logo
আপডেট : ১৭ ফেব্রুয়ারি, ২০১৭ ০০:০৩
নান্দাইলে প্রাইভেট না পড়ায় ছাত্রকে ১৮ ঘা

নান্দাইলে প্রাইভেট না পড়ায় ছাত্রকে ১৮ ঘা

বেত্রাঘাতে ক্ষতবিক্ষত ছাত্র

ময়মনসিংহের নান্দাইল রোড উচ্চ বিদ্যালয়ে অষ্টম শ্রেণির এক ছাত্র প্রাইভেট না পড়ায় তার পিঠে বেতের ১৮ ঘা মেরেছেন তাঁর শিক্ষক। গতকাল বৃহস্পতিবার দুপুরে ছেলেটিকে নান্দাইল উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়েছে। শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের নির্দেশনা অনুযায়ী, বিদ্যালয়ে ছাত্রদের মানসিক বা শারীরিক নির্যাতন করা যাবে না।

ওই ছাত্র (নাম প্রকাশ করা হচ্ছে না) জানায়, সপ্তম শ্রেণিতে পড়ার সময় সে বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক ওমর ফারুকের কাছে প্রাইভেট পড়ত। অষ্টম শ্রেণিতে ওঠার পর ফারুক তাকে প্রাইভেট পড়তে বলেন। সে রাজি হয়নি। সে প্রাইভেট পড়তে শুরু করে বিদ্যালয়ের সঙ্গে জড়িত নন এমন এক শিক্ষকের কাছে। এতে ফারুক তার ওপর ক্ষিপ্ত হন। সে নিয়মিত বিদ্যালয়ে উপস্থিত থাকত। কিন্তু ফারুক তাকে খাতায় উপস্থিত দেখাতেন না। ফলে তার ছাত্রত্ব নিয়ে সমস্যা তৈরি হচ্ছিল। গতকাল মধ্যাহ্নে শ্রেণিকক্ষে নাম ডাকার সময় শাহীন নিজের উপস্থিতি জানায়। তারপর ওই শিক্ষক নাম ডাকা থামিয়ে বেত হাতে তার কাছে গিয়ে মার শুরু করেন। যন্ত্রণায় ছটফট করতে থাকলেও তিনি থামেননি। একপর্যায়ে সে টিকতে না পেরে শ্রেণিকক্ষের বাইরে যায়। প্রত্যক্ষদর্শী সহপাঠীরা বলে, ‘শিক্ষক ক্ষিপ্ত হয়ে দুই হাতে বেত নিয়ে তাকে বেদম পেটায়। এতে তার পিঠে ১৮টি জখম হয়েছে।’ অভিযুক্ত শিক্ষক মো. ওমর ফারুক বলেন, ‘শ্রেণিকক্ষে হাজিরা নেওয়ার সময় ওই ছাত্র কটাক্ষ করে উত্তর দিচ্ছিল। মানা করলেও সে উছৃঙ্খল আচরণ করে। এরপর রাগে কয়েকটা বেত্রাঘাত করি। ছাত্রদের তো শাসন করাই যায়, এতে দোষের কিছু তো দেখি না।’

নান্দাইল উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে গিয়ে দেখা যায়, যন্ত্রণায় ছেলেটি কাতরাচ্ছে। এক সেবিকা তাকে ব্যথানাশক ইনজেকশন দিচ্ছেন। চিকিত্সা কর্মকর্তা ডা. আশরাফুন্নাহার লুনা বলেন, ‘ছাত্রের শরীরে জ্বর আসতে শুরু করেছে। উন্নতমানের চিকিত্সা প্রয়োজন।’ আহত ছাত্রের বাবা বলেন, ‘আমি এর বিচার চাই।’ নান্দাইল রোড উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মো. আব্দুল কাইয়ুম বলেন, ‘কাল শনিবার ওই শিক্ষকের বিচার করা হবে।’

নান্দাইল উপজেলার নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) মো. হাফিজুর রহমান বলেন, ‘সরকারিভাবে নিষেধ আছে শিক্ষার্থীর গায়ে হাত না তুলতে। তার পরও যে শিক্ষক এ ঘটনাটি ঘটিয়েছেন, তাঁকে অনেক মূল্য দিতে হবে।’

সম্পাদক : ইমদাদুল হক মিলন,
নির্বাহী সম্পাদক : মোস্তফা কামাল,
ইস্ট ওয়েস্ট মিডিয়া গ্রুপ লিমিটেডের পক্ষে ময়নাল হোসেন চৌধুরী কর্তৃক প্লট-৩৭১/এ, ব্লক-ডি, বসুন্ধরা, বারিধারা থেকে প্রকাশিত এবং প্লট-সি/৫২, ব্লক-কে, বসুন্ধরা, খিলক্ষেত, বাড্ডা, ঢাকা-১২২৯ থেকে মুদ্রিত।
বার্তা ও সম্পাদকীয় বিভাগ : বসুন্ধরা আবাসিক এলাকা, প্লট-৩৭১/এ, ব্লক-ডি, বারিধারা, ঢাকা-১২২৯। পিএবিএক্স : ০২৮৪০২৩৭২-৭৫, ফ্যাক্স : ৮৪০২৩৬৮-৯, বিজ্ঞাপন ফোন : ৮১৫৮০১২, ৮৪০২০৪৮, বিজ্ঞাপন ফ্যাক্স : ৮১৫৮৮৬২, ৮৪০২০৪৭। E-mail : info@kalerkantho.com