ফাঁসির পরিবর্তে জেএমবির আমৃত্যু-333993 | আইন-আদালত | কালের কণ্ঠ | kalerkantho

kalerkantho

শনিবার । ১ অক্টোবর ২০১৬। ১৬ আশ্বিন ১৪২৩ । ২৮ জিলহজ ১৪৩৭


বোমা নিক্ষেপে বিচারক আহত

ফাঁসির পরিবর্তে জেএমবির আমৃত্যু কারাদণ্ড

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

৯ মার্চ, ২০১৬ ১৫:২৪



ফাঁসির পরিবর্তে জেএমবির আমৃত্যু কারাদণ্ড

বোমা নিক্ষেপ করে এক বিচারককে আহত করার ঘটনায় দায়ের করা মামলায় জেএমবি সদস্য আক্তারুজ্জামানকে মৃত্যুদণ্ডের পরিবর্তে আমৃত্যু কারাদণ্ড দিয়েছে সুপ্রিম কোর্টের আপিল বিভাগ। আজ বুধবার বিচারপতি সৈয়দ মাহমুদ হোসেনের নেতৃত্বাধীন আপিল বিভাগের চার বিচারপতির বেঞ্চ এই আদেশ দেয়। আসামিপক্ষের আইনজীবী অ্যাডভোকেট দেলওয়ার হোসেন জানিয়েছেন, আসামির বয়স বিবেচনা করে আদালত তাকে মৃত্যুদণ্ডের পরিবর্তে আমৃত্যু কারাদণ্ড দিয়েছে।
 
২০০৫ সালের ১৮ অক্টোবর সিলেটের বিশেষ ট্রাইব্যুনালের বিচারক বিপ্লব গোস্বামী বিচার কাজ শেষ করে বাসায় ফিরছিলেন। বিকাল পাঁচটার দিকে শুমারস্থ পাড়ার বাসার সামনে গাড়ি থেকে নামার সাথে সাথে আগে থেকেই ওৎ পেতে থাকা জেএমবি সদস্য আক্তারুজ্জামান বিচারককে লক্ষ্য করে বোমা নিক্ষেপ করে। একে বিকট শব্দে বোমা বিস্ফোরিত হয়। একে বিচারক বিপ্লব গোস্বামী গুরুতর আহত হন। পরে স্থানীয় লোকজন কুমারস্থ মোড়ের মানিক পীর টিলার কাছে আক্তারুজ্জামানকে গণপিটুনি দিয়ে পুলিশের কাছে সোপর্দ করে।

পরে র‌্যাব এসে আলামত হিসেবে বোমার অংশ বিশেষ উদ্ধার করে। এই ঘটনায় ঐ বিচারকের গাড়ির চালক মোহম্মদ আবদুস সালাম সিলেটের কোতয়ালী থানায় বিস্ফোরক আইনের ৩ ও ৪ (বি) ধারায় মামলা করেন। ২০০৬ সালের ২৮ ফেব্রুয়ারি সিলেটের দ্রুত বিচার ট্রাইব্যুনাল আক্তারুজ্জামানকে মৃত্যুদণ্ডের আদেশ দেয়। পরবর্তীতে এই রায়ের বিরুদ্ধে একই বছর আপিল করেন আক্তারুজ্জামান। পরবর্তীতে ডেথ রেফারেন্স ও আপিল আবেদন শুনানির জন্য হাইকোর্টে আসে।

২০১৩ সালেল ১৩ এপ্রিল বিচারপতি এ এক এম আসাদুজ্জামান ও বিচারপতি শাহিদুল করিমের ডিভিশন বেঞ্চ নিম্ন আদালতের দেয়া মৃত্যুদণ্ড বহাল রাখে। পরবর্তীতে হাইকোর্টের রায়ের বিরুদ্ধে আপিল করে আসামি আক্তারুজ্জামান। আজ আপিলেল পক্ষে শুনানি করেন অ্যাডভোকেট দেলোয়ার হোসেন ও রাষ্ট্রপক্ষে ছিলেন ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল খন্দকার মোহম্মদ দিলিরুজ্জামান।

 

মন্তব্য