logo
আপডেট : ১৪ সেপ্টেম্বর, ২০১৭ ০০:১৮
গোলবন্যায় শুরু নতুন মৌসুম

গোলবন্যায় শুরু নতুন মৌসুম

ফের শুরু হয়ে গেল মঙ্গলবার আর বুধবার রাতের উত্তেজনা! উয়েফার তারা আঁকা প্রতীক আর চ্যাম্পিয়নস লিগের চেনা বাজনায় শুরু হয়ে গেছে ইউরোপের সেরা ফুটবল আসর। বিশ্বকাপটা যদিও চার বছর পর পর হয়, তবে অনেকেরই মতে চ্যাম্পিয়নস লিগ বিশ্বকাপের চেয়েও কঠিন ও প্রতিদ্বন্দ্বিতাপূর্ণ, কারণ এখানে ঠাঁই হয় কেবলই ইউরোপের লিগগুলোর চ্যাম্পিয়ন ও শীর্ষ দলগুলোর সেরা ৩২। কার্ডিফে, জুভেন্টাসের বিপক্ষে রিয়ালের ৪-১ গোলের জয় দিয়ে নেমেছিল গত আসরের পর্দা। এবার নতুন মৌসুম শুরুর দিনে সেই জুভেন্টাস হজম করল ৩ গোল, রিয়ালের চিরপ্রতিদ্বন্দ্বী বার্সেলোনার কাছে। মঙ্গলবার রাতের আট ম্যাচের দুটিতে তো রীতিমতো গোলোৎসব! আজারবাইজান থেকে প্রথমবারের মতো চ্যাম্পিয়নস লিগ খেলতে এসে শুরুতেই চেলসির সামনে কারাবাগ, স্ট্যামফোর্ড ব্রিজে তারা হজম করেছে ৬ গোল। নেইমার এমবাপ্পেকে নিয়ে নতুন রূপে প্যারিস সেন্ট জার্মেই ইউরোপে নবযাত্রা শুরু করল সেল্টিককে ৫-০ গোলে উড়িয়ে দিয়ে। ম্যানচেস্টার ইউনাইটেডও চ্যাম্পিয়নস লিগে প্রত্যাবর্তনটা উদ্যাপন করেছে বাসেলকে ৩-০ গোলে হারিয়ে।

পিএসজির হয়ে ফ্রেঞ্চ লিগে অভিষেকেই গোল করেছিলেন নেইমার ও এমবাপ্পে। চ্যাম্পিয়নস লিগ অভিষেকেও গোল করার রেকর্ড অক্ষুণ্ন এই দুজনের। চ্যাম্পিয়নস লিগে প্যারিসবাসীর প্রথম ম্যাচটি ছিল সেল্টিকের বিপক্ষে, তাদেরই মাঠে। প্রথম ম্যাচ, প্রতিপক্ষের মাঠ—সব মিলিয়ে একটু সাবধানী শুরুর দিকেই চোখ থাকে অনেকের। তবে এসব ভাবায় না নেইমারকে! ম্যাচের ১৯ মিনিটে র‌্যাবিও’র পাস পেয়ে বক্সের বাঁ প্রান্ত দিয়ে ঢুকে নিখুঁত ফিনিশিংয়ে গোল করে শুভ সূচনা এই ব্রাজিলিয়ান তারকার। এরপর ৩৪তম মিনিটে গোলের খাতায় নাম তোলেন এমাবাপ্পেও। এদিনসন কাভানি বক্সের সামনে সহজ সুযোগ নষ্ট করলেও পেছনে দাঁড়ানো এমবাপ্পে ভুলটা করেননি। এরপর এদিনসন কাভানি গোল করেন পেনাল্টি থেকে, পিএসজি চতুর্থ গোলটা পায় লুস্টিগের আত্মঘাতী গোলের সুবাদে আর শেষটা আসে কাভানির দারুণ হেডে। নিজের মাঠে চ্যাম্পিয়নস লিগে সবচেয়ে বড় হার সেল্টিকের, কোচ ব্রেন্ডন রজার্স তাই সান্ত্বনা খুঁজেই বললেন, ‘আমরা বিশ্বমানের প্রতিপক্ষের বিপক্ষে খেলেছি। দ্বিতীয়ার্ধে কিছুটা ভালো খেলেছিলাম, তবে এটা আমাদের জন্য কঠিন এক শিক্ষা।’

সমর্থকরা ভালোবেসে কারাবাগকে বলেন বলকানের বার্সেলোনা। আজারবাইজানের লিগে টানা চারবারের চ্যাম্পিয়ন তারা, এবারই প্রথম বাছাই পর্ব উতরে আসতে পেরেছে চ্যাম্পিয়নস লিগের মূলপর্বে। কিন্তু শুরুতেই চেলসির সামনে পড়ে রীতিমতো বিধ্বস্ত কারাবাগ। তাদের জালে বল ঢুকেছে ছয়বার। শুরুটা পেদ্রোর, এরপর জাপাকোস্তা, অ্যাসপিলিকুয়েতা, বাকাইয়াকোর পর বাথশুয়াই। মড়ার উপর খাঁড়ার ঘার মতো ৮২ মিনিটে আত্মঘাতী গোল করেছেন মেদভেদেভ। তাতেই ৬-০ গোলের হারে ‘লন্ডন দর্শন’ সমাপ্ত কারাবাগের। তাতেও খুব একটা অখুশি নন কোচ গুরবান গুরবানভ, ‘এটা আজারবাইজানের প্রথম। আমরা ফুটবলে নতুন দেশ। ফল নিয়ে খুব একটা খুশি নই, তবে ভুল থেকে শিখতে হবে।’

আন্ডারলেখটের বিপক্ষে বায়ার্ন মিউনিখ জিতেছে ৩-০ গোলে, বাসেলের বিপক্ষে ম্যানইউর জয়ও একই ব্যবধানে। এমন গোলবন্যার রাতেও রোমার সঙ্গে গোলশূন্য ড্র অ্যাতলেতিকো মাদ্রিদের। উয়েফা

সম্পাদক : ইমদাদুল হক মিলন,
নির্বাহী সম্পাদক : মোস্তফা কামাল,
ইস্ট ওয়েস্ট মিডিয়া গ্রুপ লিমিটেডের পক্ষে ময়নাল হোসেন চৌধুরী কর্তৃক প্লট-৩৭১/এ, ব্লক-ডি, বসুন্ধরা, বারিধারা থেকে প্রকাশিত এবং প্লট-সি/৫২, ব্লক-কে, বসুন্ধরা, খিলক্ষেত, বাড্ডা, ঢাকা-১২২৯ থেকে মুদ্রিত।
বার্তা ও সম্পাদকীয় বিভাগ : বসুন্ধরা আবাসিক এলাকা, প্লট-৩৭১/এ, ব্লক-ডি, বারিধারা, ঢাকা-১২২৯। পিএবিএক্স : ০২৮৪০২৩৭২-৭৫, ফ্যাক্স : ৮৪০২৩৬৮-৯, বিজ্ঞাপন ফোন : ৮১৫৮০১২, ৮৪০২০৪৮, বিজ্ঞাপন ফ্যাক্স : ৮১৫৮৮৬২, ৮৪০২০৪৭। E-mail : info@kalerkantho.com