kalerkantho

দ্বিতীয় রাজধানী প্রতিদিন

মেয়র নাছির বললেন

মূল পরিকল্পনাকারীর সর্বোচ্চ শাস্তি জাতি প্রত্যাশা করেছিল

নিজস্ব প্রতিবেদক, চট্টগ্রাম   

১১ অক্টোবর, ২০১৮ ০৩:০২



মূল পরিকল্পনাকারীর সর্বোচ্চ শাস্তি জাতি প্রত্যাশা করেছিল

মেয়র আ জ ম নাছির উদ্দীন। ফাইল ছবি

চট্টগ্রাম মহানগর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও সিটি মেয়র আ জ ম নাছির উদ্দীন বলেছেন, জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের হত্যাকারী ও যুদ্ধাপরাধীদের বিচারের রায় কার্যকর হয়ে জাতি পাপমুক্ত হয়েছে। কিন্তু ২১ আগস্ট নারকীয় গ্রেনেড হামলার পরিকল্পনাকারী ও খলনায়কদের আজ (গতকাল) যে বিচারিক রায় ঘোষিত হয়েছে, এতে যে ব্যক্তি হাওয়া ভবনে বসে শেখ হাসিনাকে হত্যার নির্দেশনা দিয়েছিল তার সর্বোচ্চ শাস্তি জাতি প্রত্যাশা করেছিল। আশা করি আমাদের হূদয়ের এই অসন্তোষ উচ্চ আদালত বিবেচনা করবেন।

গতকাল বুধবার বিকেলে নগরীর কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে চট্টগ্রাম ১৪ দলের গণসমাবেশে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন। ২১ আগস্টের গ্রেনেড হামলা মামলার রায়কে ঘিরে এই সমাবেশের আয়োজন করা হয়।

জনগণকে এই রায়ের প্রতি শ্রদ্ধাশীল থাকার আহ্বান জানিয়ে মেয়র বলেন, ‘এ রায়কে কেন্দ্র করে সারা দেশে নাশকতা সৃষ্টির পরিকল্পনা ছিল। চট্টগ্রাম মহানগর আওয়ামী লীগ রাজপথে থেকে সেই অপচেষ্টাকে রুখে দিয়েছে। আমরা আগামীকালও (আজ) নগরীর ১৭টি পয়েন্টে রাজপথে থাকব।’

সভাপতির বক্তব্যে চট্টগ্রাম মহানগর আওয়ামী লীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি ও চট্টগ্রাম ১৪ দল নেতা মাহতাব উদ্দীন চৌধুরী বলেন, ‘এই রায়ের মধ্য দিয়ে প্রমাণ হয়েছে সন্ত্রাস ও জঙ্গিবাদের কবর রচনা হচ্ছে। শেখ হাসিনার প্রাণনাশের যারা ম্যাকানিজম করেছে, তারা এখনো সক্রিয় আছে। আমরা এসব অপতত্পরতা রুখে দিতে নিজেদের মধ্যে ঐক্য প্রতিষ্ঠা করব।’

ওয়ার্কার্স পার্টির জেলা সভাপতি অ্যাডভোকেট আবু হানিফ বলেন, স্বাধীনতা, সংবিধান ও গণতন্ত্র রক্ষায় মুক্তিযুদ্ধের সপক্ষের রাজনৈতিক শক্তির ঐক্য আজ সময়ের দাবি। 

জাসদ কেন্দ্রীয় সাংগঠনিক সম্পাদক জসিম উদ্দিন বাবুল বলেন, ‘আমাদের কঠিন চ্যালেঞ্জ অতিক্রম করতে হবে।’

জাতীয় পার্টি (জেপি) মহানগর আহ্বায়ক আজাদ দোভাষ বলেন, চট্টগ্রাম ১৪ দল লড়াই সংগ্রামে রাজপথ ছাড়েনি।

সমাবেশে আরো বক্তব্য দেন নগর আওয়ামী লীগের সহসভাপতি খোরশেদ আলম সুজন ও আলতাফ হোসেন চৌধুরী বাচ্চু, শফিকুল ইসলাম ফারুক, শফিক আদনান, অ্যাডভোকেট ইফতেখার সাইমুল চৌধুরী, চন্দন ধর, গণতন্ত্রী পার্টি জেলার সাধারণ সম্পাদক তাজের মল্লুক, জাসদের চট্টগ্রাম মহানগর সভাপতি আবু বক্কর ছিদ্দিক, সাম্যবাদী দলের অমূল্য বড়ুয়া, ত্বরিকত ফেডারেশনের কাজী আহসানুল মোরশেদ আল কাদেরী, গণ আজাদী লীগের নজরুল ইসলাম আশরাফী, ন্যাপের মিঠুল দাশগুপ্ত, গণতন্ত্রী পার্টির স্বপন সেন প্রমুখ।



মন্তব্য