kalerkantho


শেখ হাসিনাকে উকিল নোটিশ

৩১ ডিসেম্বর, ২০১৭ ০০:০০



বছরের শেষ দিকে এসে ১৯ ডিসেম্বর প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার কাছে উকিল নোটিশ পাঠান বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া। নোটিশ পাঠানোর ৩০ দিনের মধ্যে ‘নিঃশর্ত ক্ষমা না চাইলে’ প্রধানমন্ত্রীর বিরুদ্ধে ক্ষতিপূরণ আদায়ে আইনি ব্যবস্থা নেওয়ার কথা বলা হয়েছে নোটিশে। গত ৭ ডিসেম্বর গণভবনে এক সংবাদ সম্মেলনে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা সৌদি আরবে বিএনপি নেত্রীর সম্পদের খবর নিয়ে কথা বলেন। এই পরিপ্রেক্ষিতে ৮ ডিসেম্বর সংবাদ সম্মেলন করে প্রতিবাদ জানান বিএনপি মহাসচিব। প্রধানমন্ত্রীকে ‘ক্ষমা প্রার্থনার’ আহ্বান রেখে তিনি সেদিন বলেছিলেন অন্যায় তারা আইনি ব্যবস্থা গ্রহণ করবেন। এর ১১ দিন পর খালেদা জিয়ার পক্ষ থেকে এই উকিল নোটিশ পাঠানো হয়। খালেদা জিয়ার পক্ষে তাঁর আইনজীবী সুপ্রিম কোর্ট আইনজীবী সমিতির সম্পাদক ব্যারিস্টার মাহবুব উদ্দিন খোকন ১৯ ডিসেম্বর রেজিস্টার্ড ডাকযোগে এবং কুরিয়ার সার্ভিস মাধ্যমে এই উকিল নোটিশটি পাঠান, যা ২০ ডিসেম্বর সংবাদ সম্মেলনের মাধ্যমে প্রকাশ করেন দলের মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর।

নোটিশের বক্তব্যে বলা হয়েছে, ‘আপনি (প্রধানমন্ত্রী) খালেদা জিয়া এবং তাঁর পুত্রদের সম্পর্কে যে অভিযোগ এনেছেন তা সাজানো বানোয়াট, উদ্দেশ্যপ্রণোদিত ও বিদ্বেষমূলক। বাংলাদেশে নির্দোষ ও পরিচ্ছন্ন ভাবমূর্তি সম্পন্ন সবচেয়ে জনপ্রিয় নেতা হিসেবে খালেদা জিয়ার সুনাম বিনষ্ট করার হীন উদ্দেশ্যে পরিকল্পিতভাবে আপনি এসব অভিযোগ এনেছেন। এই মানহানিকর বিবৃতির কারণে অপূরণীয় লোকসান ও ক্ষতি হয়েছে যার জন্য আইনত আপনি (প্রধানমন্ত্রী) দায়ী। এই নোটিশের মাধ্যমে আমরা আপনাকে (প্রধানমন্ত্রী) খালেদা জিয়ার কাছে নিশর্ত ক্ষমা প্রার্থনা করার আহ্বান জানাচ্ছি।’ নোটিশ পাঠানোর পর বিষয়টি দেশব্যাপী আলোচিত হয়। আওয়ামী লীগ ও বিএনপির মধ্যে প্রতিক্রিয়া-পাল্টা প্রতিক্রিয়া সৃষ্টি হয়।



মন্তব্য