kalerkantho


মৃত ব্যক্তির বিচার, ময়মনসিংহের এসপির নিঃশর্ত ক্ষমা প্রার্থনা

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

১৬ ফেব্রুয়ারি, ২০১৭ ১১:৪০



মৃত ব্যক্তির বিচার, ময়মনসিংহের এসপির নিঃশর্ত ক্ষমা প্রার্থনা

মারা যাওয়ার পরও পলাতক দেখিয়ে ময়মনসিংহের ফুলবাড়িয়ার রাজাকার ওয়াজ উদ্দিনের বিরুদ্ধে মানবতাবিরোধী অপরাধের মামলা চলায় নিঃশর্ত ক্ষমা প্রার্থনা করেছেন ময়মনসিংহের পুলিশ সুপার (এসপি) সৈয়দ নূরুল ইসলাম। আন্তর্জাতিক অপরাধ ট্রাইব্যুনালের তলবে হাজির হয়ে বৃহস্পতিবার সকালে আইনজীবী এ এম আমিনউদ্দিনের মাধ্যমে ক্ষমা প্রার্থনা করেছেন তিনি।

বেলা ১২টার পরে আদেশ দেবেন বলে জানিয়েছেন বিচারপতি মো. শাহিনুর ইসলামের নেতৃত্বে দুই সদস্যের ট্রাইব্যুনাল। গত ৩১ জানুয়ারি ময়মনসিংহের এসপিকে ১৬ ফেব্রুয়ারি হাজির হয়ে এ বিষয়ে ব্যাখ্যা দিতে আদেশ দেন ট্রাইব্যুনাল। একই সঙ্গে পুলিশের মহাপরিদর্শককেও (আইজিপি) ব্যাখ্যা দিতে বলেন।

ওয়াজ উদ্দিনের সঙ্গে একই মামলায় ফুলবাড়িয়ার আলবদর সদস্য রিয়াজ উদ্দিন ফকিরের বিরুদ্ধে প্রসিকিউশনের সূচনা বক্তব্য (ওপেনিং স্টেটমেন্ট) উপস্থাপন ও সাক্ষ্যগ্রহণ শুরুর দিন ধার্য ছিল ওই দিন। প্রসিকিউশনের আবেদনে ওয়াজ উদ্দিনকে অভিযোগ থেকে অব্যাহতি দিয়ে সেটিও পিছিয়ে ১৬ ফেব্রুয়ারি পুনর্নির্ধারণ করেন ট্রাইব্যুনাল। রাষ্ট্রপক্ষে ট্রাইব্যুনালে শুনানি করছেন প্রসিকিউটর ঋষিকেশ সাহা। গত বছরের ১১ ডিসেম্বর রিয়াজ উদ্দিন ফকির ও ওয়াজ উদ্দিনের বিরুদ্ধে অভিযোগ (চার্জ) গঠনের মাধ্যমে বিচার শুরু করেন ট্রাইব্যুনাল।

পরে একটি বেসরকারি টেলিভিশন চ্যানেল গত ১১ জানুয়ারি একটি প্রতিবেদন সম্প্রচার করে। যাতে বলা হয়, মৃত ব্যক্তিকে পলাতক ঘোষণা করে আন্তর্জাতিক অপরাধ ট্রাইব্যুনালে বিচার চলছে যুদ্ধাপরাধী ওয়াজ উদ্দিনের।

এমনকি তার পক্ষে রাষ্ট্রীয় খরচে নিয়োগ দেওয়া হয়েছে আইনজীবীও। পরদিন গত ১২ জানুয়ারি কিভাবে মামলাটি চলছে, সে বিষয়ে ক্ষোভ প্রকাশ করেন ট্রাইব্যুনাল। ওই দিন মৌখিকভাবে প্রসিকিউটরদের কাছে এ বিষয়ে জানতে চান বিচারপতি মো. শাহিনুর ইসলামের নেতৃত্বে দুই সদস্যের ট্রাইব্যুনাল। ওই সময় আদালতে চিফ প্রসিকিউটর গোলাম আরিফ টিপু, প্রসিকিউটর সৈয়দ হায়দার আলী ও ঋষিকেষ সাহা উপস্থিত ছিলেন।

 


মন্তব্য