kalerkantho

দ্বিতীয় রাজধানী প্রতিদিন

কক্সবাজারে ১৯ ইয়াবা পাচারকারীর ১০ বছর করে কারাদণ্ড

নিজস্ব প্রতিবেদক, কক্সবাজার    

২১ আগস্ট, ২০১৭ ১৮:২৮



কক্সবাজারে ১৯ ইয়াবা পাচারকারীর ১০ বছর করে কারাদণ্ড

মিয়ানমার থেকে সাগরপথে চার লাখ পিস ইয়াবার একটি চালান পাচার করার দায়ে ১৯ জন পাচারকারীর প্রত্যেককে ১০ বছর করে কারাদণ্ড দেওয়া হয়েছে। একই সঙ্গে দণ্ডপ্রাপ্তদের পাঁচ হাজার টাকা করে জরিমানা এবং অনাদায়ে আরো তিন মাসের কারাদণ্ড দেওয়া হয়।

কক্সবাজারের অতিরিক্ত জেলা ও দায়রা জজ আদালতের বিচারক মো. ওসমান গণি আজ সোমবার ইয়াবা পাচারের এ চাঞ্চল্যকর মামলার রায় প্রদান করেন।

প্রসঙ্গত কক্সবাজারের বিচারিক আদালতে ইয়াবা পাচারের মামলায় একই সঙ্গে এতো বিপুলসংখ্যক আসামির দণ্ডাদেশ এই প্রথম।

আদালত সূত্রে জানা গেছে, ২০১৬ সালের ২৫ ফেব্রুয়ারি সকালে মিয়ানমার থেকে টেকনাফমুখী ইয়াবা বোঝাই দুটি ইঞ্জিনচালিত নৌকা সেন্টমার্টিন্স দ্বীপ সন্নিহিত সাগরপথে আসার খবর ছিল কোস্টগার্ডের কাছে। ওই খবর পেয়ে সেন্টমার্টিন্স দ্বীপের কোস্টগার্ড সদস্যরা বঙ্গোপসাগরে অভিযানে নামে। কোস্টগার্ডের উপস্থিতি টের পেয়ে নৌকা দুটি পালাতে থাকে। পরে কোস্টগার্ড সদস্যরা টেকনাফের শাহপরীর দ্বীপসংলগ্ন সাগরে ইয়াবা বোঝাই নৌকা দুটিসহ ১৯ পাচারকারীকে আটক করেন। পরে নৌকা দুটিতে তল্লাশি চালিয়ে উদ্ধার করা হয় চার লাখ পিস ইয়াবার চালান।

রাষ্ট্রপক্ষে মামলা পরিচালনাকারী আইনজীবী সহকারী পাবলিক প্রসিকিউটর (এপিপি) অ্যাডভোকেট মোকতার আহমেদ বলেন, "অভিযান পরিচালনাকারী কোস্টগার্ডের পেটি অফিসার কমিউনিকেশন এম এ তাহের একইদিন ১৯ জন পাচারকারীর বিরুদ্ধে টেকনাফ থানায় মাদকদ্রব্য আইনে মামলা দায়ের করেন। পুলিশ মামলাটির (এসটি মামলা নম্বর-১০১৩/১৬) অভিযোগপত্র দাখিল করে গত বছরের ১৯ এপ্রিল।

আসামিরা সবাই কারাগারে আটক রয়েছেন। " আসামিপক্ষে মামলা পরিচালনা করেন অ্যাডভোকেট আয়াছুর রহমান।

দণ্ডপ্রাপ্ত আসামিরা হলেন টেকনাফ সদরের উত্তর লম্বরি পাড়ার শামশুল আলম ওরফে কালা বাম্বু, জাহেদ হোসেন, অছিউল্লাহ, আইউব আলী, আজিজুল হক, মকবুল আহমদ, রফিক আলম, খাইরুল আলম, ফজল করিম, মোহাম্মদ ইলিয়াস, আবদুল্লাহ, জাহাঙ্গীর এবং জিয়াউর রহমান, টেকনাফের দক্ষিণ লেঙ্গুর বিলের আনোয়ার হোসেন, মোহাম্মদ রুবেল (১), মোহাম্মদ রুবেল (২), রাশেদুল হক, টেকনাফ মৌলভীপাড়ার নূরুল আলম এবং টেকনাফ চান্দলীপাড়ার ইমাম হোসেন ওরফে নবী হোসেন।

উল্লেখ্য, দণ্ডপ্রাপ্ত এক নম্বর আসামি শামশুল আলম ওরফে কালা বাম্বু টেকনাফ সদর ইউনিয়ন বিএনপি সভাপতি মোহাম্মদ আলম মেম্বারের ছোট ভাই।  


মন্তব্য