kalerkantho

কবিতা

২৫ মে, ২০১৮ ০০:০০



কবিতা

অঙ্কন : মানব

খাঁদু-দাদু

কাজী নজরুল ইসলাম

 

অ মা! তোমার বাবার নাকে কে মেরেছে ল্যাং?

খ্যাঁদা নাকে নাচেছ ন্যাদা—নাক্ ডেঙাডেং ড্যাং!

 

ওঁর        নাক্টাকে কে কর্ল খ্যাঁদা র্যাঁদা বুলিয়ে?

চামিচকে-ছা বসে যেন ন্যাজুড় ঝুলিয়ে!

বুড়ো গরুর টিকে যেন শুয়ে কোলা ব্যাং!

অ মা! আমি হেসে মরি, নাক ডেঙাডেং ড্যাং!

 

ওঁর        খ্যাঁদা নাকের ছেঁদা দিয়ে টুকি কে দেয় ‘টু’!

ছোড়িদ বলে সর্দি ওটা, এ রাম! ওয়াক! থুঃ!

কাছিম যেন উপুড় হয়ে ছড়িয়ে আছেন ঠ্যাং!

অ মা! আমি হেসে মরি, নাক ডেঙাডেং ড্যাং!

 

দাদু বুঝি চীনাম্যান্ মা, নাম বুঝি চাং চু,

তাই বুঝি ওঁর মুখ্টা অমন চ্যাপটা সুধাংশু!

জাপান দেশের নোটিশ উনি নাকে এঁটেছেন!

অ মা! আমি হেসে মরি, নাক ডেঙাডেং ডেং!

 

দাদুুর নাকি ছিল না মা অমন বাদুড়-নাক্,

ঘুম দিলে ঐ চ্যাপটা নাকেই বাজত সাতটা শাঁখ।

দিদিমা তাই থ্যাব্ড়া মেরে ধ্যাব্ড়া করেছেন!

অ মা! আমি হেসে মরি, নাক ডেঙাডেং ডেং!

 

লম্ফানন্দে লাফ দিয়ে মা চলতে বেজির ছা

দাড়ির জালে পড়ে জাদুর আটেক গেছে গা,

বিল্লি-বাচ্চা দিল্লি যেতে নাসিক এসেছেন!

অ মা! আমি হেসে মরি, নাক ডেঙাডেং ডেং!

 

দিদিমা কি দাদুর নাক টাঙেত ‘আল্মানাক্’

গজাল ঠুকে দেছেন ভেঙে বাঁকা নাকের কাঁখ?

মুচি এসে দাদুর আমার নাক করেছে ‘ট্যান্’!

অ মা! আমি হেসে মরি, নাক ডেঙাডেং ড্যাং!

 

বাঁশির মতন নাসিকা মা মেলে নাসিকে,

সেথায় নিয়ে চলো দাদু দেখন—হাসিকে।

সেথায় গিয়ে করুন দাদু গরুড় দেবের ধ্যান,

খাঁদু দাদু নাকু হবেন, নাক ডেঙাডেং ড্যাং।

 



মন্তব্য