kalerkantho


জাফরের বিষমুক্ত ফলবাগান

জাহেদুল আলম, রাউজান (চট্টগ্রাম)   

১ আগস্ট, ২০১৮ ০০:০০



জাফরের বিষমুক্ত ফলবাগান

রাউজানের জাফর উদ্দিন মো. কমরু (৫০) চাকরি করেন চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ে। তিনি ওই বিদ্যাপীঠের শাহজালাল হলের শাখাপ্রধান।

তিনি একজন প্রকৃতিপ্রেমিকও। প্রকৃতিকে আরো ছড়িয়ে দিতে এবং শিক্ষার্থী-কর্মকর্তা-কর্মচারীদের ফরমালিনমুক্ত ফলের চাহিদা মেটাতে তিনি হলের চারিদিকে গড়ে তোলেছেন ফলদ বাগান। চারবছর ধরে তিনি এসব ফলদ চারা লাগিয়েছিলেন। ১৯ প্রজাতির দেড় শতাধিক রোপণ করা চারার বেশির ভাগ পরিপক্ব হয়ে ফল দিয়েছে।

রয়েছে লিচু, জলপাই, কামরাঙা, বড় জাম, গোলাপ জাম, লটকন, আপেল বড়ই, বেল, আমলকি, জাম্বুরা, আমড়া, পাইন্যাগুলা, হরীতকী, পেয়ারা, চালতা, সফেদা, ডালিম, পাতি লেবু, মিষ্টি জলপাই ইত্যাদি।

এর মধ্যে গত দুই বছর ধরে আপেল বড়ই, কামরাঙা, মিষ্টি জলপাই, পেয়ারা, লিচুতে ফল আসে। এছাড়া এ বছর ফুল আসে আরো বিভিন্ন গাছে।

সরেজমিনে দেখা যায়, শাহ্জালাল হলের সামনে-পেছনেসহ বিভিন্ন স্থানে লাগানো সারি সারি পরিপক্ব ফলদ চারাগুলো হলের চারিদিকের সবুজ প্রকৃতিকে আরো মায়ায়, ছায়ায় সুশীতল করেছে। গাছে গাছে কামরাঙা, জলপাইসহ হরেক প্রজাতির ফল, পেয়ারার ফল-ফুল ধরে ঝুলে আছে।

জাফর বলেন, ‘বিগত ৪০ বছর শাহ্জালাল হলে গাছ ছিল না। স্টাফ আসে স্টাফ যায়, কেউতো হলের জন্য স্মৃতিময় কিছু রেখে যায় না। ভেবেছি আমি কিছু একটা করবো। সেই ইচ্ছার কারণে ২০১৪ সাল থেকে বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষের অনুমোদন নিয়ে এবং শিক্ষকদের সঙ্গে আলাপ করে এ হলের সামনে, পেছনে ও খালি জায়গায় ফলদ চারা লাগাই।

তাছাড়া ভেবেছি এ হলের মতো বিশ্ববিদ্যালয়ে ৪২টি হল আছে, সেখানকার কর্মকর্তা-কর্মচারীরাও হয়তো আমার দেখাদেখি উৎসাহী হয়ে বৃক্ষরোপণ করবে।

এ ছাড়া চিন্তা করেছি, ফলদ চারা রোপণ করলে আমার হলের কর্মকর্তা-কর্মচারী, আবাসিক ছাত্ররা ফরমালিনমুক্ত ফল খেতে পারবে।’

তিনি জানান, হলের তিনজন মালি চারাগুলো ঠিকঠাক পরিচর্যা করেন। চারপাশে আগাছা পরিষ্কার, পানি দেয়াসহ নিখুঁতভাবে পরিচর্যার কারণে লাগানোর অল্প কয়েক বছরের মধ্যেই চারাগুলোতে ফল আসে।

হলের কর্মচারী অসীম কান্তি আচার্য বলেন, ‘এই হলে প্রায় ৫০০ ছাত্র এবং ৫৪ জন স্টাফ রয়েছে। হলের আঙিনায় জাফরের এই ফলদ চারা রোপণের উদ্যোগকে সবাই প্রশংসা করেছেন।’

খবর নিয়ে জানা যায়, রাউজান উপজেলার ডাবুয়া ইউনিয়নের উত্তর হিঙ্গলা গ্রামের মরহুম আবদুল খালেকের ছেলে রাউজানের জাফর উদ্দিন মো. কমরু চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয় থেকে স্নাতক ডিগ্রি অর্জন করেছেন।

ভাগ্যের কারণে চাকরি জীবনটাও তাঁর প্রিয় সেই বিদ্যাপীঠে। তিনি এখন ওই বিশ্ববিদ্যালয়ের শাহ্জালাল হলের শাখা প্রধান। ওই বিদ্যাপীঠে চাকরি জীবনের স্মৃতি ধরে রাখা ও হলে ফরমালিনমুক্ত ফলের চাহিদা মেটানোর লক্ষ্যে নিয়ে তিনি ফলদ চারা রোপণের ওপর জোর দেন।   

 



মন্তব্য