kalerkantho

দ্বিতীয় রাজধানী প্রতিদিন

সীতাকুণ্ডের সেই দুলালের বিরুদ্ধে মামলা

সীতাকুণ্ড (চট্টগ্রাম) প্রতিনিধি    

১৫ মার্চ, ২০১৯ ১৯:৩২



সীতাকুণ্ডের সেই দুলালের বিরুদ্ধে মামলা

চট্টগ্রামের সীতাকুণ্ডে চাঁদাবাজি, ইয়াবা কারবারসহ বহু অপকর্মের হোতা নুরুল কবির দুলালের বিরুদ্ধে অবশেষে মামলা দায়ের করেছেন এক ভুক্তভোগী।

আজ শুক্রবার (১৫ মার্চ) দুপুরে জনি নামের এক ব্যবসায়ীকে হত্যাচেষ্টার অভিযোগে তার বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করেন নবী উদ্দিন জনি নামের এক ব্যবসায়ী। ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে দুলালকে গ্রেপ্তার অভিযান শুরু হয়েছে বলে জানিয়েছে পুলিশ।

থানার এজাহার ও ভুক্তভোগীর অভিযোগে জানা যায়, সীতাকুণ্ড পৌরসভার ইয়াকুবনগর গ্রামের খোরশেদ আলমের ছেলে মো. নুরুল কবির দুলাল নিজেকে কখনো ক্ষমতাসীন দলের নেতা, কখনো পুলিশের সঙ্গে সখ্যতার ভয়সহ নানা প্রভাব দেখিয়ে এলাকার সব শ্রেণি পেশার মানুষকে জিম্মি করে চাঁদা আদায় করতেন। কেউ তার দাবি পূরণ করতে অস্বীকৃতি জানালে তার বিরুদ্ধে ফেসবুকে মানহানিকর অপপ্রচার শুরু করে এবং পুলিশকে বিভ্রান্ত করে তাকে মিথ্যা ডাকাতি মামলা, হত্যা মামলাসহ নানা ঝামেলায় জটিলতায় ফেলে হয়রানি করে আসছেন।

এর ধারাবাহিকতায় সম্প্রতি পৌরসভার ১ নম্বর ওয়ার্ডের উত্তর এয়াকুব নগর গ্রামের বাসিন্দা ব্যবসায়ী জয়নাল আবেদীন ও নবী উদ্দিন জনি এবং শামসুদ্দীন, আসলাম, নয়ন উদ্দিন ও রাজসহ অনেকের কাছ থেকে চাঁদাসহ নানান সুবিধা দাবি করেন। না দেওয়ায় নবী উদ্দিন জনির ওপর সন্ত্রাসী নিয়ে হামলা করে তাকে হত্যার চেষ্টা চালান। এ হামলায় জনির হাত ভেঙে যাওয়ায় দীর্ঘদিন ধরে হাসপাতালে চিকিৎসাধীন ছিলেন তিনি।

এরই মধ্যে গত ৭ মার্চ উপরোক্ত ভুক্তভোগীরা সীতাকুণ্ড প্রেস ক্লাবে নুরুল কবির দুলালের এসব অপকর্ম নিয়ে সংবাদ সম্মেলন করেন। এ বিষয়ে পত্র-পত্রিকায় সংবাদ প্রকাশ করায় দুলাল সীতাকুণ্ড প্রেস ক্লাব সভাপতি এম সেকান্দর হোসাইন ও সদস্য দিদার হোসেন টুটুলের বিরুদ্ধে মানহানিকর অপপ্রচার শুরু করেন। পাশাপাশি সংবাদ সম্মেলনকারীদের পুনরায় হুমকি দিতে থাকেন। আজ শুক্রবার (১৫ মার্চ)  ভুক্তভোগী নবী উদ্দিন জনি বাদী হয়ে থানায় মামলা দায়ের করেন। 

জনি ক্ষোভ প্রকাশ করে বলেন, দুলাল প্রতিনিয়ত চাঁদা চাইতেন। নইলে পুলিশ দিয়ে হয়রানির হুমকি দিতেন তিনি। তারপরও টাকা না দেওয়ায় আমার ওপর হামলা করে হাত ভেঙে দিয়েছেন।

সীতাকুণ্ড থানার ওসি মো. দেলওয়ার হোসেন বলেন, নুরুল কবির দুলাল কবিরের বিরুদ্ধে বহু অভিযোগ পাওয়া যাচ্ছে। ভুক্তভোগীদের মধ্যে একজন শুক্রবার মামলা দায়ের করেছেন। আমরা তাকে গ্রেপ্তারে অভিযান শুরু করেছি। যেকোন মুহূর্তে তিনি গ্রেপ্তার হবেন।

সীতাকুণ্ড প্রেস ক্লাব সভাপতি এম সেকান্দর হোসেন বলেন, দুলালের বিরুদ্ধে এলাকাবাসীর অন্তহীন অভিযোগ রয়েছে। সম্প্রতি কিছু ভুক্তভোগী প্রেস ক্লাবে সংবাদ সম্মেলন করার পর আমরা সংবাদ প্রকাশ করায় তিনি আমার বিরুদ্ধেও মানহানিকর অপপ্রচার করছেন। আমিও তার বিরুদ্ধে মামলা দায়েরের প্রক্রিয়ায় আছি।



মন্তব্য