kalerkantho

দ্বিতীয় রাজধানী প্রতিদিন

চট্টগ্রাম বন্দর

অবৈধ দখলের বৈধতা না পেয়ে ধর্মঘট পরে প্রত্যাহার

নিজস্ব প্রতিবেদক, চট্টগ্রাম   

৪ মার্চ, ২০১৮ ০৫:৩০



অবৈধ দখলের বৈধতা না পেয়ে ধর্মঘট পরে প্রত্যাহার

চট্টগ্রাম বন্দরের জমি অবৈধভাবে দখল করে নির্মিত অফিস বৈধ করার অনুমতি না পেয়ে গতকাল শনিবার ধর্মঘট ডাকে প্রাইম মুভার ও ট্রেইলর শ্রমিকরা। তারা বন্দরের ভেতরে রপ্তানি পণ্যবাহী লরি ও প্রাইম মুভার ঢুকতে বাধা দেয়। এই ধর্মঘটে বিকেল সোয়া ৪টা থেকে বন্দরের তিন নম্বর গেট দিয়ে পণ্য পরিবহনে অচলাবস্থা দেখা দেয়। তবে বাকি গেটে পণ্য পরিবহন স্বাভাবিক ছিল।

রাত ৮টার পর বন্দরে পণ্য পরিবহন সচল হয় বলে নিশ্চিত করেন বন্দরের টার্মিনাল ম্যানেজার সারোয়ারুল ইসলাম। তিনি বলেন, ধর্মঘটী শ্রমিকদের সঙ্গে বন্দরের নিরাপত্তা কর্মকর্তাদের বৈঠকের পর কাজ পুরোদমে শুরু হয়। আজ রবিবার তাদের সঙ্গে বন্দর কর্মকর্তাদের বৈঠকের কথা রয়েছে।

জানা গেছে, চট্টগ্রাম বন্দরের চিটাগাং কনটেইনার টার্মিনালের (সিসিটি) তিন নম্বর গেটের বাইরে ফ্লাইওভারের নিচে জমি দখল করে অবৈধভাবে অফিস স্থাপন করে অনেক দিন ধরে আছে চট্টগ্রাম প্রাইম মুভার ও ট্রেইলর চালক শ্রমিক ইউনিয়ন। চট্টগ্রাম বন্দর ম্যাজিস্ট্রেট সেখানে একবার উচ্ছেদ অভিযান চালাতে গিয়ে ফিরে আসেন। তারপর থেকে তারা সড়কের পাশেই গেড়ে বসে এবং কার্যক্রম চালাতে থাকে।

গতকাল শনিবার নৌপরিবহনমন্ত্রী চট্টগ্রাম বন্দর ভবনে গেলে শ্রমিকরা সেই জমি তাদের অফিসের নামে বরাদ্দের দাবি জানায়। মন্ত্রী তাদের দাবিকে অযেৌক্তিক অভিহিত করে তাদের ফিরিয়ে দেন। এতে শ্রমিকরা ক্ষব্ধ হয়ে ধর্মঘট ডেকে বসে। তবে বন্দরের সব গেট নয়, কেবল একটি গেটেই এই অচলাবস্থা চলে।
এ বিষয়ে চট্টগ্রাম প্রাইম মুভার ও ট্রেইলরচালক শ্রমিক ইউনিয়ন সভাপতি মাইনুদ্দিনের নাম্বারে বেশ কয়েকবার ফোন দিলেও তিনি সাড়া দেননি।


মন্তব্য