kalerkantho

দ্বিতীয় রাজধানী প্রতিদিন

চাকরিতে বিশেষ ব্যবস্থা রাখতে

প্রধানমন্ত্রীর দৃষ্টি আকর্ষণ চবি প্রতিবন্ধী ছাত্র সমাজের

চট্টগাম বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিনিধি   

১৮ সেপ্টেম্বর, ২০১৮ ১৯:৫৬



প্রধানমন্ত্রীর দৃষ্টি আকর্ষণ চবি প্রতিবন্ধী ছাত্র সমাজের

সরকারি প্রথম ও দ্বিতীয় শ্রেণির চাকরিতে কোটা পর্যালোচনা কমিটি কোনো কোটা না রাখার সুপারিশ করায় প্রতিবন্ধীদের জন্য এটা মর্মাহত ও বেদনাদায়ক বলে প্রধানমন্ত্রীর প্রতি দৃষ্টি আকর্ষণ করে চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের (চবি) প্রতিবন্ধী ছাত্রসমাজ (ডিসকু) এক সংবাদ সম্মেলন করেন।

আজ মঙ্গলবার দুপুরে বিশ্ববিদ্যালয়ের সাংবাদিক সমিতির কার্যালয়ে এ সম্মেলনে প্রতিবন্ধী ছাত্র সমাজ বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা সংসদে যখন সকল ধরনের কোটা বাতিলের কথা বলেন সেই সময় প্রতিবন্ধীদের জন্য একটি বিশেষ ব্যবস্থার কথা বলেছেন। কিন্তু এখনো সেই বিশেষ ব্যবস্থা কোনো সুস্পষ্ট রূপরেখা আমরা দেখছি না। সেই কারণে আমরা প্রতিবন্ধী ছাত্রসমাজ ভবিষ্যত জীবনের নিশ্চয়তা নিয়ে হতাশায় ভুগছি।

সংবাদ সম্মেলনে তারা বলেন, গত ৩৫ থেকে ৩৮তম বিসিএস পরীক্ষায় প্রতিবন্ধীদের জন্য ১% কোটা থাকলে প্রিলিমিনারি ও লিখিত পরীক্ষায় পাশ করেও প্রতিবন্ধীরা প্রথম শ্রেণির ক্যাডার পাচ্ছে না। তাদেরকে কিছু পরিমাণ ননক্যাডারে চাকরি দেওয়া হয়। এ ছাড়াও ৩য় ও ৪র্থ শ্রেণির চাকরির ক্ষেত্রে প্রতিবন্ধী ও এতিমদের জন্য ১০% কোটা রাখা হয়েছে। সেখানে প্রতিবন্ধী ও এতিমদের জন্য আলাদা করে কিছু বলা হয়নি। যার কারণে স্বাভাবিক মানুষ এতিম বলে সেই সুযোগে কোটা ব্যবহার করছে। এতে প্রতিবন্ধী সমাজ চাকরি থেকে বঞ্চিত হচ্ছে। তাই প্রধানমন্ত্রীর কাছে অনুরোধ এখানে যেন ৫% করে ভাগ করে দেওয়া হয়।

এ ছাড়া চাকরির বয়স ৩২ বছর পর্যন্ত নির্ধারণ করা হয়েছে। কিন্তু প্রতিবন্ধীরা সাধারণত ৬ বছর বয়সে স্কুলে ভর্তি হতে পারে না। তাই চাকরিতে ৩৫ বছর পর্যন্ত বয়সসীমা নির্ধারণ করা হোক এবং প্রতিবন্ধী সুরক্ষা আইন ২০১৩ যাতে বাস্তবায়ন করে।

পাঁচ দিনের আল্টিমেটাম দিয়ে প্রতিবন্ধী সমাজ আরো বলেন, প্রথম শ্রেণির চাকরি থেকে সকল ধরনের সরকারি চাকরিতে আমাদের জন্য কি ধরনের বিশেষ ব্যবস্থা রাখা হয়েছে অনতিলম্বে প্রধানমন্ত্রীর মাধ্যম হতে কোনো সুনির্দিষ্ট বক্তব্য না আসে তাহলে আগামী রবিবার থেকে মানববন্ধনসহ নানান কর্মসূচি পালন করব।

এ সম্মেলনে প্রতিবন্ধী ছাত্রসমাজের পক্ষে তাদের বন্ধু সভার সদস্য আতাউর রহমানের লিখিত বক্তব্য দেন। এ ছাড়াও সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত থেকে প্রতিবন্ধী ছাত্রসমাজের সভাপতি আলহাজ উদ্দিন, সহ সভাপতি খোরশেদ আলম, সাধারণ সম্পাদক আব্দুর রাজ্জাক, অর্থ সম্পাদক প্রশান্ত চন্দ্র দাশ ও সাবেক সভাপতি সোলাইমান বাদশা বক্তব্য রাখেন।

উল্লেখ্য, চট্টগ্রাম বিশ্বব্যিালয়ে বিভিন্ন বিভাগে ১ম বর্ষ থেকে মাস্টার্স পর্যন্ত ১২০ জনের মত প্রতিবন্ধী শিক্ষার্থী রয়েছে। তাদের মধ্যে দৃষ্টি প্রতিবন্ধীর সংখ্যাই বেশী।



মন্তব্য