kalerkantho

দ্বিতীয় রাজধানী প্রতিদিন

হাটহাজারীতে ভয়াবহ অগ্নিকাণ্ড, ২৪ বসতঘর পুড়ে ছাই

হাটহাজারী (চট্টগ্রাম) প্রতিনিধি   

১৬ মার্চ, ২০১৯ ০৩:২৩ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



হাটহাজারীতে ভয়াবহ অগ্নিকাণ্ড, ২৪ বসতঘর পুড়ে ছাই

ফাইল ছবি

হাটহাজারীতে ভয়াবহ অগ্নিকাণ্ডে ২৪টি বসতঘর পুড়ে ছাই হয়েছে। হাটহাজারী পৌর এলাকার আব্বাসিয়া পুলের পূর্ব পাশে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের কোয়ার্টারসংলগ্ন বারেক কলোনি ও আব্দুল হক চৌকিদার বাড়িতে গতকাল শুক্রবার বিকেল ৩টার দিকে অগ্নিকাণ্ডের ঘটনাটি ঘটে। অগ্নিকাণ্ডের সূত্রপাত শুকনো খড়ের গাদা থেকে বলে ফায়ার সার্ভিস সূত্রে জানা গেছে।

ক্ষতিগ্রস্তরা হলেন—বারেক কলোনির মোহাম্মদ কাজল উদ্দিন (৬৫), মোহাম্মদ মাহবুব (২০), মো. আব্দুর রহমান (৬০), খাইরুল মিয়া (৩৫), সুজন মিয়া (২০), আব্দুল বাহার (৫৫), সাইদুল মিয়া (২৫), শাহানা (৩০), আব্দুল খালেক (৭০), নজরুল ইসলাম (২৫), ছয়জনের (ফয়জুল ইসলাম, মাসুদ রানা, দিন ইসলাম, নিজাম উদ্দিন, আব্দুল খালেক, হুমায়ন) একটি ব্যাচেলর ঘর, দারুল কোরআন নুরানি নামে একটি মাদরাসা, আব্দুল হক চৌকিদার বাড়ির মৃত নুরুল ইসলামের ছেলে মো. বাদশা (৪৫), মোহাম্মদ বদি আলম (৩৫), নুর উদ্দিন (৩০), মেয়ে রবিজা বেগম (৫০), কোহিনুর (৩৫) এবং তাঁদের ভাড়াটিয়া আব্দুল মালেক (৫০), শাহেদ আলী (৩৫), আবুল কালাম (২৫), মোহাম্মদ মমতাজ (২০) এবং হক মিয়া (২৫)।

জানা গেছে, বারেক কলোনির বাসিন্দারা বিকেল ৩টার দিকে পশ্চিমে মালিকের শুকনো খড় রাখা ঘরে হঠাত্ আগুন দেখতে পায়। আগুন দেখে স্থানীয়রা পার্শ্ববর্তী পুকুরের পানি দিয়ে আগুন নেভাতে চেষ্টা করে। কিন্তু টিনশেড ও বেড়া দিয়ে নির্মিত কলোনিতে মুহূর্তে আগুন ছড়িয়ে পড়ে। খবর পেয়ে হাটহাজারী ফায়ার সার্ভিস ঘটনাস্থলে গিয়ে প্রায় এক ঘণ্টা চেষ্টায় আগুন নিয়ন্ত্রণে আনে। কিন্তু আগুনে ততক্ষণে ২৪টি বসতঘর পুড়ে ছাই হয়ে গেছে।

ক্ষতিগ্রস্ত বারেক কলোনির ভাড়াটিয়া দিনমজুর কাজল উদ্দিন কান্নাজড়িত কণ্ঠে বলেন, ‘আমার সব শেষ। পরনের শার্টটি ছাড়া আমার আর কিছুই রইল না।’

জানা গেছে, ক্ষতিগ্রস্ত সবাই দিনমজুর। অধিকাংশ মাটি কাটা আর বিল্ডিংয়ের ঢালাই কাজের শ্রমিক। অগ্নিকাণ্ডে ক্ষতির পরিমাণ আনুমানিক ২০ লাখ টাকা।

হাটহাজারী উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা রুহুল আমিন বলেন, ‘আমরা খুবই মর্মাহত। পৌরসভার পক্ষ থেকে সাধ্যমতো তাদের সহযোগিতার আশ্বাস দেন তিনি।

মন্তব্য