kalerkantho


পা ঞ্জা বি

পাঞ্জাবি-ফতুয়ায় তরুণের বৈশাখ

বৈশাখে তরুণদের পছন্দের পোশাকের তালিকায় থাকে পাঞ্জাবি ও ফতুয়া। এবারও নেই তার ভিন্নতা। তাদের কথা মাথায় রেখেই আয়োজন সাজিয়েছে ফ্যাশন হাউসগুলো। ডিজাইনারদের সঙ্গে কথা বলে জানাচ্ছেন নাঈম সিনহা

৬ এপ্রিল, ২০১৮ ০০:০০



পাঞ্জাবি-ফতুয়ায় তরুণের বৈশাখ

ফ্যাশন হাউস লুবনান গ্রীষ্মের কথা মাথায় রেখেই করেছে তাদের ডিজাইন। লুবনানের সিনিয়র ডিজাইনার জাহাঙ্গীর আলম বলেন, গরমের কথা মাথায় রেখে পাঞ্জাবিতে সুতি কাপড়ের ব্যবহার বেশি হয়েছে। হ্যান্ডলুম, টেক্সটাইল ও নরসিংদীর বিভিন্ন তাঁতির তৈরি সুতি কাপড় ব্যবহার করেছি। এর পাশাপাশি তসর, সিল্ক, এনডি কটন, কোটা কাপড়ও ব্যবহার করা হয়েছে। রঙের ক্ষেত্রে আমরা বৈশাখের চিরচরিত রং লাল-সাদাকে মাথায় রেখেছি। উজ্জ্বল রং নিয়েও কাজ হয়েছে। তবে গরমের কথা মাথায় রেখে সাদা অফ হোয়াইট, ক্রিম, আকাশি বাসন্তী, লেমনের মতো হালকা রঙের ব্যবহার বেশি হয়েছে।

ডিজাইনে সব সময়ের মতো তারুণ্যের চাহিদা মাথায় রাখা হয়েছে। প্যাটার্নের ক্ষেত্রে কিছু ভিন্নতা আনা হয়েছে, যেমন একছাঁটা ও কলিওয়ালা পাঞ্জাবি। থাকছে রেগুলার, স্লিমফিট, স্লিম শট প্যাটার্নও। কাটিংয়ের ক্ষেত্রে রয়েছে নবাবি, কাবলি ও প্রিন্স কাট। মোটিফে লক্ষ রাখা হয়েছে বৈশাখের পাশাপাশি যাতে সারা বছর পাঞ্জাবিগুলো পরা যায়। ইসলামিক অর্নামেন্টাল, জিওমেট্রিক, ফ্লোরাল ও আলপনা প্রাধান্য পেয়েছে।

 

 

 

 

 

স্বপ্ন ফ্যাশন হাউসের সিনিয়র ডিজাইনার ফারহানা শর্মী বলেন, বৈশাখের পাঞ্জাবিতে একদম সাধারণ প্যাটার্ন ব্যবহার করছে স্বপ্ন। উৎসবের আমেজ

ধরে রেখে মূলত সাদা রঙের ওপর ডিজাইন করা হয়েছে। গরমে আরামের জন্যই সাদার এই প্রাধান্য। ডিজাইনের ক্ষেত্রে প্রিন্ট, ব্রাশ কালার স্প্ল্যাশ, স্ক্রিন প্রিন্ট ও এমব্রয়ডারির ব্যবহার  হয়েছে। ফ্যাশন হাউস দর্জিবাড়ি এবারের বৈশাখের আয়োজন করেছে শুধু ফতুয়াকে ঘিরে। দর্জিবাড়ির প্রধান ডিজাইনার তাহজিবুল আরিফ অপু বললেন,

এবার বৈশাখের আয়োজন করেছি কিছুটা ভিন্নভাবে। সাধারণত বৈশাখের পোশাক বলতে পাঞ্জাবি বোঝানো হয়। তবে বাঙালি সত্তার সঙ্গে  জড়িয়ে আছে ফতুয়া। পাঞ্জাবির মতোই আদি ঐতিহ্য আছে ফতুয়ার। সেই চিন্তা থেকেই এবার ফতুয়াকে প্রাধান্য দেওয়া। রঙের ক্ষেত্রে বৈশাখের আদি রং লাল-সাদা বাদেও বিভিন্ন রং ফতুয়ায় ব্যবহার করা হয়েছে। কিছু প্রিন্টেড ফতুয়াও করা হয়েছে। রয়েছে এমব্রয়ডারির কাজও। ফতুয়ার কাটের ক্ষেত্রে বিশেষ কলার ব্যবহার করা হয়নি। কিছুটা সাবেকি ধাঁচ ব্যবহার করা হয়েছে। আমরা আসলে সেই আদি ঐতিহ্যকেই তুলে ধরার চেষ্টা করেছি। পানপাতা, টেরাকোটার মতো কয়েক শ বছর আগের পুরনো মোটিফগুলো প্রাধান্য পেয়েছে।

 

 

 

 

 

ফ্যাশন হাউস ওটুর ডিজাইনার সাবরিনা ইসলাম জানালেন, এবার পাঞ্জাবিতে হাতের কাজের ব্যবহার হয়েছে। অ্যারাবিক বিভিন্ন মোটিফ ব্যবহূত হচ্ছে। লাল-সাদার পাশাপাশি অন্য রঙের কাপড় ব্যবহার করা হয়েছে। এসব পাঞ্জাবিতে হাতের কাজ রয়েছে। পাঞ্জাবির কলারে বিভিন্ন নতুন ডিজাইন আনা হয়েছে। হাতের কাজের ক্ষেত্রে কোনো ধরনের ম্যাটেরিয়ালের ব্যবহার করা হয়নি। শুধু সুতার কাজ করা হয়েছে।

 

 


মন্তব্য