kalerkantho

দ্বিতীয় রাজধানী প্রতিদিন

কক্সবাজারে ৮৫১ টি ঝুঁকিপূর্ণ বসতি, সরিয়ে নেওয়া হচ্ছে আশ্রয় কেন্দ্রে

নিজস্ব প্রতিবেদক, কক্সবাজার   

১৪ জুন, ২০১৮ ০০:১৪



কক্সবাজারে ৮৫১ টি ঝুঁকিপূর্ণ বসতি, সরিয়ে নেওয়া হচ্ছে আশ্রয় কেন্দ্রে

কক্সবাজারে টানা বর্ষণের ফলে পাহাড়ধ্বস থেকে জীবন বাঁচাতে জেলা প্রশাসনের কর্মকর্তারা মরিয়া হয়ে পড়েছেন। খোদ জেলা প্রশাসকের নেতৃত্বে প্রশাসনের কর্মকর্তারা পাহাড় থেকে পাহাড়ে ছুটছেন লোকজনকে সরিয়ে নিতে। ইতোমধ্যে জেলা প্রশাসনের ৬টি দল গঠন করা হয়েছে।

বুধবার রাত সাড়ে ৯ টায় এ প্রতিবেদন লেখাকালীন সময়ে পর্যন্ত ৫ শতাধিক লোককে পাহাড়ি আবাসস্থল থেকে সরিয়ে আশ্রয় কেন্দ্রে নেওয়া হয়েছে।

কক্সবাজারের জেলা প্রশাসক মো. কামাল হোসেন জানিয়েছেন, বর্ষণের কারনে পাহাড়ধ্বস হতে পারে যেকোনো সময়। তাই পাহাড়ে বসবাসরত লোকজনকে সরানোর জন্য জেলা প্রশাসনের ৬ জন নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেটের নেতৃত্বে ৬টি দল গঠন করা হয়েছে। বুধবার সন্ধ্যা থেকেই ম্যাজিস্ট্রেটের নেতৃত্বে পুলিশ ও আনসার সদস্যসহ গঠিত দলগুলো পাহাড়ি এলাকা থেকে লোকজনকে সরিয়ে নেওয়ার কাজ শুরু করা হয়েছে।

কক্সবাজারের অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (রাজস্ব) কাজি মো. আবদুর রহমান জানান, কক্সবাজার পৌরসভার ৬টি ওয়ার্ডে ৮৫১ টি ঝুঁকিপূর্ণ পরিবার চিহ্নিত করা হয়েছে। পৌরসভার আওতাধীন এসব ঝুঁকিপূর্ণ পরিবারের লোকজনকে সরিয়ে নেওয়ার জন্য ইতোমধ্যে ৬ টি আশ্রয় কেন্দ্র খোলা হয়েছে।

কক্সবাজার জেলা প্রশাসনের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মো. নাজিম উদ্দিন জানিয়েছেন, পাহাড়ে বসবাসরত মানুষগুলোকে সরানো বেশ কঠিন কাজ। তারা মৃত্যুকেও যেন কোনো পরোয়া করে না। একদিকে পাহাড় থেকে নামালে তারা আরেকদিক দিয়ে আবার উঠে ঘরে ঢুকে পড়ে।

তিনি জানান, শহরের লাইট হাউজ এলাকায় স্থাপিত একটি আশ্রয় কেন্দ্রে বুধবার রাতে এ প্রতিবেদন লেখাকালীন সময় পর্যন্ত ২০০ জনের মতো লোকজনকে আশ্রয়ে নেওয়া আসা হয়েছে। 

তিনি আরো জানান, জেলা প্রশাসকের তত্বাবধানে রাতব্যাপী লোকজনকে সরানোর কাজ অব্যাহত থাকবে। কক্সবাজার আবহাওয়া অফিস রাত ৯টা পর্যন্ত পুর্ববর্তী ২৪ ঘণ্টায় ১১১ মিলিমিটার বৃষ্টিপাত রেকর্ড করেছে।


মন্তব্য