logo
আপডেট : ১০ ফেব্রুয়ারি, ২০১৮ ০০:০৮
শ্রীলঙ্কা কিন্তু এখনই উড়তে শুরু করেনি

শ্রীলঙ্কা কিন্তু এখনই উড়তে শুরু করেনি

ক্রীড়া প্রতিবেদক : পর পর সংবাদ সম্মেলনে এলেন দুজন। দুই দলের দুই প্রতিনিধি। মেহেদী হাসান মিরাজ আগে বলে যান, ৩০০-র ওপর রান তাড়া করেও বাংলাদেশের পক্ষে জয় সম্ভব। তাঁর ওই কথায় আশাবাদই প্রবল, ক্রিকেটবোধ দুর্বল। আর পরে রোশেন সিলভা যখন বলে যান, জেতার মতো রান এরই মধ্যে হয়ে গেছে শ্রীলঙ্কার—ক্রিকেটীয় বোধেও তা কেমন উতরে না যায়!

লঙ্কানদের লিড এরই মধ্যে ৩১২ রান। হাতে দুই উইকেট থাকায় তা বাড়তে পারে আরো। সেটি না হলেও চতুর্থ ইনিংসে ওই রান তাড়া করে জয় সহজ কম্মো নয়। বিশেষত শেরেবাংলা স্টেডিয়ামের এই বোলিং সহায়ক উইকেটে। প্রথম ইনিংসে ৫৬-র পর কাল দ্বিতীয় ইনিংসে ৫৮ রানে অপরাজিত থাকা সিলভা তো মজা করে বললেন এমনও, ‘এখানে ব্যাটিং করতে যাওয়ার আগে সবচেয়ে বেশি করে উচিত প্রার্থনা করা।’ মিরপুরের ২২ গজকে শ্রীলঙ্কার রাস্তার সঙ্গে পর্যন্ত তুলনা করে যান স্বল্প সময়ে সংবাদ সম্মেলনেই দারুণ রসবোধের পরিচয় দেওয়া এই ব্যাটসম্যান, ‘কখনো-সখনো আবহাওয়া খারাপ হলে দেশে হয়তো এমন উইকেট পাই। নয়তো একেবারেই না। আমাদের দেশে রাস্তা তৈরির সময় বালু ও আরো কিছু জিনিস ব্যবহার করে, যা শ্রীলঙ্কার রাস্তাগুলোকে মিরপুরের উইকেটের মতো রং দেয়।’ যেখানে সাফল্য-রঙিন হওয়ার সম্ভাবনা স্পিনারদের।

তা শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে বাংলাদেশ এমন স্পিন উইকেট বানানোয় বেশ অবাক সিলভা, ‘আমি বলব না যে, এটি ভালো উইকেট। তবে মানসিকভাবে আমরা টার্নের জন্য তৈরি ছিলাম। আমি অবশ্য ভেবেছিলাম, খুব ভালো ব্যাটিং উইকেট পাব। উপমহাদেশে যখন অস্ট্রেলিয়া বা এমন কোনো দল আসে, তখন আমরা এ জাতীয় উইকেট প্রস্তুত করি। কিন্তু শ্রীলঙ্কার তো ভালো স্পিন বোলিং আক্রমণ রয়েছে। আমি ঠিক জানি না, আমাদের ওরা এমন উইকেট দিল কেন!’ এখানে সফল হওয়ার জন্য খারাপ বল থেকে রান করার প্রয়োজনীয়তায় গুরুত্ব দেন তিনি, ‘এই উইকেটে ভালো বল হলে আর রক্ষে নেই। দ্রুত এক-দুটি উইকেট হারিয়ে ফেলতে পারেন। বাজে বলগুলো থেকে তাই রান করতে হবে।’

তা অমন বাজে বল অনেক করেছেন বাংলাদেশের বোলাররা। অন্যদিকে স্বাগতিক ব্যাটসম্যানরা ভালো বলে আউট হওয়ার পাশাপাশি ছিলেন আত্মাহুতির মিছিলেও। এসবের যোগফলে লিড হয়ে গেছে ৩০০ রানের বেশি। এ কারণেই সিলভা আত্মবিশ্বাস নিয়ে বলতে পারেন, ‘আমার মনে হয় না, এই উইকেটে ৩০০-র বেশি রান করা সম্ভব। এটি সাধারণ বোধ; তবে ক্রিকেট তো মজার খেলা। আমরা ওদের ১০০-র মতো রানে অল আউট করেছি; এরপর চেয়েছিলাম ৩০০-র ওপর রানে এগিয়ে যেতে। তা পেরেছি। কাল (আজ) সকালে আরো বেশি সম্ভব রান যোগ করতে চাইব।’ জয়ের জন্য যথেষ্ট রান স্কোরবোর্ডে জমা হয়ে গেছে বলেও দাবি তাঁর, ‘আমার মনে হয়, জয়ের জন্য যথেষ্ট রান করেছি। বাংলাদেশের সব ব্যাটসম্যান জানেন, এই উইকেট খুব সহজ হবে না। আমাদের স্পিনাররা খুব অভিজ্ঞ। বাংলাদেশের বোলাররাও খুব ভালো তবে আমাদের রঙ্গনা হেরাথ ও দিলরুয়ান পেরেরা অনেক অভিজ্ঞ। রঙ্গনার ৪০০-র ওপরে টেস্ট উইকেট; দিলরুয়ানের প্রথম শ্রেণির উইকেট ৭০০-র বেশি। সুরঙ্গা ও আকিলা ধনাঞ্জয়াও ভালো বোলিং করেছে। সব মিলিয়েই ম্যাচ জয়ের মতো ভালো অবস্থানে আছি আমরা।’

সিলভার কথার সঙ্গে দ্বিমতের সুযোগ কই! তবে মেহেদীর সঙ্গে ভিন্নমত থাকতেই পারে। ওই যে ক্রিকেটবোধ ও আশাবাদের পার্থক্যের কারণে!

সম্পাদক : ইমদাদুল হক মিলন,
নির্বাহী সম্পাদক : মোস্তফা কামাল,
ইস্ট ওয়েস্ট মিডিয়া গ্রুপ লিমিটেডের পক্ষে ময়নাল হোসেন চৌধুরী কর্তৃক প্লট-৩৭১/এ, ব্লক-ডি, বসুন্ধরা, বারিধারা থেকে প্রকাশিত এবং প্লট-সি/৫২, ব্লক-কে, বসুন্ধরা, খিলক্ষেত, বাড্ডা, ঢাকা-১২২৯ থেকে মুদ্রিত।
বার্তা ও সম্পাদকীয় বিভাগ : বসুন্ধরা আবাসিক এলাকা, প্লট-৩৭১/এ, ব্লক-ডি, বারিধারা, ঢাকা-১২২৯। পিএবিএক্স : ০২৮৪০২৩৭২-৭৫, ফ্যাক্স : ৮৪০২৩৬৮-৯, বিজ্ঞাপন ফোন : ৮১৫৮০১২, ৮৪০২০৪৮, বিজ্ঞাপন ফ্যাক্স : ৮১৫৮৮৬২, ৮৪০২০৪৭। E-mail : info@kalerkantho.com