kalerkantho

নৌকা-ধানের শীষ

পাহাড় থেকে পাহাড়ে

আবু দাউদ, খাগড়াছড়ি   

২৬ ডিসেম্বর, ২০১৮ ০০:০০ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



পাহাড় থেকে পাহাড়ে

খাগড়াছড়ির নির্বাচনী মাঠে প্রার্থীদের স্ত্রীরাও বেশ সক্রিয়। বিশেষতঃ নৌকা আর ধানের শীষের সমর্থনে প্রচারণায় তাঁরা চষে বেড়াচ্ছেন পাহাড় থেকে পাহাড়ে। আওয়ামী লীগের প্রার্থী কুজেন্দ্র লাল ত্রিপুরার স্ত্রী মল্লিকা ত্রিপুরা এবং বিএনপি মনোনীত শহীদুল ইসলাম ভূঁইয়ার স্ত্রী নাজমা আক্তার গণসংযোগে ব্যস্ত। তবে অন্য প্রার্থীদের স্ত্রীদের দেখা নেই প্রচারে।

নৌকার প্রার্থী কুজেন্দ্র লাল ত্রিপুরা এমপির স্ত্রী মল্লিকা ত্রিপুরা ১০ ডিসেম্বর থেকে স্বামীর পক্ষে প্রচারণায় নামেন। বিকেল থেকে রাত গভীর পর্যন্ত জেলা সদর ও দীঘিনালা উপজেলার বিভিন্ন স্থানে গণসংযোগ চালান। গত কয়েকদিন ধরে দীঘিনালা বাজার, বোয়ালখালী, কবাখালীর বিভিন্ন গ্রামে গ্রামে ছুটে গেছেন। নৌকায় ভোট প্রার্থনার পাশাপাশি স্বামীর জয়ে সবার দোয়া ও আশীর্বাদ কামনা করেন। তাঁর সাথে অসংখ্য নৌকা সমর্থক নারী ভোটাররা যোগ দেন। কয়েকটি পথসভা ও উঠান বৈঠকেও অংশ নেন তিনি। মল্লিকা ত্রিপুরার নেতৃত্বে নৌকার পক্ষে গণজোয়ার সৃষ্টি হয়েছে বলে জানান মহিলা আওয়ামী লীগের নেতারা।

গণসংযোগকালে উপজেলা মহিলা আওয়ামী লীগের সভানেত্রী সীমা দেওয়ান, কবাখালী ইউনিয়ন মহিলা আওয়ামী লীগের সভানেত্রী পারুল আক্তারসহ নারীনেত্রীরা মল্লিকা ত্রিপুরার সাথে ছিলেন। কুজেন্দ্র লাল ত্রিপুরা এমপির স্ত্রী মল্লিকা ত্রিপুরা ভোটের মাঠে আসায় সাধারণ নারী ভোটারদের মধ্যে চাঞ্চল্যের সৃষ্টি হয়েছে। মল্লিকা ত্রিপুরা আশাবাদ প্রকাশ করে জানান, উন্নয়নের ধারা অব্যাহত রাখা এবং শান্তি-সম্প্রীতি অটুট রাখতে নারী ভোটাররা নৌকায় ভোট দেবেন। এখন নৌকার গণজোয়ার চলছে।

এদিকে বিএনপি মনোনীত প্রার্থী শহীদুল ইসলাম ভূঁইয়ার স্ত্রী নাজমা আক্তারও ঘরে ঘরে যাচ্ছেন। ভোট চাইছেন ধানের শীষের জন্য আর দোয়া চাইছেন স্বামীর জন্য। নাজমা আক্তার স্বামীর পক্ষে ভোট চাইতে খাগড়াছড়ি, রামগড়সহ বিভিন্ন উপজেলায় গেছেন। গত কয়েকদিন ধরে খাগড়াছড়ি শহরের বিভিন্ন পাড়া-গ্রামে গণসংযোগ করেছেন। কোথাও কোথাও পথসভায় কথা বলেন। গণসংযোগকালে মহিলা দলের নেত্রী ও স্থানীয় বহু ভোটার সাথে ছিলেন।

নাজমা আক্তার জানালেন, মাঠে গণসংযোগে নারীদের স্বতঃস্ফূর্ততা দেখে মনে হচ্ছে ভোটের পরিবেশ থাকলে ধানের শীষের জয় কেউই ঠেকাতে পারবে না।

আওয়ামী লীগ ও বিএনপি প্রার্থীর স্ত্রীরা ভোট প্রার্থনায় ব্যস্ত থাকলেও অন্য প্রার্থীদের স্ত্রীদের দেখা মেলেনি।

লাঙলের প্রার্থী সোলায়মান আলম শেঠ জানান, পারিবারিক নানা ব্যস্ততার কারণে তাঁর স্ত্রী ভোট চাইতে আসতে পারেননি। তিনি চট্টগ্রামেই আছেন। তবে, একদিনের জন্য হলেও লাঙলের ভোট চাইতে খাগড়াছড়িতে আসবেন।

মন্তব্য