kalerkantho

দ্বিতীয় রাজধানী প্রতিদিন

সীতাকুণ্ডে সহস্রধারা ঝরনা এলাকায় ফের নারী খুন

সীতাকুণ্ড (চট্টগ্রাম) প্রতিনিধি   

১০ ফেব্রুয়ারি, ২০১৮ ০২:৫৫



সীতাকুণ্ডে সহস্রধারা ঝরনা এলাকায় ফের নারী খুন

প্রতীকী ছবি

চট্টগ্রামের সীতাকুণ্ডের ছোটদারোগারহাট সহস্রধারা ঝরনাসংলগ্ন পাহাড়ে আবার এক নারী খুন হয়েছেন। গতকাল শুক্রবার বিকেলে পুলিশ ওই নারীর লাশ উদ্ধার করেছে। একই এলাকা থেকে গত কয়েক মাসে এ নিয়ে তিন নারীর লাশ উদ্ধার হলো। পুলিশের ধারণা, অনৈতিক সম্পর্কের কারণে এসব হত্যাকাণ্ড ঘটছে।

স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, গতকাল দুপুর ১২টার দিকে সীতাকুণ্ডের বারৈয়াঢালা ইউনিয়নের ছোটদারোগারহাট লবনাক্ষ পাহাড়ের সহস্রধারা যাওয়ার পথে একটি পাহাড়ের গহিনে কাঠ কাটতে গিয়ে কয়েকজন কাঠুরিয়া দুর্গন্ধ পেয়ে খুঁজতে থাকে। অল্প সময় পর তারা পাহাড়ি ঝোপঝাঁড়ে চাপা দেওয়া এক নারীর লাশ দেখতে পায়। বিষয়টি তারা স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যানকে জানালে তিনি পুলিশে খবর দেন। খবর পেয়ে পুলিশ সেখান থেকে বিকেলে লাশটি উদ্ধার করে মর্গে পাঠায়।

বারৈয়াঢালা ইউপি চেয়ারম্যান মো. রেহান উদ্দিন রেহান জানান, গতকাল দুপুরে ছোটদারোগারহাট সহস্রধারা ঝরনার অদূরে পাহাড়ে কাঠ কাটতে গিয়ে নারীর লাশের সন্ধান পেয়ে তাঁকে জানালে তিনি পুলিশে খবর দেন। পরে পুলিশ লাশটি উদ্ধার করে নিয়ে গেছে। মাসখানেক আগেও একই এলাকায় আরেক নারীর লাশ পাওয়া গিয়েছিল। ধারণা করা হচ্ছে, এই এলাকা সম্পর্কে ধারণা আছে এমন কেউ বেড়ানোর নাম করে অন্য এলাকার তরুণীদের এখানে এনে এসব ঘটনা ঘটাচ্ছে। তিনি বলেন, নিহতরা কেউ ওই এলাকার নয়। পুলিশ ঘটনা তদন্ত করলে হয়তো সব বেরিয়ে আসবে।

সীতাকুণ্ড থানার পরিদর্শক (তদন্ত) মো. মোজাম্মেল হক বলেন, 'দুপুরে সেখানে লাশ পাওয়ার খবর শুনে এসআই জয়নালকে সেখানে পাঠিয়ে লাশটি উদ্ধার করেছি। উদ্ধারের সময় ওই মহিলার গায়ে বোরকা ছিল। আর লাশটি অনেকটা পঁচে গেছে। এ থেকে ধারণা করা হচ্ছে বেশ কয়েক দিন আগে মহিলাকে হত্যা করা হয়েছে। তবে তাঁর নাম পরিচয় জানা যায়নি।'

তিনি জানান, একই এলাকা থেকে এর আগে আরো দুটি লাশ পাওয়া যায়। তাদের মধ্যে একটি ছিল ১৮-২০ বছরের এক তরুণীর আর অন্যজন পাগল বলে কেউ কেউ মন্তব্য করেছিল। পরিদর্শক মোজাম্মেল বলেন, 'এলাকাটি পর্যটন স্পট হওয়ায় বেড়ানোর নাম করে অনেকে অনৈতিক কর্মকাণ্ডে লিপ্ত হয় বলে আমার ধারণা। এ কারণেই এসব ঘটনা ঘটছে।' এ ঘটনায় হত্যা মামলা দায়ের হবে বলে জানান তিনি।


মন্তব্য