logo
আপডেট : ১৬ মার্চ, ২০১৭ ১৪:৩৪
গোয়ালন্দে তাসলিমার বাল্যবিয়ে আজ

গোয়ালন্দে তাসলিমার বাল্যবিয়ে আজ

রাজবাড়ীর গোয়ালন্দে স্কুলছাত্রী তাসলিমা আক্তারের বাল্যবিয়ে আজ। উপজেলার জলিল মুন্সিপাড়া গ্রামের মো. আক্কেল আলীর মেয়ে তাসলিমা স্থানীয় দৌলতদিয়া মডেল হাই স্কুলের সপ্তম শ্রেণির ছাত্রী। এদিকে, ওই ছাত্রীর ইচ্ছার বিরুদ্ধে এ বিয়ের আয়োজন করায় কনের সহপাঠীরা বাল্যবিয়ে বন্ধের জোর দাবি জানিয়েছে।

স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, গোয়ালন্দ উপজেলার দেবগ্রাম ইউনিয়নের প্রত্যন্ত চরাঞ্চলে জলিল মুন্সিপাড়া গ্রাম অবস্থিত। ওই গ্রামে কনের নিজ বাড়িতে গতকাল বুধবার স্কুলছাত্রী তাসলিমা আক্তারের গায়েহলুদ অনুষ্ঠান হয়। আজ বৃহস্পতিবার রাজবাড়ী সদর থানার খানখানাপুর থেকে বরযাত্রী নিয়ে বর আসার কথা কনের বাড়িতে। সেখানে আনুষ্ঠানিকভাবে ওই বরের (নাম ও পরিচয় অজ্ঞাত) হাতে তুলে দেওয়া হবে তাসলিমাকে। তাই আত্মীয়-স্বজনসহ আমন্ত্রিত অনেক অতিথি উপস্থিত হওয়ায় কনের বিয়ে বাড়িতে উৎসবের আমেজ বিরাজ করছে।

এদিকে, গতকাল বুধবার সকালে খবর পেয়ে ওই বাল্যবিয়ে বন্ধের জন্য স্কুলের প্রধান শিক্ষককে অনুরোধ জানান তাসলিমার কয়েকজন সহপাঠী। পরে প্রধান শিক্ষক নিজে মাঠে নেমে তাসলিমার বাল্যবিয়ে বন্ধের চেষ্টা চালান। কিন্তু ওই এলাকার কয়েকজন প্রভাবশালী লোকের বাধার মুখে এ ব্যাপারে তিনি বেশিদূর এগোতে পারছেন না।

তাসলিমার বাল্যবিয়ের আয়োজন প্রসঙ্গে স্থানীয় দেবগ্রাম ইউপি মেম্বার (৪ নম্বর ওয়ার্ড) লোকমান হোসেন বলেন, "এসব বিষয়ে মেয়ের পরিবারের লোকজনের সঙ্গে কথা বলা আমাদের জন্য অনেকটাই সমস্যা। তাই বাল্যবিয়েটি বন্ধের জন্য আপনারা অন্যভাবে চেষ্টা করেন।" এ প্রসঙ্গে কনে তাসলিমার একজন স্কুল শিক্ষিকা নাম প্রকাশ না করার শর্তে বলেন, "বাল্যবিয়ে বন্ধে স্থানীয় জনপ্রতিনিধিদের গুরুদায়িত্ব রয়েছে। অথচ একমাত্র ভোটের কথা বিবেচনা করে তাদের অনেকে এ ব্যাপারে সহসা এগিয়ে আসেন না।" দেবগ্রাম ইউপি চেয়ারম্যান মো. আতর আলী সরদারের সঙ্গে কথা বলতে তার মোবাইল ফোনে অনেকবার কল করা হলেও তিনি ফোন রিসিভ করেননি।

দৌলতদিয়া মডেল হাই স্কুলের প্রধান শিক্ষক মুহাম্মদ সহিদুল ইসলাম ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে কালের কণ্ঠকে বলেন, "সপ্তম শ্রেণির ছাত্রী তাসলিমা আক্তারের বাল্যবিয়ে দ্রুত বন্ধ করতে গোয়ালন্দ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তাকে অবহিত করা হবে।

গোয়ালন্দ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা হাসান হাবিব কালের কণ্ঠকে বলেন, "বাল্যবিয়ের কোনো অভিযোগ এখনও (আজ বৃহস্পতিবার বেলা সোয়া ১টা) পাইনি। তবে অভিযোগ পেলে বিষয়টি গুরুত্বের সঙ্গে খতিয়ে দেখে দ্রুত আইনি ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।"

 

সম্পাদক : ইমদাদুল হক মিলন,
নির্বাহী সম্পাদক : মোস্তফা কামাল,
ইস্ট ওয়েস্ট মিডিয়া গ্রুপ লিমিটেডের পক্ষে ময়নাল হোসেন চৌধুরী কর্তৃক প্লট-৩৭১/এ, ব্লক-ডি, বসুন্ধরা, বারিধারা থেকে প্রকাশিত এবং প্লট-সি/৫২, ব্লক-কে, বসুন্ধরা, খিলক্ষেত, বাড্ডা, ঢাকা-১২২৯ থেকে মুদ্রিত।
বার্তা ও সম্পাদকীয় বিভাগ : বসুন্ধরা আবাসিক এলাকা, প্লট-৩৭১/এ, ব্লক-ডি, বারিধারা, ঢাকা-১২২৯। পিএবিএক্স : ০২৮৪০২৩৭২-৭৫, ফ্যাক্স : ৮৪০২৩৬৮-৯, বিজ্ঞাপন ফোন : ৮১৫৮০১২, ৮৪০২০৪৮, বিজ্ঞাপন ফ্যাক্স : ৮১৫৮৮৬২, ৮৪০২০৪৭। E-mail : info@kalerkantho.com