kalerkantho

দ্বিতীয় রাজধানী প্রতিদিন

চট্টগ্রামে ট্রাফিক পুলিশের হাতে নিউজ টোয়েন্টিফোরের সাংবাদিক লাঞ্ছিত

নিজস্ব প্রতিবেদক, চট্টগ্রাম   

৯ জুন, ২০১৮ ০০:১৭



চট্টগ্রামে ট্রাফিক পুলিশের হাতে নিউজ টোয়েন্টিফোরের সাংবাদিক লাঞ্ছিত

চট্টগ্রাম নগরের আগ্রাবাদ মোড়ে স্যাটেলাইট টেলিভিশন চ্যানেল নিউজ টোয়েন্টিফোরের ক্যামেরাপারসন আহাদুল ইসলাম বাবুকে লাঞ্ছিত করে ক্যামেরা ছিনিয়ে নেওয়ার চেষ্টা করেছে ট্রাফিক পুলিশের এক সার্জেন্ট ও তাঁর সহযোগীরা। গতকাল শুক্রবার বিকেল সাড়ে ৬টায় এ ঘটনা ঘটে। অভিযুক্ত সার্জেন্টের নাম মো. মশিউর রহমান। পরে ক্যামেরাপারসন বাবু ও গাড়ির চালক আজিম উদ্দিনকে বাঁচাতে গিয়ে এই সার্জেন্টের হাতে শারীরিকভাবে লাঞ্ছিত হয়েছেন নিউজ টোয়েন্টিফোরের স্টাফ রিপোর্টার নয়ন বড়ুয়া জয়।

সাংবাদিক নয়ন বড়ুয়া জয় বলেন, ‘আগ্রাবাদ মোড়ে সার্জেন্ট মো. মশিউর রহমান আকস্মিকভাবে এসে আমাদের গাড়ির চালককে নামিয়ে মারধর শুরু করেন। ক্যামেরা বের করায় আমাদের ক্যামেরাপারসন আহাদুল ইসলাম বাবুকেও বেদম মারধর ও গালাগাল করেন এবং দেখে নেওয়ার হুমকি দেন। আমি তাঁদের বাঁচাতে গেলে আমাকেও শারীরিকভাবে লাঞ্ছিত করে ট্রাফিক পুলিশের সার্জেন্ট মো. মশিউর রহমান ও সাখাওয়াত এবং তাঁদের সহযোগীরা।’

সাংবাদিক লাঞ্ছিত হওয়ার খবর শুনে ঘটনাস্থলে ছুটে আসেন চট্টগ্রাম সাংবাদিক ইউনিয়নের (সিইউজে) সাবেক সভাপতি রিয়াজ হায়দার চৌধুরী, সাধারণ সম্পাদক হাসান ফেরদৌস, বাংলাদেশ ফেডারেল সাংবাদিক ইউনিয়নের (বিএফইউজে) যুগ্ম মহাসচিব তপন চক্রবর্তী, সিইউজের সাবেক সহসভাপতি নিরূপম দাশগুপ্ত, বাংলাদেশ ফটো জার্নালিস্ট অ্যাসোসিয়েশনের সাধারণ সম্পাদক মোস্তাফিজুর রহমান, টিভি জার্নালিস্ট অ্যাসোসিয়েশনের সভাপতি শফিক আহমেদ সাজিব, সাধারণ সম্পাদক শামসুল আলম বাবু, সিইউজের নির্বাহী সদস্য উত্তম সেনগুপ্তসহ সাংবাদিক নেতা ও কর্মরত সাংবাদিকরা।

এরপর ঘটনাস্থলে আসেন ট্রাফিক পুলিশের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা। তাঁরা সাংবাদিক নেতাদের জানান, এ ঘটনায় অভিযুক্ত সার্জেন্ট মো. মশিউর রহমান ও সাখাওয়াতকে তাত্ক্ষণিকভাবে প্রত্যাহার করা হয়েছে। এ ঘটনা তদন্তে একটি কমিটি গঠন করা হয়েছে। কমিটির প্রতিবেদনের ভিত্তিতে যথাযথ আইনি ব্যবস্থা নেওয়া হবে।



মন্তব্য