kalerkantho

দ্বিতীয় রাজধানী প্রতিদিন

সাবেক এমপি ইউসুফের অবস্থা সংকটাপন্ন

নিজস্ব প্রতিবেদক, চট্টগ্রাম   

৯ জানুয়ারি, ২০১৮ ০১:২৫



সাবেক এমপি ইউসুফের অবস্থা সংকটাপন্ন

অর্থাভাবে দীর্ঘদিন ধুঁকতে থাকা চট্টগ্রামের রাঙ্গুনিয়ার সাবেক সংসদ সদস্য মোহাম্মদ ইউসুফের শারীরিক অবস্থা সংকটাপন্ন। চট্টগ্রাম মেডিক্যাল কলেজ (চমেক) হাসপাতালের আইসিইউতে তিনি চিকিৎসাধীন। আরো ভালো চিকিৎসার জন্য প্রবীণ এই নেতাকে ঢাকায় স্থানান্তরের সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে।

তবে শারীরিক অবস্থা নাজুক থাকায় এয়ার অ্যাম্বুল্যান্সে করে তাঁকে নেওয়া যাচ্ছে না। মেডিক্যাল বোর্ড আজ মঙ্গলবার তাঁর শারীরিক অবস্থা পরীক্ষা-নিরীক্ষা করে দেখবে।

চট্টগ্রাম জেলা সিভিল সার্জন ডা. আজিজুর রহমান সিদ্দিকী গতকাল সোমবার রাতে কালের কণ্ঠকে বলেন, 'গত রবিবার দুপুরে মেডিক্যালে ভর্তি করার পর ২৪ ঘণ্টায় তাঁর শারীরিক অবস্থার তেমন পরিবর্তন হয়নি। এ কারণে এয়ার অ্যাম্বুল্যান্সে করে তাঁকে ঢাকায় নেওয়া যাচ্ছে না। মঙ্গলবার চিকিৎসকরা আবার পরীক্ষা করে দেখবেন সড়কপথে তাঁকে ঢাকা নেওয়া যায় কি না। এখানে চিকিৎসাসেবা চলছে। আশা রাখি আস্তে আস্তে তিনি সুস্থ হয়ে উঠবেন। প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয় থেকে তাঁর সার্বিক চিকিৎসা মনিটরিং করা হচ্ছে।'

গত রবিবার প্রধানমন্ত্রীর নজরে আসে চট্টগ্রামের ওই নেতার বিনা চিকিত্সায় থাকার বিষয়টি। ওই দিনই প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশে তাঁকে রাঙ্গুনিয়ার নিজ বাড়ি থেকে চমেক হাসপাতালে চিকিৎসার জন্য নিয়ে আসা হয়। প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশের পর তাঁর চিকিৎসায় তৎপর হয়ে ওঠে সবাই। ১৯৯১ সালে তিনি নৌকা প্রতীক নিয়ে তৎকালীন আটদলীয় জোটের প্রার্থী হিসেবে নির্বাচন করে এমপি নির্বাচিত হয়েছিলেন।

চিকিৎসকরা জানান, মোহাম্মদ ইউসুফের রক্তচাপ খুবই কম। তাঁর কিডনিও খুব দুর্বল। ডায়ালিসিস প্রয়োজন। এ ছাড়া শরীরের বিভিন্ন অংশে সংক্রমণের কারণে ক্ষত সৃষ্টি হয়েছে।

এদিকে অসুস্থ সাবেক সংসদ সদস্যকে দেখতে গতকাল চমেক হাসপাতালে আসেন সাবেক মন্ত্রী ও আওয়ামী লীগের প্রচার সম্পাদক ড. হাছান মাহমুদ এমপি, সিটি মেয়র আ জ ম নাছির উদ্দীন, চট্টগ্রাম বিভাগীয় কমিশনার আব্দুল মান্নান, উত্তর জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি নুরুল আলম চৌধুরী ও দক্ষিণের সভাপতি মোছলেম উদ্দিন আহমেদ, উত্তর জেলার সাধারণ সম্পাদক ও জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান এম এ সালাম এবং দক্ষিণের সাধারণ সম্পাদক মফিজুর রহমান প্রমুখ।



মন্তব্য