kalerkantho

তাঁরা ১০

৭ মার্চ, ২০১৯ ০০:০০ | পড়া যাবে ৪ মিনিটে



তাঁরা ১০

কিছুদিন আগেই ফোর্বস ম্যাগাজিন প্রকাশ করেছে অনূর্ধ্ব ৩০ বছর বয়সী প্রেরণাদায়ী ব্যক্তিত্বের তালিকা, যেখানে সংগীত দুনিয়ার আছেন ১০ জন। তাঁদের নিয়ে লিখেছেন লতিফুল হক

 

২১ শ্যাভেজ

এই প্রজন্মের ছেলে-মেয়েদের কাছে খুবই জনপ্রিয় এই র‌্যাপার। আরেক র‌্যাপার ড্রেকের সঙ্গে কাজ করে কিছুটা পরিচিতি পেয়েছিলেন বটে, তবে রাতারাতি চমকে দেন প্রথম একক ‘ইসা অ্যালবাম’ দিয়ে। প্রকাশের পরই বিলবোর্ড ২০০-র দুইয়ে এবং হট ১০০-এর সেরা বিশে স্থান পায়। ২০১৭ সালে গ্র্যামির দুই ক্যাটাগরিতে মনোনয়নও পেয়েছিলেন। আগামী দিনে ড্রেকের যোগ্য উত্তরসূরি মনে করা হচ্ছে তাঁকে। গেল বছর নিজের দ্বিতীয় একক প্রকাশের পর টানা দুই সপ্তাহ বিলবোর্ড ২০০-র শীর্ষে ছিলেন।

 

ব্যাড বানি

২৪ বছর বয়সী পুয়ের্তো রিকানের স্টেজ নাম ব্যাড বানি। লাতিন ঘরানার ট্র্যাপ র‌্যাপার। ২১ শ্যাভেজের মতো তিনিও কাজ করেছেন ড্রেকের সঙ্গে। তবে আলোচনায় আসেন ‘আই লাইক ইট’ দিয়ে। গেল বছর কার্ডি বি, জে বালভিনের সঙ্গে মিলে সিঙ্গলটি করেছিলেন, যা বিলবোর্ড হট ১০০-এর শীর্ষে জায়গা পায়। ব্যস, রাতারাতি পরিচিতি পেয়ে যান বানি।

 

কামিলা কাবেলো

বয়স সবে ২২, এর মধ্যেই জনপ্রিয়তায় অনেককে পেছনে ফেলে দিয়েছেন। কামিলার ইনস্টাগ্রাম অনুসারীর সংখ্যা তিন কোটি ১২ লাখ! জন্ম কিউবায় হলেও এখন তিনি মার্কিন নাগরিক। শুরুতেই আকাশচুম্বী সাফল্য পাননি, প্রথম সিঙ্গল ‘ক্রায়িং ইন দ্য ক্লাব’ ভালো কিছু করতে পারেনি। ২০১৮ সালে অভিষেক অ্যালবাম ‘কামিলা’ দিয়েই নাড়িয়ে দেন। অ্যালবামের সিঙ্গল ‘নেভার বি দ্য সেম’ অন্তত ১০টি দেশের টপ চার্টের সেরা দশে জায়গা পায়। তবে এর চেয়েও বড় ব্যাপার কামিলার লাতিন ঘরানার গায়কি, যা তাঁর গানে ভিন্ন মাত্রা যোগ করেছে, তিন বছরের মধ্যেই তিনি শীর্ষ গায়িকা হবেন বলে ভবিষ্যদ্বাণী করেছেন অনেকে।

 

