kalerkantho

দ্বিতীয় রাজধানী প্রতিদিন

বঙ্গবন্ধু সাংস্কৃতিক জোটের স্মরণানুষ্ঠানে চবি উপাচার্য

চট্টগ্রাম গণহত্যার বিলম্বিত বিচার জাতি মর্মাহত

নিজস্ব প্রতিবেদক, চট্টগ্রাম   

২৪ জানুয়ারি, ২০১৮ ০১:৫৬



চট্টগ্রাম গণহত্যার বিলম্বিত বিচার জাতি মর্মাহত

চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য প্রফেসর ড. ইফতেখার উদ্দিন চৌধুরী বলেছেন, '১৯৮৮ সালের ২৪ জানুয়ারি গণহত্যার বিলম্বিত বিচার জাতিকে বিস্মিত ও মর্মাহত করেছে। বঙ্গবন্ধুর তনয়া জননেত্রী শেখ হাসিনাকে হত্যার উদ্দেশেই তৎকালীন সিএমপি কমিশনার রকিবুল হুদার নির্দেশে পুলিশ লাখো জনতার ওপর গুলিবর্ষণ করে গণহত্যা চালায়। এই গণহত্যার দায়ে অভিযুক্তদের নানাভাবে আড়াল করার অপচেষ্টা চলছে। খুনি রকিবুল হুদাদের দ্রুত বিচারিক প্রক্রিয়ায় সর্বোচ্চ শান্তি না হলে আরো নতুন নতুন রকিবুল হুদা সৃষ্টি হবে।'

গতকাল মঙ্গলবার বিকেলে নগরের থিয়েটার ইনস্টিটিউটে চট্টগ্রাম গণহত্যার ৩০তম বার্ষিকী উপলক্ষে নিহতদের স্মরণে এক আলোচনাসভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন। বঙ্গবন্ধু সাংস্কৃতিক জোট চট্টগ্রাম জেলার উদ্যোগে অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়।   

বঙ্গবন্ধু সাংস্কৃতিক জোট চট্টগ্রাম জেলার সাধারণ সম্পাদক খোরশেদ আলমের সঞ্চালনায় মুখ্য আলোচক হিসেবে উপস্থিত ছিলেন চট্টগ্রাম মহানগর আওয়ামী লীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি, বীর মুক্তিযোদ্ধা মাহতাব উদ্দিন চৌধুরী।

শেখ হাসিনার প্রতি কৃতজ্ঞতা জানিয়ে উপাচার্য আরো বলেন, 'শেখ হাসিনা বঙ্গবন্ধু হত্যার আত্মস্বীকৃত খুনি ও চিহ্নিত যুদ্ধাপরাধীদের একে একে ফাঁসির দড়িতে ঝুলিয়ে জাতিকে পাপমুক্ত করেছেন। এখন একইভাবে চট্টগ্রাম গণহত্যার খলনায়কদের সর্বোচ্চ শাস্তি নিশ্চিত করার জন্য মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর কাছে উদাত্ত আহ্বান জানাই।'

অনুষ্ঠানে চট্টগ্রাম মহানগর আওয়ামী লীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি মাহতাব উদ্দিন চৌধুরী বলেন, 'শেখ হাসিনার প্রাণনাশের অপচেষ্টা ৩০ বছর আগে এই দিন থেকেই শুরু হয়। এরপর থেকে স্বাধীনতাবিরোধী শক্তি তাঁকে হত্যার জন্য একে একে পরিকল্পনা চালিয়ে ব্যর্থ হলেও নারী নেত্রী আইভি রহমানসহ শতাধিক নারী-পুরুষকে হত্যা করা হয়েছে।'

স্মরণানুষ্ঠানে অন্যদের মধ্যে বক্তব্য দেন চট্টগ্রাম মহানগর আওয়ামী লীগের সহসভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা নঈম উদ্দিন চৌধুরী, জাতীয় শ্রমিক লীগ কেন্দ্রীয় কমিটির যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক আলহাজ শফর আলী, আই ই বি চট্টগ্রাম কেন্দ্রের সাবেক চেয়ারম্যান প্রকৌশলী মো. হারুন, নগর আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক চৌধুরী হাসান মাহমুদ হাসনী প্রমুখ।


মন্তব্য