kalerkantho

দ্বিতীয় রাজধানী প্রতিদিন

পটিয়ায় স্কুলছাত্রীর গলাকাটা লাশ উদ্ধার

নিজস্ব প্রতিবেদক, চট্টগ্রাম   

৯ সেপ্টেম্বর, ২০১৮ ০৪:৫০



পটিয়ায় স্কুলছাত্রীর গলাকাটা লাশ উদ্ধার

চট্টগ্রামের পটিয়া উপজেলা থেকে রিমা আক্তার (১৪) নামের অষ্টম শ্রেণির এক স্কুলছাত্রীর গলাকাটা লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ। এ সময় ঘটনাস্থল থেকে নজরুল ইসলাম মাসুদ (২২) নামের অপর এক যুবককে গুরুতর আহত অবস্থায় উদ্ধার করে হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়।

গতকাল শনিবার দুপুর ১টার দিকে উপজেলার দক্ষিণ ভূষি ইউনিয়নের বেলতলা এলাকায় এ ঘটনা ঘটে। রিমা হাইদগাঁও এলাকার মাদামপাড়ার বাসিন্দা মঞ্জুরুল আলমের মেয়ে। আহত নজরুল পটিয়া পৌরসভার গৌবিন্দারখালী গ্রামের মৃত আব্দুল কালামের ছেলে। 

পটিয়া থানার ওসি শেখ নেয়ামত উল্লাহ জানান, স্থানীয়দের কাছ থেকে খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে রিমার লাশ উদ্ধার করে। মরদেহটি যেখানে পড়েছিল সেটি রেলওয়ের আওতাধীন এলাকা হওয়ায় রেলওয়ে পুলিশকেও খবর দেওয়া হয়। এ ছাড়া আশঙ্কাজনক অবস্থায় উদ্ধার হওয়া নজরুলেরও গলাকাটা ছিল বলে জানান তিনি। 

চট্টগ্রামের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (দক্ষিণ) এ কে এম এমরান ভূঁইয়া কালের কণ্ঠকে বলেন, ‘রিমা ও মাসুদের মধ্যে প্রেমজনিত সম্পর্ক ছিল। তবে কী কারণে এই হত্যাকাণ্ডের ঘটনা ঘটল সেটা এখনো জানা সম্ভব হয়নি। প্রাথমিকভাবে ধারণা করা হচ্ছে, মাসুদ নিজেই রিমাকে গলা কেটে হত্যা করার পর নিজের গলা কেটে আত্মহত্যার চেষ্টা করেছেন।’

হাত-পা খোলা অবস্থায় গলাকাটা সম্ভব কি না? এমন প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, ‘সব বিষয় মাথায় রেখেই তদন্ত করবে পুলিশ। তবে রিমার হাতের আঙুল কাটা গেছে বলে জানা গেছে। তাই মাসুদ কিছুটা সুস্থ হলে তাঁকেও এই বিষয়ে জিজ্ঞাসাবাদ করা হবে।’ 

এমরান ভূঁইয়া বলেন, ‘নিহত রিমার গায়ে স্কুলের পোশাক ছিল। এ সময় রিমার বইভর্তি ব্যাগটিও মরদেহের পাশেই পড়ে ছিল।’ তিনি আরো বলেন, ঘটনাস্থলের পাশ থেকেই কণ্ঠনালি কাটা অবস্থায় গুরুতর আহত মাসুদকে উদ্ধার করা হয়। এ সময় তঁকে পটিয়া স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ও শারীরিক অবস্থার অবনতি হলে চট্টগ্রাম মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়।’ 

রেলওয়ে পুলিশের পরিদর্শক মোস্তাফিজ ভূঁইয়া বলেন, রিমার হাত-পা খোলা ছিল। এ অবস্থায় তাকে জবাই করা সম্ভব কী না? সেটা বড় প্রশ্ন। এদিকে মাসুদের গলাকাটা হয়েছে বেশ গভীর ক্ষত করে।

তিনি আরো জানান, মৃতদেহ উদ্ধারের স্থানটি পটিয়া থানার আওতাধীন হওয়ায় তাঁরাই পরবর্তী কার্যক্রম পরিচালনা করবেন বলে সিদ্ধান্ত হয়েছে।



মন্তব্য