logo
আপডেট : ৭ ডিসেম্বর, ২০১৭ ২৩:২৮
কে আগে ফাইনালে?

কে আগে ফাইনালে?

ক্রীড়া প্রতিবেদক : দুই দলই দাঁড়িয়ে ফাইনালের চৌকাঠে। সেটি পেরিয়ে কারা আগে যাবে ১২ ডিসেম্বরের বিপিএল ফাইনালে? কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ানস নাকি গতবারের চ্যাম্পিয়ন ঢাকা ডায়নামাইটস? আজ সন্ধ্যার ম্যাচে হবে তারই মীমাংসা। তবে পয়েন্ট তালিকার এক ও দুই নম্বরের মধ্যকার প্রথম কোয়ালিফায়ারে হেরে যাওয়া দলের জন্যও ফাইনালের দরজা বন্ধ হয়ে যাচ্ছে না। আজ দুপুরের এলিমিনেটর ম্যাচের বিজয়ীর সঙ্গে দ্বিতীয় কোয়ালিফায়ার জিতে ফাইনালে যাওয়ার সুযোগ থাকবে তাদেরও। প্রথম কোয়ালিফায়ারে দুই দলই অন্তত এই ভেবে অনেকটা নির্ভার হয়ে খেলতে পারে যে আরেকটি সুযোগ তো আছে!

কিন্তু ১২ ম্যাচের ৯টিতেই জিতে দোর্দণ্ড প্রতাপে পয়েন্ট টেবিলের শীর্ষ দল হওয়া কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ানস শিবির সেভাবে ভাববে না স্বাভাবিক। তারা ভাবছেও না। দারুণ ছন্দে থাকা দলটি এই ম্যাচ জিতেই চায় ফাইনালের টিকিট। তাদের কোচ মোহাম্মদ সালাউদ্দিন তাই এই ম্যাচটিকেই ‘নকআউট’ ভেবে নামতে চান, ‘আমি ওইভাবে চিন্তা করছি না যে আমাদের আরেকটি (হারলে) ম্যাচ আছে। আমি চিন্তা করছি যে আমাদের এই একটি ম্যাচই আছে।’ আর ডাবল লিগভিত্তিক পর্বের দুই ম্যাচেই ঢাকা ডায়নামাইটসকে হারানোর বিশ্বাসও সঙ্গী তাদের।

একটিতে ৪ উইকেটে জেতা কুমিল্লা আরেকটিতে ১২ রানে হারিয়েছে বর্তমান চ্যাম্পিয়নদের। এই প্রথম কোয়ালিফায়ারে আবার তাদের মুখোমুখি হওয়ার আগে তাই নির্দ্বিধায় কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ানসকে ফেভারিটের মর্যাদা দিয়ে দিচ্ছেন ঢাকা ডায়নামাইটসের হেড কোচ খালেদ মাহমুদ, ‘প্রথম কথা হচ্ছে এই ম্যাচটি আমরা আন্ডারডগ হিসেবে খেলব। কুমিল্লা আমাদের সঙ্গে দুটি ম্যাচেই জিতেছে। ওরা খেলছেও দারুণ।’ এই ম্যাচের আগে দুই দলের মধ্যে সবচেয়ে বড় যে পার্থক্যটি ধরা পড়ছে, সেটি হলো ধারাবাহিকতা। ২০১৫-র বিপিএলের চ্যাম্পিয়ন কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ানসের পারফরম্যান্সে ধারাবাহিকতা থাকলেও এর অভাব ছিল ঢাকা ডায়নামাইটসের খেলায়।

বিশেষ করে তাদের স্থানীয় ব্যাটসম্যানরা ছন্দটা ধরতে পারছিলেন না। একটু দেরিতে হলেও বিদেশিদের পাশাপাশি তাঁরাও পারফরম করতে শুরু করেছেন বলে মহাগুরুত্বপূর্ণ ম্যাচের আগে স্বস্তি খেলে গেল মাহমুদের কণ্ঠে, ‘আমরা ভালো খেলছি, তবে আমাদের ধারাবাহিকতার একটু অভাব ছিল। আমরা দুই শর ওপর রান যেমন করেছি, তেমনি দেড় শর কমও করেছি। তো ওই জায়গায় একটু ধারাবাহিকতার অভাব ছিল। এই ফরম্যাটে যেটা হয়, সঠিক সময়ে ছন্দটা ধরতে হয়। আমার মনে হয় সেটি আমরা ধরতে পেরেছি।’

সেটি রংপুর রাইডার্সের বিপক্ষে লিগ পর্বের শেষ ম্যাচে, ‘অল্প রান করেও দারুণ একটি ম্যাচ জিতেছি আমরা। আমাদের বোলিং অসাধারণ ছিল। অধিনায়ক হিসেবে সাকিবও সামনে থেকে নেতৃত্ব দিচ্ছে। আমাদের স্থানীয় তারকারা ভালো সময়েই জ্বলে উঠতে শুরু করেছে। কাজেই দারুণ একটি খেলা হবে আশা করি।’ জমজমাট ম্যাচের আশায় কুমিল্লায় তাদের পুরনো পরিকল্পনা অনুযায়ীই খেলতে চায়। সালাউদ্দিন বললেন, ‘আমরা সেই একই মন-মানসিকতা নিয়ে নামছি। একটা ম্যাচ হারলেই টুর্নামেন্ট থেকে ছিটকে পড়ব, এভাবে ভেবেই আমরা প্রতিটি ম্যাচ খেলেছি। এই ম্যাচটিও আমরা সেই একই ভাবনা মাথায় রেখে খেলতে নামব।’

