kalerkantho


ঠাকুরগাঁওয়ে গৃহবধূকে সংঘবদ্ধ ধর্ষণ, চারজনের যাবজ্জীবন

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

৬ মার্চ, ২০১৭ ১৮:৩৩



ঠাকুরগাঁওয়ে গৃহবধূকে সংঘবদ্ধ ধর্ষণ, চারজনের যাবজ্জীবন

ঠাকুরগাঁওয়ে এক গৃহবধূকে সংঘবদ্ধ ধর্ষণের অভিযোগে চারজনকে যাবজ্জীবন কারাদণ্ড দিয়েছেন আদালত। আজ সোমবার ঠাকুরগাঁও নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনালের সিনিয়র জেলা ও দায়রা জজ মির্জা মো. আইয়ুব আলী এ রায় দেন।

এছাড়া প্রত্যেক আসামিকে এক লাখ টাকা জরিমানা ও অনাদায়ে তিন মাসের সশ্রম কারাদণ্ড দেওয়া হয়েছে।

যাবজ্জীবন কারাদণ্ডপ্রাপ্তরা হলেন- সদর উপজেলার রুহিয়া থানার মাধবপুর গ্রামের আলমগীর (২০), ইসমাইল হোসেন (৩০), আরিফ হোসেন (২২) ও একই থানার বোয়ালিয়া গ্রামের ইউসুফ আলী (২০)।

মামলার বিবরণে জানা যায়, ২০১৫ সালের ১৭ জুন রাত দেড়টার দিকে আসামিরা সিঁদ কেটে ওই গৃহবধূর ঘরে ঢোকে। তারা গৃহবধূর চার বছরের ছেলের গলায় ছুরি ধরে তাকে খাটের সঙ্গে বেঁধে সংঘবদ্ধ ধর্ষণ করে। ধর্ষকরা পালিয়ে গেলে প্রতিবেশী এক নারী ওই গৃহবধূর গোঙানির শব্দ শুনে তাকে উদ্ধার করে।

এজাহারে উল্লেখ করা হয়, স্বামী ঢাকায় গার্মেন্টসে শ্রমিকের কাজে বাইরে থাকায় গত ১৯ জুন ধর্ষিতা নিজে বাদী হয়ে রুহিয়া থানায় নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে চারজনকে আসামি করে মামলা দায়ের করেন। এর পরিপ্রেক্ষিতে পুলিশ আসামিদের গ্রেপ্তার করে আদালতে সোপর্দ করে। বিচার চলাকালে আসামিরা ১৬৪ ধারায় স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দেন। জব্দকৃত আলামত ও সাক্ষীদের সাক্ষ্য অনুযায়ী সন্দেহাতীতভাবে ধর্ষণের অভিযোগ প্রমাণিত হওয়ায় বিচারক এই রায় দেন ।

মামলায় সরকারিপক্ষে আইনজীবী ছিলেন পিপি আবু তৈয়ব মোহাম্মদ নাজমুল হুদা বাবলু। আর আসামিপক্ষের আইনজীবি ছিলেন অ্যাডভোকেট জাকির হোসেন।


মন্তব্য