের ছেলে শামীম ইসলামের বিরুদ্ধে করা মামলার বিচার নিম্ন আদালতে চলবে বলে আদেশ দিয়েছেন আপিল বিভাগ। সেই সঙ্গে আগামী ৬ মাসের মধ্যে এ মামলার বিচার নিষ্পত্তি করার নির্দেশ দিয়েছেন আদালত।

আইনজীবী এহসানুল করিম জানান, বিগত সেনাসমর্থিত তত্ত্বাবধায়ক সরকারের আমলে জ্ঞাত আয়বহির্ভূত সম্পদ অর্জনের তথ্য গোপন করার অভিযোগে মামলা করে দুর্নীতি দমন কমিশন দুদক।

এসব মামলার মূল আসামি তিনজন হাইকোর্ট থেকে খালাস পেয়েছেন। তাদের স্ত্রীরাও মামলার আসামি ছিলেন। তাই স্ত্রীদেরও খালাসের বিষয়টি বিবেচনা করতে আদালতকে নির্দেশ দিয়েছেন আপিল বিভাগ। এ ছাড়া বাকি আসামিদের মামলার কার্যক্রম চলবে বলেও নিম্ন আদালতকে নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।

 


মন্তব্য