kalerkantho


বেপরোয়া পুলিশ ও সিদ্দিকুর

৩১ ডিসেম্বর, ২০১৭ ০০:০০



বেপরোয়া পুলিশ ও সিদ্দিকুর

পরীক্ষার তারিখ সময়সূচি ঘোষণাসহ কয়েকটি দাবিতে ২০ জুলাই শাহবাগে অবস্থান কর্মসূচি পালনকালে পুলিশের ছোড়া টিয়ার শেলে চোখে গুরুতর আহত হন তিতুমীর কলেজের ছাত্র সিদ্দিকুর রহমান পরে তাঁকে জাতীয় চক্ষুবিজ্ঞান ইনস্টিটিউট হাসপাতালে ভর্তি করা হলে চিকিত্সকরা জানান, সিদ্দিকের ডান চোখে আলো ফেরার সম্ভাবনা নেই এবং বাঁ চোখের অবস্থাও ভালো নয় সঠিক সময় শিক্ষাজীবন শেষ করার দাবিতে নিরীহ ছাত্র আন্দোলনে পুলিশের এমন বেপরোয়া লাঠিপেটা টিয়ার শেলের বিরুদ্ধে দেশব্যাপী ব্যাপক প্রতিবাদ হয় পরিস্থিতি সামাল দিতে সিদ্দিকুরকে ভারতের চেন্নাইয়ের শংকর নেত্রালয়ে উন্নত চিকিত্সার জন্য পাঠানো হয় সেখানে অস্ত্রোপচার করেও সিদ্দিকুরের চোখে আলো ফেরেনি গত ১৩ সেপ্টেম্বর সরকারের স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ে তাঁকে সরকারি চাকরিতে নিয়োগ দেওয়া হয়

শুধু সিদ্দিকুর নয়, বিদ্যুতের দাম বাড়ার প্রতিবাদে সিপিবি-বাসদ ও বাম মোর্চার ডাকা গত বছরের ২৯ নভেম্বর দেশব্যাপী আধবেলা হরতালে পুলিশ ‘সাউন্ড স্টিমুলেটর’ ব্যবহার করে। পুলিশের এ নতুন অস্ত্র সাউন্ড স্টিমুলেটর। তীক্ষ শব্দতরঙ্গ সৃষ্টির মাধ্যমে আন্দোলনকারীদের ওপর চড়াও হয় পুলিশ। সাউন্ড স্টিমুলেটর বাজতে শুরু করলে সেখানে টেকা দায়। নাগরিকের ওপর এ ধরনের অস্ত্র ব্যবহার কঠোরভাবে সমালোচিত হয়েছে।


মন্তব্য