kalerkantho


১৫৪ ট্যানারি কারখানাকে ৩১ কোটি টাকা জরিমানা

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

২ মার্চ, ২০১৭ ১৩:৩৯



১৫৪ ট্যানারি কারখানাকে ৩১ কোটি টাকা জরিমানা

হাজারীবাগ থেকে ট্যানারি না সরানোয় ১৫৪ কারখানাকে জরিমানার ৩০ কোটি ৮৫ লাখ টাকা দুই সপ্তাহের মধ্যে সরকারি কোষাগারে জমা দেওয়ার নির্দেশ দিয়েছেন হাইকোর্ট। এক সম্পূরক আবেদনের শুনানি শেষে বিচারপতি মো. আশফাকুল ইসলাম ও বিচারপতি আশিষ রঞ্জন দাসের বেঞ্চ এই আদেশ দেন। এর আগে শিল্পসচিব আদালতে এসে ব্যাংক স্টেটমেন্ট দিয়ে জানান, আগস্ট থেকে এই কারখানাগুলোর জরিমানার টাকা বকেয়া রয়েছে। এর পরিপ্রেক্ষিতে আইনজীবী মনজিল মোরসেদ একটি সম্পূরক আবেদন করে কারখানার গ্যাস ও বিদ্যুৎ সংযোগ বিচ্ছিন্ন করার আবেদন জানালে আদালত তাদের বকেয়া টাকা জমা দেওয়ার নির্দেশ দেন।

গত ১৮ জুলাই প্রতিটি কারখানাকে দৈনিক ৫০ হাজার টাকা জরিমানা থেকে কমিয়ে ১০ হাজার টাকা নির্ধারণ করে দেন আপিল বিভাগ। এর আগে গত ১৬ জুন হাইকোর্টের একটি বেঞ্চ ১৫৪ ট্যানারি কারখানাকে প্রতিদিন ৫০ হাজার টাকা করে জরিমানা করেন। জরিমানার টাকা সরকারি কোষাগারে জমা দিতে বলেন আদালত। শিল্পসচিবকে এ বিষয়ে তদারকি করতে নির্দেশ দেন আদালত।

উল্লেখ্য, এক রিট আবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে ২০০১ সালে ট্যানারিশিল্প হাজারীবাগ থেকে সরিয়ে নিতে নির্দেশ দিয়েছিলেন হাইকোর্ট। ওই আদেশ বাস্তবায়ন না হওয়ায় ২০১০ সালের ২৪ ফেব্রুয়ারির মধ্যে হাজারীবাগের ট্যানারিশিল্প অন্যত্র সরিয়ে নিতে ২০০৯ সালের ২৩ জুন হাইকোর্ট ফের নির্দেশ দেন। সরকারপক্ষের আবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে পরে ওই সময়সীমা কয়েক দফা বাড়িয়ে ২০১১ সালের ৩০ এপ্রিল পর্যন্ত করা হয়।

কিন্তু এ সময়ের মধ্যেও স্থানান্তর না হওয়ায় পরিবেশবাদী সংগঠন হিউম্যান রাইটস অ্যান্ড পিস ফর বাংলাদেশের পক্ষে আদালত অবমাননার মামলা করেন মনজিল মোরসেদ।

 


মন্তব্য