logo
আপডেট : ৯ ফেব্রুয়ারি, ২০১৮ ২৩:৫৫
১ম কলাম
পাটাতন চুরি

পাটাতন চুরি

নাটোরের বাগাতিপাড়া উপজেলার গালিমপুর বড়াল নদীর ওপর নির্মিত বেইলি ব্রিজটি ক্রমেই ঝুঁকিপূর্ণ হয়ে পড়েছে। সম্প্র্রতি ব্রিজটির ভেঙে পড়া একটি পাটাতন প্লেট চুরি যাওয়ায় তা আরো বেশি ঝুঁকিপূর্ণ হয়ে পড়েছে। ১৯৯৫ সলের ১২ ফেব্রুয়ারি নির্মিত ব্রিজটি ২০০৫ সালের মে মাসে কালবৈশাখী ঝড়ে উত্তর থেকে দক্ষিণ দিকে হেলে পড়ায় এক সপ্তাহ সব ধরনের যোগাযোগ বন্ধ থাকে। পরে কর্তৃপক্ষ ব্রিজটি সংস্কার করে। সড়ক ও জনপথ বিভাগ ব্রিজটিতে ২০ টনের বেশি ভারবহনকারী যানবাহন চলাচলে নিষেধাজ্ঞা জারি করে। ২০১৩ সালের দিকে ব্রিজের পূর্ব অংশে বৃষ্টির পানি জমে মরিচা ধরে পাটাতন প্লেট নষ্ট হয়ে যায়। কর্তৃৎপক্ষ নষ্ট প্লেটগুলোর কয়েকটি পরিবর্তন ও কয়েকটি ঝালাই করে সংস্কার করে। একই বছর ব্রিজটিতে ১০ টনের বেশি ভারবহনকারী যানবাহন চলাচলের ওপর নিষেধাজ্ঞা দিয়ে আবারও সাইনবোর্ড টাঙানো হয়। এখন সাইনবোর্ডগুলো চোখে পড়ে না। নিয়ম মানছে না যানবাহনের চালকরাও। বর্তমানে ব্রিজের পাটাতনের অনেক প্লেট মরিচা ধরে নষ্ট হয়ে গেছে। এদিকে একটি পাটাতন প্লেট চুরি যাওয়ায় ওই অংশটি ফাঁকা হয়ে গেছে। সাধারণ জনগণ এতে গাছের ডাল দিয়ে চিহ্নিত করে রেখেছে। এ ব্যাপারে নাটোর সড়ক ও জনপথ বিভাগের নির্বাহী প্রকৌশলী আশরাফুল ইসলাম প্রামাণিক বলেন, ‘ব্রিজটি কংক্রিট দিয়ে নির্মাণের একটি প্রস্তাবনা তৈরি করা হয়েছে। আশা করা যায়, আগামী তিন মাসের মধ্যে প্রস্তাবনা পাস হবে।’

সম্পাদক : ইমদাদুল হক মিলন,
নির্বাহী সম্পাদক : মোস্তফা কামাল,
ইস্ট ওয়েস্ট মিডিয়া গ্রুপ লিমিটেডের পক্ষে ময়নাল হোসেন চৌধুরী কর্তৃক প্লট-৩৭১/এ, ব্লক-ডি, বসুন্ধরা, বারিধারা থেকে প্রকাশিত এবং প্লট-সি/৫২, ব্লক-কে, বসুন্ধরা, খিলক্ষেত, বাড্ডা, ঢাকা-১২২৯ থেকে মুদ্রিত।
বার্তা ও সম্পাদকীয় বিভাগ : বসুন্ধরা আবাসিক এলাকা, প্লট-৩৭১/এ, ব্লক-ডি, বারিধারা, ঢাকা-১২২৯। পিএবিএক্স : ০২৮৪০২৩৭২-৭৫, ফ্যাক্স : ৮৪০২৩৬৮-৯, বিজ্ঞাপন ফোন : ৮১৫৮০১২, ৮৪০২০৪৮, বিজ্ঞাপন ফ্যাক্স : ৮১৫৮৮৬২, ৮৪০২০৪৭। E-mail : info@kalerkantho.com