kalerkantho

দ্বিতীয় রাজধানী প্রতিদিন

খালের বালু তুলছে সিন্ডিকেট হুমকিতে রোহিঙ্গা ক্যাম্প

নিজস্ব প্রতিবেদক, কক্সবাজার   

১২ মার্চ, ২০১৮ ০২:৪২



খালের বালু তুলছে সিন্ডিকেট হুমকিতে রোহিঙ্গা ক্যাম্প

ছবি: কালের কণ্ঠ

কক্সবাজারের উখিয়ার একটি খাল থেকে অবৈধভাবে বালু তোলার ফলে হুমকির মুখে পড়েছে তাজনিমারখোলা রোহিঙ্গা ক্যাম্পটি। বালু লুটপাটের ওই সিন্ডিকেট পালংখালী ইউনিয়নের থাইংখালী খালটির কমপক্ষে ১২টি পয়েন্টে অবৈধভাবে বালু তুলে বিক্রি করছে।

পালংখালী ইউনিয়ন পরিষদের (ইউপি) সদস্য ও স্থানীয় বিএনপি নেতা জয়নাল আবেদীনের নেতৃত্বে একটি সিন্ডিকেট এই বালু লুটপাট করছে বলে অভিযোগ স্থানীয়দের।

এলাকাবাসী জানায়, বেশ কয়েক বছর ধরেই এই সিন্ডিকেট খালের যত্রতত্র বালু উত্তোলন করে বিক্রি করে আসছে; কিন্তু মাসছয়েক আগে এই খালপারে তাজনিমারখোলা রোহিঙ্গা ক্যাম্প স্থাপন করায় এখন ওই খাল থেকে বালু তোলা ঝুঁকিপূর্ণ হয়ে দেখা দিয়েছে।

স্থানীয়রা বলছে, ড্রেজার মেশিন দিয়ে খাল থেকে যেভাবে বালু উত্তোলন করা হচ্ছে তাতে রোহিঙ্গা বস্তিগুলো সামনের বর্ষা মৌসুমে খালে বিলীন হয়ে যেতে পারে। তা ছাড়া পাহাড়ধসেরও শঙ্কা রয়েছে।
এ বিষয়ে পালংখালী ইউপি চেয়ারম্যান এম গফুর উদ্দিন চৌধুরী বলেন, সিন্ডিকেটের মাধ্যমে থাইংখালী খালের যত্রতত্র থেকে বালু উত্তোলন বন্ধ করার ব্যাপারে অনেক উদ্যোগ নিলেও কাজ হচ্ছে না।

এলাকার লোকজন জানায়, থাইংখালী এলাকার ইউপি সদস্য জয়নালের নেতৃত্বে ১০-১২ জনের একটি সিন্ডিকেট খাল থেকে বালু তুলছে। তারা সাত-আট টন ওজনের এক গাড়ি বালু বর্তমানে সাড়ে তিন হাজার টাকা দরে বিক্রি করতে পারছে। এ কারণে বালু উত্তোলনকারী সিন্ডিকেট বেপরোয়া। এর আগে খালসংলগ্ন কিছু ফসলি জমি, বসতভিটা বিলীন হয়েছে। এখন তাজনিমারখোলা রোহিঙ্গা ক্যাম্প ভাঙনের মুখে পড়েছে।

অভিযোগ সম্পর্কে জানতে চাইলে পালংখালী ইউপি সদস্য জয়নাল আবেদীন তা অস্বীকার করে বলেন, তিনি বালু উত্তোলনের কাজে জড়িত নন। বরং এই সিন্ডিকেটে স্থানীয় আবদুর রহমান, মমতাজ আহমদ, খাইরুল বশর, ইস্কান্দর, রশিদ আহমদ, আবুল বশর প্রমুখ জড়িত বলে তিনি দাবি করেন।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে উখিয়া উপজেলার সহকারী কমিশনার (ভূমি) ইকরামুল ছিদ্দিক বলেন, থাইংখালী খালের পারে হাজার হাজার রোহিঙ্গা বসতি গড়ে উঠেছে। অবৈধ বালু উত্তোলনের ফলে থাইংখালী খালের উত্তরাংশে রোহিঙ্গা বসতিসংলগ্ন বিশাল এলাকাজুড়ে ব্যাপক ভাঙন দেখা দিয়েছে। তিনি জানান, অবৈধভাবে বালু উত্তোলন বন্ধ করার জন্য থাইংখালী খালে বেশ কয়েকবার অভিযান চালিয়ে বালু উত্তোলনের ড্রেজার মেশিনসহ বিভিন্ন সরঞ্জাম জব্ধ করে থানায় জমা দেওয়া হয়েছে।



মন্তব্য