kalerkantho

দ্বিতীয় রাজধানী প্রতিদিন

চট্টগ্রামে হত্যা মামলায়

আওয়ামী লীগের হাজি ইকবালসহ ২০ আসামির বিরুদ্ধে চার্জশিট

নিজস্ব প্রতিবেদক, চট্টগ্রাম   

২৩ জুলাই, ২০১৮ ০২:২৭



আওয়ামী লীগের হাজি ইকবালসহ ২০ আসামির বিরুদ্ধে চার্জশিট

চট্টগ্রাম মহানগরীর বন্দর এলাকার যুবলীগকর্মী মহিউদ্দিন হত্যা মামলায় পুলিশ চার্জশিট দাখিল করেছে। এতে স্থানীয় আওয়ামী লীগ নেতা হাজি ইকবালসহ ২০ জনকে আসামি করা হয়েছে। গতকাল রবিবার আদালতের প্রসিকিউশন শাখায় চার্জশিট জমা দেন তদন্তকারী কর্মকর্তা ও বন্দর থানার পরিদর্শক (তদন্ত) বিকাশ সরকার।

সূত্র জানায়, বন্দর থানার সল্টগোলা ক্রসিং এলাকার মেহের আফজাল উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষকের কক্ষে ঢুকে গত ২৬ মার্চ কুপিয়ে হত্যা করা হয় যুবলীগকর্মী মো. মহিউদ্দিনকে। প্রাক্তন শিক্ষার্থীদের একটি অনুষ্ঠানের আয়োজনকে কেন্দ্র করে মহিউদ্দিনসহ কয়েকজন সেখানে গিয়েছিলেন। আলোচিত এ মামলার এই অভিযোগপত্রে আসামি করা হয়েছে বন্দর থানার আওয়ামী লীগ নেতা হাজি ইকবাল, তাঁর ভাই মুরাদ, সহযোগী বিপ্লব, ডিউক, আজাদ, শেখ মহিউদ্দিন, মাহিব, আজগর, জিসানসহ মোট ২০ জনকে। আসামিদের মধ্যে ইকবালের ছেলে ও জামাতা রয়েছেন। এ মামলায় ৯ জন গ্রেপ্তারের পর কারাগারে রয়েছেন। হাজি ইকবালসহ ১১ জন পলাতক।

বন্দর থানার ওসি মঈনুল ইসলাম জানান, মামলার তদন্ত শেষ করে প্রসিকিউশন শাখায় অভিযোগপত্র জমা দেওয়া হয়েছে।

স্থানীয় সূত্র জানায়, ২০১৭ সালের ১৫ আগস্ট নগরীর জামালখান এলাকায় প্রেস ক্লাবের সামনে ‘হায় মুজিব’ ‘হায় মুজিব’ বলে নিজের পিঠে খঞ্জরের আঘাত করে আলোচনায় এসেছিলেন ইকবাল। আর মহিউদ্দিন স্থানীয়ভাবে যুবলীগের রাজনীতির সঙ্গে যুক্ত ছিলেন। তিনি কাউন্সিলরসহ অন্যদের সঙ্গে রাজনীতিতে সক্রিয় ছিলেন। এই কারণে প্রতিপক্ষ গ্রুপ তৈরি হয়। প্রতিপক্ষে ছিল হাজি ইকবাল ও তাঁর বাহিনী। মহিউদ্দিন সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে হাজি ইকবালের সমালোচনা করে স্ট্যাস্টাস দিতেন বলে এজাহারে উল্লেখ আছে। পূর্ববিরোধের জের ধরেই হাজি ইকবালের উপস্থিতিতে তাঁর সহযোগীরা মহিউদ্দিনকে কুপিয়ে হত্যা করে। পরে গাড়ি নিয়ে খুনিরা পালিয়ে যায়।



মন্তব্য