logo
আপডেট : ৩ জানুয়ারি, ২০১৮ ০১:০২
গাছবাড়িয়া নিত্যানন্দ গৌরচন্দ্র স্কুলের ১০০ বছর


গাছবাড়িয়া নিত্যানন্দ

গৌরচন্দ্র স্কুলের

১০০ বছর

চন্দনাইশের গাছবাড়িয়া নিত্যানন্দ গৌরচন্দ্র মডেল মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের শতবর্ষ পূর্তি উৎসব করেছেন প্রাক্তন শিক্ষার্থীরা। ১৯১৮ সালে চন্দনাইশ উপজেলার গাছবাড়িয়া এলাকায় তৎকালীন হিন্দু জমিদার এ বিদ্যালয় প্রতিষ্ঠা করেন।

এ বিদ্যালয়ে ১০০ বছরে যাঁরা মাধ্যমিক বা প্রবেশিকা পরীক্ষায় উত্তীর্ণ হয়েছেন তাঁদের নিয়ে গঠিত হয় ২০১০ সালে ‘প্রাক্তন শিক্ষার্থী পরিষদ (প্রাশিপ)’।

২০১৭ সালে গঠন করা হয় শতবর্ষ পূর্তি উদযাপন পরিষদ। উদযাপন পরিষদের আয়োজনে ২২ থেকে ২৪ ডিসেম্বর তিন দিনব্যাপী ছিল নানা আয়োজন। এ অনুষ্ঠানে অনেক জ্ঞানী, গুণী, সাহিত্যিক, ডাক্তার, ইঞ্জিনিয়ার, কবি, প্রাবন্ধিক,

কূটনীতিক, এমপি, মন্ত্রী, সাংবাদিক একই মঞ্চে সমবেত হন।

অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন সাবেক মন্ত্রী ড. কর্নেল (অব.) অলি আহমদ বীর বিক্রম। জানতে চাইলে তিনি বলেন, ‘অনুষ্ঠানটি প্রশংসার দাবিদার। এখানে কোনো ভেদাভেদ ছাড়াই সবাই একত্রিত হয়েছেন।’

ওই বিদ্যালয় থেকে অলি আহমদ ১৯৫৭ সালে এসএসসি পাস করেন। তিনি বলেন, ‘আমার বর্তমান অবস্থানে পৌঁছাতে এ বিদ্যালয়ের শিক্ষকদের গুরুত্ব অপরিসীম। দীর্ঘ অনেক বছর পর এ অনুষ্ঠানের মাধ্যমে স্কুলজীবনের কয়েকজন বন্ধুর সঙ্গে দেখা হল। এতে খুব আনন্দ অনুভব করছি।’

১৯৫৭ ব্যাচের শিক্ষার্থী আবদুর রশিদ বলেন, ‘আমরা শতবর্ষ অনুষ্ঠানে উপস্থিত হয়ে নিজেকে খুবই গর্বিত মনে করছি। এখানে আসা অনেক বন্ধুদের জিজ্ঞাসা করলাম বন্ধু কেমন আছিস? জবাবে, বন্ধু বলে সময়তো প্রায় শেষ পর্যায়ে বন্ধু। এ অনুষ্ঠান মরণের আগে স্মৃতি হয়ে থাকল।’

১৯৫৬ ব্যাচের শিক্ষার্থী জাকের আহমদ লাঠি হাতে গুটি গুটি পায়ে স্কুল ক্যাম্পাসে প্রবেশ করেন। এ সময় তাঁর সঙ্গে ছিলেন তাঁরই সন্তান এ বিদ্যালয়ের ১৯৮৩ ব্যাচের চৌধুরী আমির মোহাম্মদ মুছা। তিনি বর্তমানে চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের উপ-পরীক্ষা নিয়ন্ত্রক (প্রশাসন) হিসেবে কর্মরত। জাকের আহমদ বলেন, ‘৬১ বছর পর এ বিদ্যালয়ে শতবর্ষ অনুষ্ঠানে আসলাম। কোনো বন্ধুর সঙ্গে দেখা হয় কিনা সেই আশায় আছি।’

১৯৮৭ ব্যাচের শিক্ষার্থী ও শতবর্ষ উদযাপন পরিষদের প্রকাশনা সম্পাদক মো. জাহেদ হোসেন বলেন, ‘আন্তর্জাতিক খ্যাতিসম্পন্ন জাতীয় অধ্যাপক ডা. নুরুল ইসলাম, কবি ও সাহিত্যিক আহমদ ছফা এবং সাবেক মন্ত্রী ড. কর্নেল (অব.) অলি আহমদ বীর বিক্রমের মতো ব্যক্তি যে বিদ্যাপীঠ ধারণ করেছে, সেই বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী হতে পেরে নিজেকে আজ সৌভাগ্যবান মনে করছি।’

১৯৮৫ ব্যাচের শিক্ষার্থী ও চট্টগ্রাম জেলা পরিষদের প্রকৌশলী মো. আনিছুর রহমান বলেন, ‘আজ নিজেকে খুব ধন্য মনে করছি। শতবর্ষ পূর্তি অনুষ্ঠানে এসে সেই সময়ের অনেক সহপাঠীকে কাছে পেয়েছি।’

 

শতবর্ষ উদযাপন পরিষদের আহ্বায়ক ১৯৮৪ ব্যাচের শিক্ষার্থী চক্ষু বিশেষজ্ঞ ডা. শাহাদৎ হোসেন বলেন, ‘মহাকালের গহবরে ভাঁজে ভাঁজে সাজানো আছে অনন্তকাল। কালের স্রোতে ভেসে বেড়ায় অসংখ্য বছর, মাস, দিন। তেমনি এক প্রতিক্ষণে আমাদের জীবনের অন্যতম অর্জন বিদ্যালয়ের শতবর্ষ পূর্তি অনুষ্ঠান। আমাদের অগ্রজ এবং অনুজ ব্যাচের সব বন্ধুদের নিয়ে হাজারো প্রাণের মিলনমেলায় আমরা একত্রিত হয়েছি আমাদের প্রাণের প্রিয় বিদ্যালয় গাছবাড়িয়া নিত্যানন্দ গৌরচন্দ্র মডেল মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের মাঠে তিনদিনের কোলাহল মুখর পরিবেশে। এটি সত্যিই আনন্দের, সত্যিই গৌরবের।’

সম্পাদক : ইমদাদুল হক মিলন,
নির্বাহী সম্পাদক : মোস্তফা কামাল,
ইস্ট ওয়েস্ট মিডিয়া গ্রুপ লিমিটেডের পক্ষে ময়নাল হোসেন চৌধুরী কর্তৃক প্লট-৩৭১/এ, ব্লক-ডি, বসুন্ধরা, বারিধারা থেকে প্রকাশিত এবং প্লট-সি/৫২, ব্লক-কে, বসুন্ধরা, খিলক্ষেত, বাড্ডা, ঢাকা-১২২৯ থেকে মুদ্রিত।
বার্তা ও সম্পাদকীয় বিভাগ : বসুন্ধরা আবাসিক এলাকা, প্লট-৩৭১/এ, ব্লক-ডি, বারিধারা, ঢাকা-১২২৯। পিএবিএক্স : ০২৮৪০২৩৭২-৭৫, ফ্যাক্স : ৮৪০২৩৬৮-৯, বিজ্ঞাপন ফোন : ৮১৫৮০১২, ৮৪০২০৪৮, বিজ্ঞাপন ফ্যাক্স : ৮১৫৮৮৬২, ৮৪০২০৪৭। E-mail : info@kalerkantho.com