অবশ্য জমজমাট ম্যাচের ভাবনায় যে মিরপুর শেরেবাংলা স্টেডিয়ামের অসমান বাউন্সের উইকেট জল ঢেলে দিতে পারে, আছে সে আশঙ্কাও। মাহমুদ যেহেতু বিসিবি পরিচালকও, তাই উইকেট খারাপ বলার মতো অবস্থায় তিনি নেই। সে জন্য লিগ পর্বে রংপুরের বিপক্ষে নিজেদের শেষ ম্যাচে সাকিব আল হাসানের ব্যাটিংয়ের উদাহরণ টেনে বোঝাতে চাইলেন যে, ‘উইকেটে কোনো জুজু ছিল না।’ আবার উইকেট নিয়ে বিরূপ মন্তব্যের জেরে বোর্ডের সতর্কবার্তাও শুনতে হয়েছে কুমিল্লা অধিনায়ক তামিম ইকবালকে। দলটির কোচ সালাউদ্দিনও নিশ্চিত নন যে আরো ভালো উইকেট পাবেনই।

তাই খারাপ উইকেটেই তামিমের কাছ থেকে ইংল্যান্ড ও অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে মিরপুরে টেস্ট জেতানো ব্যাটিংয়ের আশা সালাউদ্দিনের, ‘এই উইকেটে তামিমের আরো ভালো খেলার সুযোগ আছে। কারণ এমন উইকেটে সে আগেও ভালো ভালো ইনিংস খেলেছে। বিশেষ করে দুটি টেস্ট জিতিয়েছে। তাই এখানেও তামিম ভালো করে নিজের দক্ষতা দেখাবে বলে আশা করছি।’  

আজ থেকে চার দিনের বৃষ্টির পূর্বাভাস মিলে গেলে অবশ্য ভালো কিছু দেখার আশা শেষ। কারণ কোয়ালিফায়ার ম্যাচের জন্য কোনো রিজার্ভ ডে নেই। বিপিএল গভর্নিং কাউন্সিল সেটি রাখার প্রস্তাব রেখেছে সেরা চারের প্রতিটি দলের কাছেই। যদিও কুমিল্লা তাতে রাজি হয়নি বলে খবর। নিয়মানুযায়ী ম্যাচ বৃষ্টিতে ভেসে গেলে পয়েন্ট তালিকার ওপরের দল হিসেবে সরাসরি ফাইনালে চলে যাওয়ার কথা কুমিল্লার। শেষ খবর পাওয়া পর্যন্ত রিজার্ভ ডে নিয়ে গত রাত পর্যন্ত দেন-দরবার অব্যাহত ছিল। বৃষ্টি না হলে অবশ্য সেটির প্রয়োজন নেই। মাঠের জমাট লড়াইয়েই তখন নিষ্পত্তি হবে যে কারা আগে ফাইনালে যাবে।

সেই ভাগ্য নির্ধারণে মাহমুদ তাকিয়ে তাঁর দলের বিদেশি টপ অর্ডার ব্যাটসম্যানদের দিকেই, ‘প্রতিপক্ষকে আপনি নিয়ন্ত্রণ করতে পারবেন না। নিজেদের কাজটা ঠিকমতো করলেই হবে। আমাদের টপ অর্ডার যখন পারফরম করে, তখন আসলে বেশি কিছু লাগে না। আমাদের টপ অর্ডার কেমন করছে, সেটিই মূল কথা। (এভিন) লুইস ও (সুনীল) নারিনের মতো দারুণ কিছু খেলোয়াড় আছে আমাদের টপ অর্ডারে। বড় ইনিংস খেলার সামর্থ্য ওরা প্রমাণও করেছে। টপ অর্ডার রান করলেই আমরা বড় স্কোর গড়তে পারব।’

সেই বিশ্বাস দিয়েই আজ ফাইনাল নিশ্চিত করার আশা ঢাকার। একই আশা কুমিল্লারও, তবে সেটি প্রতিটি ম্যাচ ‘নকআউট’ ভেবে নামার পুরনো ও অব্যর্থ ছক মেনে!

সম্পাদক : ইমদাদুল হক মিলন,
নির্বাহী সম্পাদক : মোস্তফা কামাল,
ইস্ট ওয়েস্ট মিডিয়া গ্রুপ লিমিটেডের পক্ষে ময়নাল হোসেন চৌধুরী কর্তৃক প্লট-৩৭১/এ, ব্লক-ডি, বসুন্ধরা, বারিধারা থেকে প্রকাশিত এবং প্লট-সি/৫২, ব্লক-কে, বসুন্ধরা, খিলক্ষেত, বাড্ডা, ঢাকা-১২২৯ থেকে মুদ্রিত।
বার্তা ও সম্পাদকীয় বিভাগ : বসুন্ধরা আবাসিক এলাকা, প্লট-৩৭১/এ, ব্লক-ডি, বারিধারা, ঢাকা-১২২৯। পিএবিএক্স : ০২৮৪০২৩৭২-৭৫, ফ্যাক্স : ৮৪০২৩৬৮-৯, বিজ্ঞাপন ফোন : ৮১৫৮০১২, ৮৪০২০৪৮, বিজ্ঞাপন ফ্যাক্স : ৮১৫৮৮৬২, ৮৪০২০৪৭। E-mail : info@kalerkantho.com