kalerkantho

দ্বিতীয় রাজধানী প্রতিদিন

দুই কিশোরী হত্যা

জড়িতদের শাস্তির দাবিতে সীতাকুণ্ডে মানববন্ধন

সীতাকুণ্ড (চট্টগ্রাম) প্রতিনিধি    

২১ মে, ২০১৮ ০০:৫১



জড়িতদের শাস্তির দাবিতে সীতাকুণ্ডে মানববন্ধন

চট্টগ্রামের সীতাকুণ্ডে দুই ত্রিপুরা কিশোরীকে হত্যার ঘটনায় জড়িতদের গ্রেপ্তার ও শাস্তির দাবিতে মানববন্ধন করেছে বাংলাদেশ আদিবাসী ইউনিয়ন সীতাকুণ্ড শাখা। গতকাল দুপুর সাড়ে ১২টার দিকে উপজেলা পরিষদ প্রাঙ্গণে এ কর্মসূচি পালিত হয়।

মানববন্ধনে বক্তারা বলেন, সমাজে আদিবাসীরাই সবচেয়ে অবহেলিত। সরকারি খাস পাহাড়ে মৃত্যু ঝুঁকি নিয়ে তারা বসবাস করছে। এমন পরিস্থিতির মধ্যেও কিছু প্রভাবশালী বাঙালি নানাভাবে অত্যাচার করে আসছে। তাঁরা দুই ত্রিপুরা কিশোরী হত্যার মূল হোতা আবুল হোসেনের সহযোগীদের গ্রেপ্তার এবং জড়িতদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি দাবি করেন।
অ্যাডভোকেট জহির উদ্দিন মাহমুদের সভাপতিত্বে কর্মসূচিতে বক্তৃতা করেন অধ্যাপক মো. জাহাঙ্গীর, আদিবাসী নেতা মানিক ত্রিপুরা, কাঞ্চন ত্রিপুরা, সুজন ত্রিপুরা, দিলীপ নাথ প্রমুখ। পরে তাঁরা দুই কিশোরী হত্যার বিচার চেয়ে উপজেলা নির্বাহী অফিসার তারিকুল আলমের কাছে স্মারকলিপি দিয়েছেন।

গত শুক্রবার বিকেলে সীতাকুণ্ড পৌরসভার জঙ্গল মহাদেবপুর পাহাড়ের ত্রিপুরাপাড়ার বাসিন্দা সুমন ত্রিপুরার বাড়ি থেকে তাঁর মেয়ে ছবি রানী ত্রিপুরা (১১) ও প্রতিবেশী ফলিন ত্রিপুরার মেয়ে সুকুলতি ত্রিপুরার (১৫) ঝুলন্ত লাশ উদ্ধার করা হয়। এ ঘটনায় গ্রেপ্তার পাশের চৌধুরীপাড়ার আবুল হোসেন হত্যার দায় স্বীকার করেছে। গত শনিবার সে আদালতে স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দিতে জানায়, বারবার প্রেমের প্রস্তাব প্রত্যাখ্যান ও গ্রাম্য সালিসে তিরস্কৃত হয়ে সে তিন সহযোগীকে নিয়ে সুকুলতিকে হত্যা করে লাশ ঝুলিয়ে দেয়। তবে এ ঘটনা দেখে ফেলায় ছবি রানী ত্রিপুরাকেও হত্যা করা হয়।

সীতাকুণ্ড থানার ওসি (তদন্ত) মো. মোজাম্মেল হক বলেন, ঘটনার দিন রাতেই আবুল হোসেনকে উপজেলার বাঁশবাড়িয়ার মামার বাড়ি থেকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। তার সহযোগীদের গ্রেপ্তারে অভিযান অব্যাহত আছে।



মন্তব্য