kalerkantho


বিশ্বসাহিত্য

১৫ মার্চ, ২০১৯ ০০:০০



 ডোনাল্ড কিনি                                                                   রোসামান্ড পিলসার

কিনি ও রোসামান্ডের জীবনাবসান

বিশ্বসাহিত্য সম্প্রতি দুইজন খ্যাতনামা লেখককে হারিয়েছে। একজন হচ্ছেন জাপানের ডোনাল্ড কিনি, অন্যজন ব্রিটিশ লেখক রোসামান্ড পিলসার। যুক্তরাষ্ট্রে জন্ম নেওয়া জাপানি লেখক ডোনাল্ড কিনি মারা যান ২৪ ফেব্রুয়ারি। তাঁর বয়স হয়েছিল ৯৬ বছর। জাপানি সাহিত্যের খ্যাতনামা এই পণ্ডিতের রচনা ও অনুবাদগ্রন্থ জাপানের বাইরের কয়েক প্রজন্মের ছাত্রদের জাপানি সাহিত্য সম্পর্কে উত্সাহিত করেছে।   ইংরেজিতে প্রায় ২৫টি এবং জাপানি ভাষায় ৩০টির মতো বই লিখেছেন কিনি।

ব্রিটিশ লেখক রোসামান্ড পিলসার গত ৭ ফেব্রুয়ারি স্কটল্যান্ডের ডান্ডির একটি হাসপাতালে চিকিত্সাধীন অবস্থায় মারা গেছেন। তাঁর বয়স হয়েছিল ৯৪ বছর। দক্ষিণ-পশ্চিমাঞ্চলীয় কর্নওয়াল কাউন্টির উপকূলীয় এলাকায় বেড়ে ওঠা রোসামান্ডের এক ডজনেরও বেশি বই প্রকাশিত হয়েছে। একটি বোহেমিয়ান পরিবারের তিন প্রজন্মের কাহিনি তুলে ধরা ‘দ্য শেল সিকারস’ তাঁর সবচেয়ে আলোচিত উপন্যাস।  তাঁর অন্যান্য উপন্যাসের মধ্যে ‘সেপ্টেম্বর’, ‘কামিং হোম’, ‘উইন্টার সোলস্টিস’ ইত্যাদি উল্লেখযোগ্য।

বার্ট ভ্যান এস

কোস্টা বর্ষসেরা ‘দ্য কাট আউট গার্ল’

৯ বছর বয়সী ইহুদি ডাচ্ কিশোরী লিয়েন ডি জং। দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধকালে নািস সেনাদের হাত থেকে বাঁচাতে লিয়েনকে লুকিয়ে থাকতে সাহায্য করেছিল একটি পরিবার। লিয়েনের মা-বাবাকে সেনারা ধরে নািস ক্যাম্পে পাঠিয়েছিল। সেই লিয়েনের জীবনীগ্রন্থই জিতে নিয়েছে এবারের কোস্টা বুক অব দ্য ইয়ারের খেতাব। ‘দ্য কাট আউট গার্ল’ নামের বইটি এ বছর সেরা জীবনীগ্রন্থের পুরস্কারও জিতে নেয়। যে পরিবারটির গৃহকর্তা ও গৃহকর্ত্রী লিয়েনকে যুদ্ধের সেই দুঃসময়ে আশ্রয় দিয়েছিলেন, বইটি লিখেছেন তাঁদেরই নাতি অক্সফোর্ড বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপক বার্ট ভ্যান এস। নেদারল্যান্ডসে ১৯৭২ সালে জন্ম নেওয়া বার্ট ভ্যান এসের এই বইটি ছাড়া সমালোচনাধর্মী আরো চারটি বই রয়েছে। এ বছর কোস্টার অন্যান্য ক্যাটাগরির মধ্যে সেরা উপন্যাস নির্বাচিত হয় স্যালি রুনির ‘নরমাল পিপল’, সেরা প্রথম উপন্যাস হয় স্টুয়ার্ট টার্টনের ‘দ্য সেভেন ডেথস অব ইভলিন হার্ডক্যাসল’, সেরা কাব্যগ্রন্থ নির্বাচিত জেও মর্গানের ‘অ্যাশিউর্যান্স’ এবং সেরা শিশুতোষ গ্রন্থ হয় হিলারি ম্যাককের ‘দ্য স্কাইলার্কস ওয়ার’।

 নানা কোয়ামে আদজেই-ব্রেনিয়াহ

 

ডিলান টমাস প্রাইজের দীর্ঘ তালিকা

সম্প্রতি ইন্টারন্যাশনাল ডিলান টমাস প্রাইজের জন্য মনোনীত বইয়ের দীর্ঘ তালিকা প্রকাশ করা হয়েছে। এবারের তালিকায় এমা গ্লাস কিংবা মাইকেল ডনকরের মতো নতুন লেখকদের বই থেকে শুরু করে এরই মধ্যে আন্তর্জাতিক অঙ্গনে খ্যাতিমান হয়ে ওঠা স্যালি রুনি কিংবা গাই গুনারত্নের মতো লেখকদের বই জায়গা করে নিয়েছে। তরুণ লেখকদের কাছে সবচেয়ে কাঙ্ক্ষিত ৩০ হাজার পাউন্ড অর্থমূল্যের এই পুরস্কার যুক্তরাজ্যের সোয়ানসি ইউনিভার্সিটির সহযোগিতায় দেওয়া হয়। ওয়েলসের সোয়ানজিতে জন্ম নেওয়া ডিলান টমাসের নামে প্রবর্তিত এ পুরস্কারের জন্য মনোনীত হন শুধু অনূর্ধ্ব ৩৯ বছর বয়সী লেখকরাই। কারণ, ৩৯ বছর বয়সে মারা গিয়েছিলেন ডিলান টমাস। এবারের পুরস্কারের জন্য মনোনীত দীর্ঘ তালিকার বইগুলো হচ্ছে—নানা কোয়ামে আদজেই-ব্রেনিয়াহর ‘ফ্রাইডে ব্ল্যাক’, মাইকেল ডনকরের ‘হোল্ড’, ক্লেয়ার ফিশারের ‘হাউ দ্য লাইট গেটস ইন’, জো গিলবার্টের ‘ফোক’, এমা গ্লাসের ‘পিচ’, গাই গুনারত্নের ‘ইন আওয়ার ম্যাড অ্যান্ড ফিউরিয়াস সিটি’, লুইসা হলের ‘ট্রিনিটি’, সারাহ পেরির ‘মেলমথ’, স্যালি রুনির ‘নরমাল পিপল’, রিচার্ড স্কটের ‘সোহো’, নোভুয়ো রোসা শুমার ‘হাউস অব স্টোন’ এবং জেনি শির ‘আই লেভেল’। চূড়ান্ত বিজয়ীর নাম ঘোষণা করা হবে ১৬ মে।

►রিয়াজ মিলটন

 



মন্তব্য