বিলি এইলিস

এখনো প্রথম অ্যালবাম প্রকাশ পায়নি, কিন্তু ১৭ বছর বয়সী মার্কিন গায়িকা বিলি এইলিসকে নিয়ে বাজি ধরছেন অনেকেই। মূলত তাঁর অভিষেক সিঙ্গল প্লে ‘ওশান আইজ’ ও এক্সটেনন্ডেড ‘ডোন্ট স্মাইল অ্যাট মি’ ব্যাপক ব্যবসাসফল হওয়ায় এই আশা। ‘ডোন্ট স্মাইল অ্যাট মি’ অনলাইনে স্ট্রিমিং হয়েছে দেড় বিলিয়ন! প্রথম অ্যালবাম ‘হোয়েন উইল অল ফল অ্যাস্লিপ, হোয়্যার ডু উই গো?’ প্রকাশ পাবে এ মাসের ২৯ তারিখে।

 

লরেন জাউরেগুই

নারীদের জনপ্রিয় ব্যান্ড ফিফথ হারমোনির সাবেক সদস্য লরেন। ব্যান্ডে লরেনের পারফরম্যান্স ছিল মাঝারি মানের, সেখান থেকে নতুন উচ্চতায় যাওয়ার চেষ্টা করছেন তিনি। গানের সঙ্গে মানবাধিকারকর্মী হিসেবেও আলোচিত, কাজ করেন সমকামীদের অধিকার নিয়ে। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ২২ বছর বয়সী এই গায়িকার অনুসারী প্রায় দেড় কোটি।

 

লিল পাম্প

এই প্রজন্মের হিপহপ গায়ক লিল। মূলত ভিন্ন ধারার হিপহপ গেয়ে আলোচনায়। তাঁর সবচেয়ে আলোচিত গান ‘গুচি গ্যাং’ টপ চার্টের তিনে জায়গা পেয়েছিল, ইউটিউবে পেয়েছে প্রায় ৯০ কোটি ভিউ!

 

পোস্ট ম্যালোন

এর মধ্যেই চারবার গ্র্যামিতে মনোনয়ন পেয়েছিলেন, যদিও এখনো অধরাই থেকে গেছে পুরস্কার। তবে গেল কয়েক বছরের ধারাবাহিকতা দেখলে বোঝা যাবে, পুরস্কার তাঁর কাছে শুধুই সময়ের ব্যাপার। ২০১৩ সালে পেশাদার শিল্পী হিসেবে যাত্রা শুরুর পর মুক্তি পেয়েছে দুই অ্যালবাম। এখন প্রতিটি ট্যুরের জন্য পাঁচ লাখ ডলার নিয়ে থাকেন শিল্পী।

 

জেসি রেয়েজ

কানাডীয় এই গায়িকা গীতিকার হিসেবেও সমানভাবে খ্যাত। একই সঙ্গে গিটার বাজিয়ে হিসেবেও বেশ নাম। গেল বছর কানাডার সংগীতের সবচেয়ে বড় পুরস্কার ‘জুনো অ্যাওয়ার্ডস’-এ ‘বেকথ্রু আর্টিস্ট অব দ্য ইয়ার’ হন তিনি।

 

রস

২৬ বছর বয়সী এই হিপহপ গায়ক এর মধ্যেই দারুণ সফল। বার্ষিক আয় দেড় কোটি ডলারেরও বেশি। ফোর্বসের করা শীর্ষ ২০ ধনী হিপহপ শিল্পীর তালিকায় ছিলেন। গাওয়া ছাড়াও লেখা, সুর করা, মিক্সিং, প্রযোজনা ইত্যাদিতেও সমান দক্ষ।

 

গ্রেস ভান্ডারওয়াল

ইউটিউবে কাভার গেয়ে জনপ্রিয়। মাত্র ১২ বছর বয়সেই ‘আমেরিকা’জ গট ট্যালেন্ট’ জেতেন। এরপর টিন চয়েসে জিতেছেন সেরা নবাগত শিল্পীর পুরস্কার, বিলবোর্ডের করা ‘২১ আন্ডার ২১’-এ জায়গা পেয়েছেন। পরে বিলবোর্ডের ‘ওম্যান ইন মিউজিক রাইজিং স্টার’ পুরস্কারও জেতেন। মাত্র ১৫ বছর বয়সী এই গায়িকাকে নিয়ে অনেকেই বাজি ধরছেন।

 

মন্তব্য