kalerkantho

দ্বিতীয় রাজধানী প্রতিদিন

চট্টগ্রামে ভেজাল তেলের কারখানা

১৩০৬ বোতল নকল তেলসহ আটক ২

রাউজান (চট্টগ্রাম) প্রতিনিধি    

২৩ নভেম্বর, ২০১৭ ০৫:৫৮



১৩০৬ বোতল নকল তেলসহ আটক ২

প্রতীকী ছবি

বোতল ও কার্টনে বিএসটিআইয়ের সিল। ঝকমকে মোড়ক আর কার্টনের গায়ে লেখা আছে “ভিটামিন ‘এ’ এবং ‘ই’ সমৃদ্ধ খাঁটি সরিষার তৈল”।

নাম ‘রূপালী খাঁটি সরিষার তৈল’। অথচ সেগুলো নকল। অনুমোদনহীন ভেজাল এই সরিষার তেলের কারখানা গড়ে তোলা হয়েছে চট্টগ্রাম নগরের বায়েজিদ থানার জালাল এলাকায়। এগুলো সরবরাহ করা হতো পার্বত্য অঞ্চলের রাঙামাটি ও খাগড়াছড়িতে। সেখানে যেতে ব্যবহার করা হয় রাউজানের রাঙামাটি সড়ক। গত মঙ্গলবার সকালে সড়কপথে রাউজান উপজেলা হয়ে রাঙামাটি নিয়ে যাওয়ার সময় রাউজান থানা পুলিশের হাতে ধরা পড়েছে পিকআপভর্তি বিপুল পরিমাণ ভেজাল সরিষার তেল। দুজনকে আটকও করা হয়েছে। তাতেই বেরিয়ে এসেছে থলের বিড়াল।  

রাউজান থানার ওসি কেপায়েত উল্লাহ বলেন, ‘গোপন সংবাদের ভিত্তিতে কয়েক দিন আগেই খবর পেয়েছিলাম রাউজান দিয়ে ভেজাল তেল পাচার হচ্ছে রাঙামাটিতে।

পাচারকারীরা সকালে পুলিশ ঘুমানোর সময় এ কাজ করে। ’ ওসি বলেন, ‘বিষয়টি টের পেয়ে আমি এসআই সাইমুল ইসলাম ও এএসআই হাসানকে ফোর্স নিয়ে রাউজান পৌরসভার ৯ নম্বর ওয়ার্ডের ঢালার মুখ চৌধুরী মার্কেটের পশ্চিম পাশে অপেক্ষা করতে বলি। সকাল ৬টার দিকে ভেজাল সরিষার তেল ভর্তি পিকআপটি (চট্ট মেট্রো ন-১১-৫১১৫) সেখানে পৌঁছলে সেটি থামিয়ে জব্দ করে থানায় নিয়ে আসা হয়। এ সময় সেলসম্যান ও গাড়িচালককে আটক করা হয়। ’ 

আটক সেলসম্যান ওমর ফারুক (৪০) রাউজান পৌরসভার ২ নম্বর ওয়ার্ডের মোবারকখীল গ্রামের মৃত শামসুল হকের ছেলে। আর গাড়িচালক মো. হারুন মিয়া (২৪) খাগড়াছড়ির মাটিরাঙ্গা শান্তিপুর এলাকার আবদুল জলিলের ছেলে।  

পুলিশ জানায়, পিকআপে থাকা বিভিন্ন ওজনের ভেজাল তেলের এক হাজার ৩০৬টি বোতল জব্দ করা হয়। এগুলোর মধ্যে আধালিটার ওজনের ৯৬০টি, এক লিটারের ৪৪৮টি, দুই লিটারের ১৮৯টি বোতল রয়েছে। সব মিলিয়ে মোড়কে লেখা দাম এক লাখ ৬০ হাজার ৩০০ টাকা।    

মঙ্গলবার দুপুর ২টায় আটক দুজনকে সাংবাদিকদের সামনে হাজির করে পুলিশ। সেলসম্যান ওমর ফারুক বলেন, চট্টগ্রাম নগরের কুলগাঁও এলাকায় থাকা বরিশাল জেলার বাসিন্দা সেলিম হাওলাদার নামের এক ব্যক্তি চার-পাঁচ বছর ধরে ‘ভাই ভাই কনজ্যুমার ফুড প্রডাক্টসের’ নাম ব্যবহার করে এই ভেজাল তেলের কারখানা চালায়। ওমর ফারুক বলেন, ‘আমি দেড় বছর থেকে ওই ভেজাল কারখানায় কাজ করছি। ’ 

গাড়িচালক হারুন মিয়া বলেন, ‘আমি আজই (মঙ্গলবার) প্রথম পিকআপের বদলি চালক হিসেবে এসেছি। এর আগে এই গাড়ি চালাতাম না। ’ এ ব্যাপারে ওসি কেপায়েত উল্লাহ বলেন, ভেজাল ও অনুমোদনহীন সরিষার তেল আটকের ঘটনায় আটক দুজন ও মালিকের বিরুদ্ধে বিশেষ ক্ষমতা আইনে মামলা করা হয়েছে।


মন্তব্য