logo
আপডেট : ৩১ আগস্ট, ২০১৬ ২১:৪৯
ইমন থেকে সালমান

ইমন থেকে সালমান

নাঈম-শাবনাজকে নিয়ে ‘লাভ’ ছবির শুটিং করছিলাম। প্রযোজনা প্রতিষ্ঠান আনন্দমেলা থেকে ডাক এলো। ওরা হিন্দি ‘সনম বেওয়াফা’, ‘দিল’, ‘কেয়ামত সে কেয়ামত তক’ ছবির কপিরাইট এনেছে। আমাকে একটি ছবি করার প্রস্তাব দিল। নাঈম-শাবনাজকে নিয়েই ছবিটি বানাতে বলল। অগ্রিম টাকা নিয়ে সেদিন রাতেই দেখা করলাম। ওরা টাকা নিল না। নাঈম বলল, কিছুদিন পর ‘দিল’ মুক্তি পাবে। ফলাফল দেখে নতুন ছবি হাতে নেবে। প্রযোজক বললেন, ‘আমিন খান ও নাদিম নামে আরো দুই নতুন নায়ক আছে। ওদের ট্রাই করেন।’ আমিন তখন আরেকটি ছবির শুটিং করছে। সেটা শেষ না করে নতুন ছবি হাতে নিতে পারবে না। নাদিমও একইভাবে ‘না’ করে দিল। পরে সিদ্ধান্ত নিলাম, নতুন মুখ পেলে ছবিটি করব, নইলে ছেড়ে দেব। কিছুদিনের মধ্যে মৌসুমীকে চূড়ান্ত করলাম। এরই মধ্যে নায়ক আলমগীরের সাবেক স্ত্রী খোশনুর জানাল ইমন নামের এক ছেলের কথা। দুই দিন ফোন করেও পেলাম না, তৃতীয় দিন পেলাম। একটি চায়নিজ রেস্টুরেন্টে আসতে বললাম। প্রথম দেখাতেই ওকে পছন্দ হলো। ঠিক করলাম, ওকে দিয়ে ‘সনম বেওয়াফা’ করব। কিন্তু ও যখন শুনল ‘কেয়ামত সে কেয়ামত তক’ ছবিটিও আমি করব, তখন বেঁকে বসল, সে ‘কেয়ামত সে কেয়ামত তক’ করবে। কারণ ছবিটি এরই মধ্যে ২৬ বার দেখেছে ইমন। ওর কথা মেনেই হলো ‘কেয়ামত থেকে কেয়ামত’। আর নাম বদলে হয়ে গেল সালমান শাহ। পরের ইতিহাস তো সবার জানাই।

সম্পাদক : ইমদাদুল হক মিলন,
নির্বাহী সম্পাদক : মোস্তফা কামাল,
ইস্ট ওয়েস্ট মিডিয়া গ্রুপ লিমিটেডের পক্ষে ময়নাল হোসেন চৌধুরী কর্তৃক প্লট-৩৭১/এ, ব্লক-ডি, বসুন্ধরা, বারিধারা থেকে প্রকাশিত এবং প্লট-সি/৫২, ব্লক-কে, বসুন্ধরা, খিলক্ষেত, বাড্ডা, ঢাকা-১২২৯ থেকে মুদ্রিত।
বার্তা ও সম্পাদকীয় বিভাগ : বসুন্ধরা আবাসিক এলাকা, প্লট-৩৭১/এ, ব্লক-ডি, বারিধারা, ঢাকা-১২২৯। পিএবিএক্স : ০২৮৪০২৩৭২-৭৫, ফ্যাক্স : ৮৪০২৩৬৮-৯, বিজ্ঞাপন ফোন : ৮১৫৮০১২, ৮৪০২০৪৮, বিজ্ঞাপন ফ্যাক্স : ৮১৫৮৮৬২, ৮৪০২০৪৭। E-mail : info@kalerkantho.com