kalerkantho


চাল পেঁয়াজ সবজিতে অস্বস্তি

৩১ ডিসেম্বর, ২০১৭ ০০:০০



বিদায়ী বছর ছিল চালের দামের সর্বোচ্চ সীমা ছাড়ার বছর। মোটা চাল কেজিপ্রতি ৫০ টাকায় বিক্রি হয়েছে। আর পেঁয়াজের দাম তো ১০০ টাকা ছাড়িয়ে বহু দূর যায়। শীত এলে সাধারণত সবজির দাম কমে যায়। কিন্তু এবার শীতের সবজি উঠলেও অন্যান্য বছরের মতো দাম তেমন সহনীয় হয়নি। চাল, পেঁয়াজ ও সবজি নিয়ে সরকারের অস্বস্তি যায়নি। অস্বস্তি নিয়েই নতুন বছরে প্রবেশ করছে সরকার।

এ বছরের শুরুতে চালের দাম ছিল কেজিপ্রতি ৪০ টাকা, যা বছরের মে মাসেই ৫০ টাকায় উঠে যায়। সরকার চালের দাম কমাতে বেশ কিছু উদ্যোগ নেয়, যার ফলে নভেম্বর নাগাদ চালের দাম ৪২ টাকায় নেমে দাঁড়ায়। তবে ডিসেম্বর মাসের মাঝামাঝি থেকে ফের চালের দাম বাড়তে থাকে। বাড়তে বাড়তে সর্বশেষ ৪৫ টাকায় গিয়ে পৌঁছেছে চালের দাম। এ বছরের ডিসেম্বর পর্যন্ত নিম্নমানের মোটা চাল ৪৫ থেকে ৫০ টাকায় বিক্রি হয়েছে। চালের দাম বেড়ে যাওয়ায় সামাজিক নিরাপত্তার সীমা কমিয়ে আনা হয়েছে। এতে প্রান্তিক দরিদ্র মানুষ আরো বেকায়দায় পড়েছে।

চালের দাম বেড়ে যাওয়ার পর গত বছরের সেপ্টেম্বর থেকে ৩০ টাকা কেজি দরে ওএমএসে চাল বিক্রি শুরুও করেছিল। ওএমএসে  আতপ চাল দেওয়া হচ্ছিল। সিদ্ধ চাল না দেওয়ায় শেষ পর্যন্ত ওএমএস বন্ধের সিদ্ধান্ত নেয় খাদ্য অধিদপ্তর। ১৫ ডিসেম্বর থেকে ওএমএস বন্ধ করে দেয় সরকার। এতে নিম্ন আয়ের মানুষ আরো বিপদে পড়ে।

এ বছর পেঁয়াজের দাম ছিল অন্যতম আলোচিত বিষয়ের একটি। শেষ দিকে এসে দেশি পেঁয়াজের দাম এ ডিসেম্বর পর্যন্ত রাজধানী ঢাকায় ক্রেতাকে কিনতে হয়েছে স্থানভেদে ৮৫ থেকে ৯০ টাকায়। আর ভারতীয় পেঁয়াজ কিনতে হয়েছে ৭০ টাকা কেজিতে।

সরকারি সংস্থা ট্রেডিং করপোরেশন অব বাংলাদেশের (টিসিবি) বাজারদরের তালিকা অনুযায়ী, গত অক্টোবর মাসে বাজারে পেঁয়াজের দাম ৭১ শতাংশ বেড়েছে। এক বছর আগে অর্থাত্ ২০১৬ সালের অক্টোবরে এক কেজি পেঁয়াজের দাম ২০ থেকে ৩৫ টাকা।



মন্তব্য