kalerkantho

দ্বিতীয় রাজধানী প্রতিদিন

চট্টগ্রাম সিটি মেয়র নাছির বললেন

আমাকে ব্যর্থ প্রমাণ করতে চান? মেয়াদ শেষ পর্যন্ত অপেক্ষা করুন

নিজস্ব প্রতিবেদক, চট্টগ্রাম   

১৫ ডিসেম্বর, ২০১৭ ০০:৫১



আমাকে ব্যর্থ প্রমাণ করতে চান? মেয়াদ শেষ পর্যন্ত অপেক্ষা করুন

ফাইল ছবি

'আমাকে ব্যর্থ প্রমাণ করতে হলে মেয়াদের শেষ সময় পর্যন্ত অপেক্ষা করতে হবে।' এ  মন্তব্য করেছেন চট্টগ্রাম সিটি করপোরেশনের মেয়র আ জ ম নাছির উদ্দিন। গত বুধবার সন্ধ্যায় নগরীর হালিশহরে এক অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এ মন্তব্য করেন। স্থানীয় মহব্বত আলী সিটি করপোরেশন উচ্চ বিদ্যালয়ের নতুন ভবন নির্মাণকাজের উদ্বোধন এবং কৃতী শিক্ষার্থী সংবর্ধনা ও পুরস্কার বিতরণ উপলক্ষে এ অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়।

আ জ ম নাছির উদ্দিন বলেন, 'চট্টগ্রামকে নামে নয়, কাজে বন্দরনগরী হিসেবে গড়তে চাই। আশা করা যাচ্ছে ২০১৮ সালের শেষে চট্টগ্রাম নগরীতে দৃশ্যমান পরিবর্তন হবে। পরিবেশবান্ধব, স্বাস্থ্যসম্মত নগরী গড়ার লক্ষ্যে বিলবোর্ড অপসারণ, অবকাঠামোগত উন্নয়ন, আবর্জনা ব্যবস্থাপনা, হকার নিয়ন্ত্রণ, আলোকিত নগরী গড়ার প্রত্যয়ে কাজ করছে চট্টগ্রাম সিটি করপোরেশন।'

মেয়র বলেন, কেবল চট্টগ্রাম নয়, সারা বাংলাদেশের উন্নয়ন বিশ্বে আজ রোল মডেল। জনগণের সহযোগিতায় ভ্যাট ও ট্যাক্সের বিনিময়ে দৃশ্যমান পরিবর্তন হচ্ছে বাংলাদেশের। চট্টগ্রাম নগরীকে ডাস্টবিনমুক্ত নগরী, এলইডি লাইটিং দ্বারা আলোকিত নগরী এবং কাঁচা ও সলিং রাস্তাগুলো উন্নয়ন করে কার্পেটিং করা হবে।

চট্টগ্রামের মেয়র বলেন, চট্টগ্রামের উন্নয়ন ও পরিবর্তন যাদের চোখে দৃশ্যমান নয়, তারা মূলত চট্টগ্রামের উন্নয়ন প্রত্যাশা করে না। নিন্দুকদের মেয়রের মেয়াদের শেষ সময় পর্যন্ত অপেক্ষা করতে হবে উলে্লখ করে তিনি বলেন, 'মেয়াদ শেষে ভালো-মন্দ বা সফলতা-বিফলতার বিচার করবে নগরবাসী। যদি দিন শেষে ব্যর্থ হই দায়ভার নিয়ে সরে পড়ব।'

মেয়র আরো বলেন, 'আজ যারা ইসলামের ভাষায় চট্টগ্রাম সিটি করপোরেশনের কার্যক্রম নিয়ে গিবত করছে তারা ইসলামের পরিভাষায় পাপকাজে লিপ্ত। আমি আশা করি, গিবত বন্ধ করে ভালো-মন্দের যাচাই-বাছাই করে প্রকৃত সত্য তুলে ধরার জন্য সকলে সচেষ্ট হলে চট্টগ্রামবাসী উপকৃত হবে।'

আ জ ম নাছির উদ্দিন বলেন, সরকার ও জাইকার মাধ্যমে দ্বিতীয় ব্যাচে ৪৩৫ কোটি টাকার উন্নয়নকাজ পরিচালিত হবে। এর অংশ হিসেবে হালিশহর মহব্বত আলী সিটি করপোরেশন উচ্চ বিদ্যালয়ে শিক্ষা ভবন কাম সাইক্লোন সেন্টার হিসেবে সাত কোটি ৩৬ লাখ ৩৪ হাজার ২৩৬ টাকার বিনিময়ে ছয়তলা ভবন নির্মাণ করা হচ্ছে। ভবনটি নির্মিত হলে অসংখ্য ছেলে-মেয়ে শিক্ষার সুযোগ পাবে।

হারুনুর রশিদের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি ছিলেন সাবেক কাউন্সিলর হাজি মোহাম্মদ হোসেন, শিক্ষাবিষয়ক স্থায়ী কমিটির সভাপতি নাজমুল হক ডিউক, কাউন্সিলর মো. আবুল হাশেম, প্রধান শিক্ষা কর্মকর্তা নাজিয়া শিরিন, অতিরিক্ত প্রধান প্রকৌশলী মো. রফিকুল ইসলাম মানিক ও তত্ত্বাবধায়ক প্রকৌশলী আবু সালেহ।


মন্তব্য