kalerkantho

শনিবার । ১০ ডিসেম্বর ২০১৬। ২৬ অগ্রহায়ণ ১৪২৩। ৯ রবিউল আউয়াল ১৪৩৮।


সাংসদ রানার জামিন নামঞ্জুর

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

১৬ অক্টোবর, ২০১৬ ১৪:৫৪



সাংসদ রানার জামিন নামঞ্জুর

মুক্তিযোদ্ধা ফারুক আহমেদ হত্যা মামলায় সাংসদ আমানুর রহমান খানের (রানা) জামিন আবেদন নামঞ্জুর করেছেন টাঙ্গাইলের প্রথম অতিরিক্ত জেলা ও দায়রা জজ আদালত। আজ রবিবার বিচারক আবুল মনসুর মিয়ার আদালতে আমানুরের পক্ষের আইনজীবীরা জামিন চেয়ে আবেদন করেন।

এ সময় অতিরিক্ত সরকারি কৌঁসুলি (পিপি) মনিরুল ইসলাম খান জামিনের বিরোধিতা করেন। দুই পক্ষের শুনানি শেষে আদালত জামিন নামঞ্জুর করেন। ২২ মাস পলাতক থাকার পর সাংসদ আমানুর গত ১৮ সেপ্টেম্বর আদালতে আত্মসমর্পণ করেন। তিনি বর্তমানে কাশিমপুর কারাগারে আছেন।

২০১৩ সালের ১৮ জানুয়ারি রাতে ফারুক আহমেদের গুলিবিদ্ধ দেহ পাওয়া যায় টাঙ্গাইল শহরের কলেজপাড়া এলাকায় তার বাসার কাছের রাস্তায়। তিন দিন পর তার স্ত্রী নাহার আহমেদ টাঙ্গাইল সদর থানায় মামলা করেন। মামলায় তিনি কোনো আসামির নাম উল্লেখ করেননি। প্রথমে থানার পুলিশ ও পরে জেলা গোয়েন্দা পুলিশ (ডিবি) তদন্ত শুরু করে। ২০১৪ সালের ৩ ফেব্রুয়ারি টাঙ্গাইলে আওয়ামী লীগের নেতা ফারুক আহমেদ হত্যা মামলায় দলের সাংসদ আমানুর রহমান খান (রানা) ও তাঁর তিন ভাইসহ মোট ১৪ জনকে আসামি করে অভিযোগপত্র দিয়েছে পুলিশ।

আমানুর টাঙ্গাইল ৩ আসনে (ঘাটাইল) আওয়ামী লীগের সাংসদ। তার তিন ভাই হলেন টাঙ্গাইল পৌরসভার সাবেক মেয়র সহিদুর রহমান খান (মুক্তি), ব্যবসায়ী নেতা জাহিদুর রহমান খান (কাকন) ও ছাত্রলীগের সাবেক কেন্দ্রীয় সহসভাপতি সানিয়াত খান (বাপ্পা)। ২০০৯ সালে আওয়ামী লীগ ক্ষমতায় আসার পর এই খান পরিবার টাঙ্গাইল শহরে প্রভাবশালী হয়ে ওঠে। তাদের দাপটের মুখে এলাকায় ও দলে কেউই মুখ খুলতে সাহস পেতেন না। ফলে চার ভাইয়ের বিরুদ্ধে বিভিন্ন সময় অর্ধশত মামলা হলেও বাদী ও সাক্ষী আদালতে উপস্থিত হননি। এ কারণে অনেক মামলা নিষ্পত্তি হয়ে গেছে। আবার কিছু মামলা রাজনৈতিক বিবেচনায় সরকার প্রত্যাহারের সুপারিশ করেছে।

 


মন্তব্য