logo
আপডেট : ১৯ মে, ২০১৭ ১৬:৩৭
বাড়িতে শর্ট সার্কিট থেকে ধোঁয়া, বেরিয়ে এলো অজগর!

বাড়িতে শর্ট সার্কিট থেকে ধোঁয়া, বেরিয়ে এলো অজগর!

বাড়ি বা অফিসের ইলেক্ট্রিকাল বক্সের মধ্যে ছুঁচো-ইঁদুর ঢুকে যাওয়ার সমস্যা ভারতে অন্তত নতুন নয়। তার জেরে বিদ্যুৎ বিভ্রাটও ঘটে। কিন্তু অস্ট্রেলিয়ার একটি পরিবার যে অভিজ্ঞতার সাক্ষী থাকল, তা শুনলে রীতিমতো শিউরে উঠতে হয়। ঘটনাটি ঘটেছে অস্ট্রেলিয়ার কুইন্সল্যান্ডে। সেখানে একটি বাড়িতে  শর্ট সার্কিটের সমস্যা হচ্ছিল। কেন এমন হচ্ছে, তা খতিয়ে দেখার বাড়ির ইলেক্ট্রিকাল সকেট-এর একটি মুখ খুলে পরীক্ষা করতে যান পরিবারেরই এক সদস্য। তখনই তিনি দেখেন, ওই সকেটের পিছনে লুকিয়ে রয়েছে একটি অজগর সাপ। ততক্ষণে সাপটি নিজেও বিদ্যুৎস্পৃষ্ট হয়েছে। কার্পেট পাইথন প্রজাতির এই সাপটি আকারে বেশ বড় হলেও খুব বেশি মোটা নয়। ফলে কোনওভাবে সেটি দেওয়ালের পিছনে ইলেক্ট্রিকাল সকেটের মধ্যে ঢুকে গিয়েছিল।

সাপটি বিদ্যুৎস্পৃষ্ট হওয়ার পরেই বাড়িতে শর্ট সার্কিট হয়। ইলেক্ট্রিকাল সকেটের ভিতর থেকে ধোঁয়াও বেরোতে থাকে। তখনই ওই পরিবারের নজরে আসে বিষয়টি। ২৪০ ভোল্টের কারেন্ট খেলেও সাপটি অবশ্য বেঁচে ছিল। এর পরেই সানশাইন কোস্ট স্নেক ক্যাচার্স নামক একটি সংস্থার কর্ণধার রিচি গিলবার্টকে খবর দেয় পরিবারটি। ওই সর্প বিশেষজ্ঞ এসেই সাপটিকে ইলেক্ট্রিকাল সকেটের ভিতর থেকে বের করেন। যদিও সাপটি ওই সকেটের ভিতরে থাকা তারের সঙ্গে এমনভাবে পেঁচিয়ে ছিল, যে সেটিকে বের করতে বেশ বেগ পেতে হয়। রিচি পরে জানান, বিদ্যুৎস্পৃষ্ট সাপটির অবস্থা বেশ খারাপ।

 

সম্পাদক : ইমদাদুল হক মিলন,
নির্বাহী সম্পাদক : মোস্তফা কামাল,
ইস্ট ওয়েস্ট মিডিয়া গ্রুপ লিমিটেডের পক্ষে ময়নাল হোসেন চৌধুরী কর্তৃক প্লট-৩৭১/এ, ব্লক-ডি, বসুন্ধরা, বারিধারা থেকে প্রকাশিত এবং প্লট-সি/৫২, ব্লক-কে, বসুন্ধরা, খিলক্ষেত, বাড্ডা, ঢাকা-১২২৯ থেকে মুদ্রিত।
বার্তা ও সম্পাদকীয় বিভাগ : বসুন্ধরা আবাসিক এলাকা, প্লট-৩৭১/এ, ব্লক-ডি, বারিধারা, ঢাকা-১২২৯। পিএবিএক্স : ০২৮৪০২৩৭২-৭৫, ফ্যাক্স : ৮৪০২৩৬৮-৯, বিজ্ঞাপন ফোন : ৮১৫৮০১২, ৮৪০২০৪৮, বিজ্ঞাপন ফ্যাক্স : ৮১৫৮৮৬২, ৮৪০২০৪৭। E-mail : info@kalerkantho.com