kalerkantho

দ্বিতীয় রাজধানী প্রতিদিন

চট্টগ্রামে জলাবদ্ধতা নিরসনে বরাদ্দের সঠিক ব্যবহার দাবি

নিজস্ব প্রতিবেদক, চট্টগ্রাম    

২৪ নভেম্বর, ২০১৭ ০৬:৫৩



চট্টগ্রামে জলাবদ্ধতা নিরসনে বরাদ্দের সঠিক ব্যবহার দাবি

নগরের জলাবদ্ধতা নিরসনে চট্টগ্রাম উন্নয়ন কর্তৃপক্ষ (সিডিএ) বরাদ্দ পেয়েছে পাঁচ হাজার ৬১৭ কোটি টাকা। এ অর্থ অপচয় না করে সঠিক ব্যবহারের দাবি জানিয়েছে নাগরিকরা।

 

গতকাল বৃহস্পতিবার নগরের দক্ষিণ আগ্রাবাদ এলাকায় এক মতবিনিময়সভায় এ দাবি জোরালোভাবে আলোচনা হয়।

নগরের দক্ষিণ আগ্রাবাদ ওয়ার্ডে ছোটপুল এলাকায় গতকাল ‘জনদুর্ভোগ লাঘবে জনতার ঐক্য, চাই নাগরিক উদ্যোগ’ শীর্ষক মতবিনিময়সভা অনুষ্ঠিত হয়। এতে প্রধান অতিথি ছিলেন নগর আওয়ামী লীগের সহসভাপতি খোরশেদ আলম সুজন। স্থানীয় সমাজকর্মী মো. সেকান্দরের সভাপতিত্বে ও আরিফ নেওয়াজের সঞ্চালনায় সভায় বক্তব্য দেন ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আবদুল্লাহ আল ইব্রাহিম, সিলভার বেলস স্কুল পরিচালনা কমিটির সভাপতি আনোয়ার হোসেন, দেওয়ান আলী মসজিদ পরিচালনা কমিটির সাধারণ সম্পাদক মো. জামাল, ছোটপুল ব্যবসায়ী সমিতির সভাপতি আব্দুর রহমান, কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগের সাবেক উপপ্রচার সম্পাদক আজিজুর রহমান আজিজ, নগর ছাত্রলীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক রনি মির্জা প্রমুখ।

সভায় নগর আওয়ামী লীগ নেতা খোরশেদ আলম সুজন বলেন, আগ্রাবাদ এলাকায় জোয়ার-ভাটার জন্য স্বাভাবিক জীবনধারা মারাত্মকভাবে ব্যাহত হচ্ছে। স্কুল-কলেজের ছাত্রছাত্রীরা ভোগান্তিতে পড়ছে। সরকারি-বেসরকারি অফিসগুলোর কার্যক্রম স্থবির হয়ে পড়ছে। আগ্রাবাদ এক্সেস রোড চলাচলের অযোগ্য হয়ে পড়েছে। ব্যবসায়ীরা কোটি কোটি টাকার লোকসান দিচ্ছে।

জোয়ার-ভাটার এই অভিশাপ থেকে মুক্তি চায় এলাকার জনগণ। এখানকার জলাবদ্ধতা নিরসনে মহেশখাল ও কর্ণফুলী নদীর সংযোগস্থলে পাম্পহাউসসহ পরিকল্পিত স্লুইস গেট নির্মাণ, খাল পুনরুদ্ধার ও খনন এবং খালের দুই পাশে প্রতিরক্ষা দেয়াল নির্মাণ করতে হবে।

নাগরিক প্রতিনিধিরা বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার আন্তরিকতায় চট্টগ্রাম উন্নয়ন কর্তৃপক্ষ জলাবদ্ধতা নিরসনের জন্য পাঁচ হাজার ৬১৭ কোটি টাকা পেয়েছে। আমরা চাই, এই টাকার সঠিক ব্যয় হোক। তাতে চট্টগ্রামবাসী জলাবদ্ধতা থেকে মুক্তি পাবে। ’ বরাদ্দের সঠিক ব্যবহার নিশ্চিত করতে চট্টগ্রাম উন্নয়ন কর্তৃপক্ষের প্রতি আহ্বান জানান তাঁরা।


মন্তব্য